বাংলাদেশি একটি গেমস বিশ্বের অন্তত ৯৮টি দেশে এখনও শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে

0
435
স্মার্টফোনে গেম খেলেন অথচ ট্যাপ ট্যাপ অ্যান্টসের নাম শোনেননি এমন গেমারের সংখ্যা খুবই কম। বাংলাদেশি এই গেমটি বিশ্বের অন্তত ৯৮টি দেশে এখনও শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে।  ডাউনলোড সংখ্যা সর্বমোট ১৫ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে। আর এই গেমটির নির্মাতা বাংলাদেশি গেম ডেভেলপমেন্ট প্রতিষ্ঠান রাইস আপ ল্যাবস (www.riseuplabs.com)।

কয়েক বছর আগে তৈরি হওয়া সাফল্যের শীর্ষে থাকা এই গেমটির সাফল্যকে সামনে রেখে আবারও নতুন গেম উন্মুক্ত করেছে প্রতিষ্ঠানটি। অ্যাপ স্টোরে উম্মুক্ত করা এই গেমটির নাম ‘হাইওয়ে চেইস’।

বাংলাদেশি একটি গেমস বিশ্বের অন্তত ৯৮টি দেশে এখনও শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশি একটি গেমস বিশ্বের অন্তত ৯৮টি দেশে এখনও শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে

শুটিংপ্রেমী গেমারদের বিশেষ পছন্দ হলো স্নাইপার শুটিং গেম। আর তাই ‘হাইওয়ে চেইস’ গেমটি অ্যাকশন ও শুটিংপ্রেমীদের জন্য বিশেষভাবে তৈরি করা হয়েছে। গেমটিতে গেমারের চরিত্রে রয়েছেন একজন স্নাইপার। যার কাজ হলো নির্ধারিত সময়ের মধ্যে হেলিকপ্টার থেকে গুলি করে চোরের গাড়ি ধ্বংস করা।
পাশাপাশি পথচারী ও সাধারণ গাড়িতে যেন আঘাত না লাগে, সেটিও খেয়াল করা। ছোট-বড় সবার জন্য উপযোগি করে ‘হাইওয়ে চেইস’ গেমটি তৈরি করা হয়েছে। দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বাজার খেয়াল রেখে গেমটিতে উন্নতমানের সাউন্ড ইফেক্টস, আকর্ষণীয় গ্রাফিক্স এবং পয়েন্ট সুবিধা রয়েছে। পয়েন্ট অর্জনের মাধ্যমে গেমার গেমের বিভিন্ন ধাপ আনলক করতে পারবেন।

রাইস আপ ল্যাবসের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরশাদুল হক বলেন, আমরা বাজারে থাকা অন্যান্য গেমের থেকে আলাদা বৈশিষ্ট্যে ক্যারেক্টার, গ্রাফিক্স, সাউন্ড, আর্টওয়ার্ক এবং কাহিনী নিয়ে গেম তৈরির চেষ্টা করি।

‘হাইওয়ে চেইস’ এর ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। প্রায় দুই মাসে তৈরি করা গেমটি ট্যাপ ট্যাপ অ্যান্টসের মতো বিশ্বের মোবাইল গেম সেক্টরে বাংলাদেশের নাম আবারও শীর্ষে উঠে আসবে বলে আমরা মনে করি।

সম্পূর্ণ বিনামূল্যের এই গেমটি অ্যাপল স্টোর, গুগল প্লে স্টোর ও অ্যামাজন স্টোর থেকে ডাউনলোড করা যাচ্ছে। গেমটি ডাউনলোড করতে www.riseuplabs.com সাইটটি ভিজিট করতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ