এগিয়ে আসুন। নিজেকে গড়ুন। আর্থিক ভাবে বলীয়ান হন।

0
452

“অনেকেই শুনি অনলাইনে নাকি টাকা উড়ে।
তো আমি কেন ধরতে পারিনা??”

এই কথা ভাবতে ভাবতে কম্পিউটারের টেবিলে বসে অনেকে মাথায় হাত রাখেন। আর চিন্তায় বিভোর হয়ে যায় এই মাসের নেটের বিলটা কিভাবে দিবো।

আরেক পার্টি আছে যারা গুগলে “money earning way” লিখে সার্চ দিতে দিতে কি-বোর্ডে ক্ষয় ধরিয়ে ফেলেন। আবার হটাত হটাত ক্লিক ক্লিক p.t.c পার্টির নাম ও শুনা যায়।

কিন্তু কথা হল, মিয়া ভাই, এভাবে আর কই দিন?? একটু আমাকে টাইম দিন। লিখা গুলো পরুন। যদি আমার লিখাতে কোন ভুল পান, তবে ওটা ধরিয়ে দিন।

আপনি কেনো অনলাইনে টাকার মুখ দেখতে পারতেসেন না জানেন?? না জানলে জেনে নিনঃ
১. কাজ শিখার চেয়ে উপার্জনের আগ্রহ বেশি থাকার কারনে।
২. শর্ট-কাট উপায়ে ভালো উপার্জন করার চিন্তায়।
৩. p.t.c রোগে আক্রান্ত হওার কারনে।
৪. হতাশা ও বিশ্বাসহীন অবস্থায় পড়ার কারনে।
৫. অজ্ঞতা হল উপার্জনের অন্তরায়।
৬. পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণের অভাবে ও অনেকে কিছু করতে পারছে না।

আপনি কি অনলাইনে টাকা উপার্জন করতে চান? তাহলে উপরের সব গুলো বিষয় হতে নিজেকে দূরে রাখতে হবে। সাথে সাথে নিজের ভেতর যে সব গুন আনতে হবে-
১. ধৈর্য
২. আত্মবিশ্বাস
৩. পরিশ্রম করার মানসিকতা।

এবার আসুন কাজের কথাতে। মনে করে নিলাম আপনি এখন উপরের কথা গুলো মাথায় নিলেন। এবং আপনি তৈরি। তৈরি মানে উপার্জনের জন্য তৈরি না। তৈরি মানে কাজ শিখার জন্য তৈরি। ভাই p.t.c করে আগে আপনি মাসে ২-৪$ পেতেন। কিন্তু আপনি কাজ পারলে আপনার প্রতি ঘণ্টার রেট ১০$ থেকে ৫০$ হতে পারে। তো ভাবুন আপনি কিভাবে এতো দিন নিজেকে ঠকাচ্ছিলেন। এখন নিজেকে তৈরি করুন। কষ্ট করুন। কাজ শিখুন। আর পর্যাপ্ত উপার্জন করুন।

এখন কথা হল কি কাজ শিখবেন??
ভাইজান কি কাজ শিখবেন ওটা বেক্তিভেদে আলাদা। মানে আমি বিভেদের কথা বলতেসি না। বলতেসি যে কাজে আপনার বেসিক আছে, এবং আগ্রহ ভালো, আপনার উচিৎ ওই কাজটাই পুরপুরি শিক্ষা। সেটা হতে পারে ওয়েব ডিসাইনিং, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিসাইনিং, আর্টিকেল রাইটিং অথবা এস.এই.ও। শুনুন অনলাইনে কোন কাজই মূল্যহীন না।

ওয়েব ডিসাইনিং ও ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে আপনাকে html, css, java script জানা থাকা লাগে। তবে এডভাঞ্চ ওয়েব ডেভেলপমেন্টের জন্য php নামের অন্য একটি ভাষা জানা থাকা দরকার। বর্তমানে ওয়েবের কাজের চাহিদা আকাশচুম্বী। elance, odesk, freelencer এ একজন ভালো ওয়েব ডেভেলপারের মূল্য ঘণ্টা প্রতি ১০$ হতে ৫০$ পর্যন্ত হতে পারে।

অন্যান্য কাজগুলোর চাহিদাও কম না। আর্টিকেল রাইটিং অথবা এস.এই.ও সম্পর্কে উপযুক্ত জ্ঞান থাকলে অনলাইন মার্কেট সেক্টর হতে এই কাজ গুলো করে প্রচুর উপার্জন করা যায়।

তো আমি এখানে শুধু ওয়েবের কাজ নিয়ে আলোচনা করলাম। এখন আসুন কাজগুলো কোথায় শিখবেন… কাজ শিখার জন্য ঢাকার কারওয়ান বাজারের বেসিস হল অনন্য। কিন্তু, এটা ছাড়াও বেশ কিছু ভালো প্রতিষ্ঠান ও ট্রেনিং দিয়ে থাকে। কিন্তু এসব যায়গা হতে শিখা একটু খরচ-বহুল। অনেকে এটা সামলেতে পারেনা। তাদের জন্য আছে বিভিন্ন অনলাইন টিউটোরিয়াল ও বিভিন্ন অনলাইন গ্রুপ/ফাউন্ডেশনের ফ্রী ক্লাস। সব কিছুর মুলে লাগবে আপনার আগ্রহ। আমাদের builders ফাউন্ডেশন হতেও এই রকম ফ্রী ট্রেনিং এর আয়োজন করা হয়। সে ব্যাপারে পরে জানবেন।

এই পর্যায়ে আমি ধরে নিলাম, আপনার কাজ শিখা শেষ। এবং আপনি এখন মাঠে নামার জন্য তৈরি। তো কাজ কোথায় পাবেন। চিন্তা করবেন না ভাই। freenlencer, odesk, elence, fiver সব যায়গা তে অ্যাকাউন্ট খুলে ফেলুন। ভালো করে প্রোফাইল, পোর্টফলিও বেপার গুলো সম্পন্ন করুন। যদি সমস্যায় পরেন, তাহলে অভিজ্ঞদের কাছে হেল্প নিন। বড় কোন সমস্যা হবে না আশা করি। এখন শুধু বিড করার পালা। এক বার না এক বার কাজ পাবেনই। প্রথম হতে একটু সাবধানে কাজ করবেন। যেন আপনার পোর্টফলিওতে আপনার কাজ সম্পর্কে কোন রকম বাজে ধারনা না আশে। কারন বায়ার চেহারা দেখে নয়, ভালো পোর্টফলিও দেখে আপনাকে কাজ দিবে। ঠিক মত কাজ করতে পারলে এবং আপনার পোর্টফলিও উন্নত হলে একটা সময় আসবে, যখন আপনি এতো কাজের অফার পাবেন, যেন বায়ার কে পরে না করে দিতে হতে পারে। ওই দিন পর্যন্ত পোঁছানোর জন্য মাত্র ৪-৫ মাসের জার্নিই যথেষ্ট।

এখন আসুন builders ফাউন্ডেশনের সম্পর্কে কিছু জানি। আমরা গত বেশ কিছু মাস ধরে খুব স্বল্প মুল্লে ওয়েবসাইট তৈরি করে আসছি। কিন্তু আমাদের পরিকল্পনার তালিকাতে নতুন যা যোগ করব টা হল “দেশব্যাপী ওয়েব ডিসাইনিং এর উপর হাতে-কলমে ফ্রী ট্রেনিং”। আমরা এখন থেকে দেখতে চাই আমাদের এই পরিকল্পনা সপক্ষে সাপোর্ট কেমন পাবো। তার উপর ভিত্তি করে পরবরতি পদক্ষেপ নিব। যদি খুব কম মানুষের আগ্রহ দেখি, তবে পরিকল্পনায় আমরা সময় না দিতে চাইবো। আমাদের ফেসবুক পেজ.. FACEBOOK

কিন্তু ভাই। কথা ঘুরে-ফিরে একটাই। কাজ না জানলে ভাত নাই। আর কাজ জানাটা ও অত কঠিন কিছু না।

ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ