হ্যাকিং এর কবলে পরে ভারতীয় কোম্পানগুলোর ক্ষতি হয়েছে ৪০০ কোটি ডলার

0
313
সাইবার হামলার কারণে গত বছর ভারতীয় কোম্পানগুলোর ক্ষতি হয়েছে ৪০০ কোটি ডলার। তবে চলতি বছর এ ক্ষতি ৩০ শতাংশ বেড়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

কোম্পানগুলোর ক্ষতি হয়েছে ৪০০ কোটি ডলার হ্যাকিং এর কবলে পরে ভারতীয় কোম্পানগুলোর ক্ষতি হয়েছে ৪০০ কোটি ডলারচলতি বছরের শুরুর দিকে সাইবার জালিয়াতির শিকার হয় বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জ তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান দীপক নিত্রিত। ভারতের বরোদাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান দীপক নিত্রিতে চলতি বছরের শুরুর দিকে তার এক গ্রাহকের কাছে প্রয়োজনীয় পণ্য সরবরাহ করে। কিন্তু দীপক নিত্রিতের পক্ষ থেকে পণ্য সরবরাহের বিষয়টি নিশ্চিত করে অর্থ চাওয়া হলেও গ্রাহক অর্থ পাঠাননি। পরবর্তীতে জানা যায়, সে গ্রাহক দীপক নিত্রিতের পক্ষ থেকে একটি মেইল পেয়েছিলেন। মেইলটিতে লেখা ছিল, দীপক নিত্রিতে তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট পরিবর্তন করেছে। সেখানে নতুন মেইল নম্বরও দেয়া ছিল। গ্রাহক নতুন ব্যাংক অ্যাকাউন্টে অর্থ পরিশোধ করেন। এ ধরনের দুর্ঘটনা ভারতে অহরহই ঘটছে। ফলে বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে ছোট-বড় সব ধরনের প্রতিষ্ঠানই।

এ বিষয়ে মুম্বাইয়ের ক্রাইম ইউনিটের জয়েন্ট কমিশনার সদানন্দ দত্ত বলেন, ভারতের বিভিন্ন কোম্পানি লক্ষ্য করে সাইবার হামলার ঘটনা দিন দিন বাড়ছে। অসেচতন থাকার কারণে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকেই। এ কারণে সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সচেতনতার পরামর্শ দেন সদানন্দ দত্ত।

এদিকে ভারতের আরেক প্রতিষ্ঠান মেমোন এক্সপোর্টস একই ধরনের ঘটনায় ৩৮ কোটি রুপি লোকসানের শিকার হয়েছে। এ বিষয়ে মুম্বাই পুলিশের কাছে অভিযোগও জানানো হয়েছিল।

বিশ্লেষকদের মতে, ভারতের ক্ষেত্রে সাইবার অপরাধীরা বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা বা সরাসরি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার মেইল আইডি হ্যাক করছে। এ আইডি থেকেই সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন গ্রাহকের কাছে মেইল পাঠিয়ে নানা কারণ দেখিয়ে অর্থ চাওয়া হচ্ছে। আর মেইল আইডি প্রতিষ্ঠানপ্রধানের হওয়ার কারণে অনেকে কোনো ধরেনের সংশয় ছাড়াই অর্থ পাঠিয়ে দিচ্ছেন।

তবে ভারতের কোম্পানিগুলোয় হামলার লক্ষ্য শুধু অর্থ নয় বলেও মনে করছেন সাইবার বিশেষজ্ঞরা। কারণ সম্প্রতি বেঙ্গালুরুভিত্তিক এক তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সাইটে সাইবার হামলা চালিয়ে প্রায় এক হাজার কর্মীর ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেয়া হয়েছে।

সাইবার বিশেষজ্ঞদের মতে, ভারতের কোম্পানিগুলো এখনো ক্রমবর্ধমান সাইবার হামলা প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হচ্ছে। তাদের অধিকাংশই সাইবার নিরাপত্তায় পুরনো ও দুর্বল ব্যবস্থা ব্যবহার করছেন। ফলে আক্রান্ত হওয়ার হার ক্রমেই বাড়ছে। সাইবার হামলা প্রতিরোধে সমগ্র বিশ্বের প্রতিষ্ঠানগুলো যেখানে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করছে, সেখানে ভারতের কোম্পানিগুলো এখনো মান্ধাতা আমলের ব্যবস্থায় পড়ে রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ