নেটওয়ার্কিং এবং নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্টের টুল নিয়ে মেগা টিউন

0
480

নেটওয়ার্ক ম্যানেজারকে একসেট কৌশলী টুল রাখতে হয়, যা প্রতিদিনের কাজগুলো যেমন নেটওয়ার্ক মনিটরিং ও ম্যানেজমেন্ট, হার্ডওয়্যার ট্রাবলশূটিং ও ইনভেন্টরি ইত্যাদি পারফর্ম করতে পারে৷ এবার নেটওয়ার্ক বিভাগে এ ধরনের প্রয়োজনীয় কিছু টুল নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে৷

কিছু কিছু বিষয় রয়েছে, যেগুলো নেটওয়ার্ক ম্যানেজিংয়ের ক্ষেত্রে অবহেলা করা উচিত নয়৷ যেমন- সিকিউরিটি, সফটওয়্যার বা হার্ডওয়্যার ফেইল্যুর এবং ইনভেন্টরির পরিবর্তন৷ উপরোল্লিখিত বিষয়গুলো যথাযথভাবে ম্যানেজ করার জন্য দরকার একসেট টুল৷ ভালো মানের কার্যকর একসেট টুল দিয়ে নেটওয়ার্ক ম্যানেজার তার নেটওয়ার্ক সিস্টেমকে অত্যন্ত কার্যকর হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে পারেন৷ এসব টুল নেটওয়ার্ক ম্যানেজারকে বিভিন্ন ঝামেলা থেকে রক্ষা করতে পারবে৷ এই টুলগুলো যথাযথভাবে ব্যবহার করে নেটওয়ার্ক ম্যানেজার তাদের সিস্টেমের ব্যাপারে নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন৷

নেটওয়ার্ক মনিটরিং

অজানা কারণে হার্ডওয়্যার/সফটওয়্যার ফেইল্যুরের মুখোমুখি হবেন না, এমনটি নিশ্চিত হতে পারবেন নিয়মিতভাবে সেগুলো মনিটর করে এবং এর কার্যকারিতা স্থবির হবার আগে ত্রুটিপূর্ণ মেশিনারিগুলোকে সংশোধন বা প্রতিস্থাপন করার মাধ্যমে৷ এছাড়া আপনার নেটওয়ার্কের ব্যবহারকারী ও তাদের কার্যকলাপও ট্র্যাক করতে হবে৷ নিচে বর্ণিত টুল দুটি আপনাকে একাজে সহায়তা করতে পারবে৷

এনটপ :

ইন্টারনেট গেটওয়ের মাধ্যমে যে ডাটা প্রবাহ হয়, সেগুলো এই টুল ক্যাপচার করে এবং তা উপস্থাপন করে খুবই সমন্বিত গ্রাফ ও চার্টে৷ এনটপ টুল দিয়ে মনিটর করতে পারবেন সর্বমোট ব্যবহার হওয়া ব্যান্ডউইডথ, প্রোটকল লেভেল এবং ইউজার লেভেলে ব্যবহার হওয়া ব্যান্ডউইডথ৷ এনটপ ব্যবহার করা যেতে পারে উইন্ডোজ বা লিনআক্সে৷ তবে মনে রাখতে হবে, সবচেয়ে ভালো ফলাফল পেতে হলে গেটওয়েতে এনটপ ইনস্টল করতে হবে৷ গেটওয়ে যেই অপারেটিং সিস্টেমেই রান করুক না কেন এনটপ ভার্সন যেনো হয়, তা খেয়াল রাখতে হবে৷

নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্টের টুল নেটওয়ার্কিং এবং নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্টের টুল নিয়ে মেগা টিউন
চিত্র-১ : এনটপ নেটওয়ার্ক সিস্টেমের ডিটেইল ভিউ

এনটপের ইনস্টলেশন প্রক্রিয়াটি খুবই সহজ৷ উইন্ডোজ ভার্সনে ইনস্টলার রান করে কয়েকবার নেক্সট-এ ক্লিক করলেই হবে৷ সিস্টেম ইনস্টল হবার পরপরই ক্লক সিস্টেম বার-এর পাশে NTop xtra -এর আইকন দেখা যাবে৷ এই আইকনে ডবল ক্লিক করলে একটি উইন্ডো খুলবে৷

এবার Start NTop Service -এ ক্লিক করে এনটপ অপশন রান করুন৷ এর ফলে http://localhost:3000 অ্যাড্রেসসহ একটি আইই উইন্ডো ওপেন হবে৷ এটি হচ্ছে সেই লোকেশন যেখান থেকে ভবিষ্যতে এনটপ পেজে এক্সেস করা যাবে৷ এ সিস্টেমটি অত্যন্ত স্বব্যাখ্যামূলক এবং কোনোরকম ঝামেলা ছাড়াই ব্যবহার করা যাবে৷ এটি ফ্রি ডাউনলোড করা যাবে http://openextra.co.uk সাইট থেকে৷

ওপেনএনএমএস :

ওপেনএনএমএস হচ্ছে একটি ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, যা যেকোনো অপারেটিং সিস্টেমে রান করে৷ এটি জাভা ও টমক্যাট সাপোর্ট করে৷ এই সফটওয়্যারটি এসএনএমপি (SNMP) সার্ভিস জরিপ, ডাটা সংগ্রহ, বিজ্ঞপ্তি প্রদান এবং ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট করতে পারে৷

নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্টের টুল2 নেটওয়ার্কিং এবং নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্টের টুল নিয়ে মেগা টিউন
চিত্র-২ : ওপেনএনএমএস প্রদর্শিত সার্ভিসের স্ট্যাটাস

এই সফটওয়্যার ব্যবহার করে গুরুত্বপূর্ণ সার্ভার এবং স্বতন্ত্র সার্ভিসকে মনিটর করতে পারবেন যেগুলো এইচটিটিপি, এফটিপি, মাইএসকিউএলে রান করে৷

ওপেনএনএমএসের ইনস্টলেশন প্রক্রিয়া কিছুটা বিরক্তিকর এবং আপনাকে কয়েকটি কম্পোনেন্ট যেমন জাভা ও টমক্যাট কনফিগার করতে হবে কাজ করার জন্য৷ এটি ফ্রি ডাউনলোড করা যাবে http://openNMS.org সাইট থেকে৷

হার্ডওয়্যার ইনভেন্টরি

নেটওয়ার্ক মনিটরিং ছাড়া নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্ট টুলের পরবর্তী গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো আপনার মালিকানাধীন সম্পদকে মনিটর করা৷ যেকোনো প্রতিষ্ঠানের জন্য হার্ডওয়্যার/সফটওয়্যার এবং তাদের পরিবর্তনকে ট্র্যাক করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷ এর ফলে গুরুত্বপূর্ণ ডাটা অনাকাঙিক্ষত ব্যক্তিদের হাত থেকে রক্ষা পাবে, শুধু তাই নয় রিসোর্সের অপব্যবহারকেও দমন করা যাবে৷ এটি ত্রুটিপূর্ণ ইক্যুইপমেন্টকে ট্র্যাক করে এবং ক্ষেত্রবিশেষ সতর্কও করে ফেইল্যুরের আগে৷

নিচে বর্ণিত টুলগুলো দিয়ে এ কাজগুলো সহজেই করা যায় :

সিসএইড :

এটি একটি পরিপূর্ণ অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট এবং আইটি হেল্প ডেস্ক ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার৷ এই সফটওয়্যার ও সহযোগী এজেন্ট দিয়ে আপনার নেটওয়ার্কের সব রানিং মেশিনের হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার কম্পোনেন্টকে ট্র্যাক করা যাবে৷

নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্টের টুল3 নেটওয়ার্কিং এবং নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্টের টুল নিয়ে মেগা টিউন
চিত্র-৩ : সিসএইড দিয়ে এরর সাবমিট করা

এই অ্যাপ্লিকেশনের বাড়তি সুবিধা হলো এটিকে হেল্প ডেস্ক সিস্টেম হিসেবে ব্যবহার করা যায়৷ সিসএইড সফটওয়্যারের ইনস্টলেশন প্রক্রিয়া খুব সহজ এবং ব্যবহারকারীরা তাদের অভিযোগ সরাসরি একই এজেন্টে উইজার্ড ম্যানেজারে জানাতে পারেন৷ সিসএইড সার্ভারের ইনস্টলেশন প্রক্রিয়াটি খুব সহজ৷ এজন্য ইনস্টলার স্টার্ট করে উইজার্ড অনুসরণ করুন৷ এখানে আপনাকে একমাত্র ভ্যালু উইজার্ডে দিতে হবে৷ আর তা হচ্ছে মেইল সার্ভার এবং অ্যাড্রেস ও পোর্টে রিপ্লাই করতে হবে, যা সিসএইড পোর্টালে এক্সেসযোগ্য হবে৷

এজেন্ট ইনস্টলেশন প্রক্রিয়াও সহজ৷ এজন্য সার্ভার মেশিনে ম্যানুয়ালভাবে এজেন্ট সেটআপ ফাইল ইনস্টল করতে হবে৷ এখানে আপনার কাছে কেবল সার্ভারের আইপি অ্যাড্রেস এবং এজেন্ট ইনস্টলেশন ফাইলের সিরিয়াল নম্বর জানতে চাইবে৷ যদি আপনি ফ্রি ভার্সন সফটওয়্যার ব্যবহার করেন, তাহলে সিরিয়াল নম্বরও ফ্রি পাবেন৷ তবে এই সেটআপ শুধু ১০০ ব্যবহারকারীর জন্য প্রযোজ্য হবে বা তিন অ্যাডমিনিস্ট্রেটরের জন্য প্রযোজ্য৷ এটি ফ্রি ডাউনলোড করা যাবে http://ilient.com সাইট থেকে৷

আলকেমি আই :

এই অ্যাপ্লিকেশনটি সার্ভার ও হার্ডওয়্যার কম্পোনেন্টের পর্যাপ্ততার প্রতি লক্ষ রাখে৷ যদি কোনো কারণে ফেইল্যুর হয় বা হার্ডওয়্যার কম্পোনেন্টের পরিবর্তন করা হয়, তখন এটি তাত্ক্ষণিকভাবে ই-মেইলের মাধ্যমে অ্যাডমিনিস্ট্রেটরের কাছে সতর্ক বার্তা পাঠিয়ে বা এসএমএস করে৷

উইজার্ড অনুসরণ করে খুব সহজেই আলকেমি আই ইনস্টল করা যায়৷ ইনস্টলেশনের পর অ্যাপ্লিকেশন রান করুন৷ এজন্য ফাইল মেনুতে গিয়ে Scan Network অপশনে ক্লিক করুন৷ স্ক্যান নেটওয়ার্ক উইজার্ড আবির্ভূত হবার পর যে মেশিন শনাক্ত করতে চান তার আইপি রেঞ্জ দিন৷

আইপি রেঞ্জ দেয়ার পর সার্ভিস সিলেক্ট করুন, যার জন্য স্ক্যান করতে চান৷ Start বাটনে ক্লিক করে সার্চ প্রসেস শুরু করুন৷ নেটওয়ার্কে কয়টি মেশিন রয়েছে, তার ওপর ভিত্তি করে কিছু সময় লাগবে এর জন্য৷ স্ক্যান সম্পন্ন হবার পর নেটওয়ার্কের সব সচল মেশিনের লিস্ট প্রদর্শিত হবে৷ ওএসসহ রানিং সার্ভিসের লিস্টও প্রদর্শন করবে৷ এরপর কাঙিক্ষত সার্ভিসের জন্য মেশিনে নজরদারিও সেট করতে পারেন৷ ICMP-ping বাইডিফল্ট সব মেশিনের জন্য এনাবল থাকে৷ এ কাজটি সম্পন্ন করার পর ওকে করলে মেইন উইন্ডো আবির্ভূত হবে৷ এর ফলে মেইন উইন্ডো থেকে মেশিনের স্ট্যাটাস দেখতে পারবেন এবং লক্ষ রাখতে পারবেন সার্ভিসের প্রতি৷ ওয়েবসাইট : http:/ www.alchemy-lab.com/products/eye ৷

নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্ট

মনিটরিং গুরুত্বপূর্ণ, তবে তথ্য মনিটরিংয়ের পর কি করবেন বা যদি কোনো এরর থাকে তাহলে কী কী উচিত, এ বিষয়টি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ৷ সুতরাং পরবর্তী ধাপটি হচ্ছে এসব তথ্যকে ভালোভাবে ম্যানেজ করা এবং ত্রুটিপূর্ণ ডিভাইসকে ম্যানেজ করা৷

নিচে বর্ণিত সফটওয়্যারটি এব্যাপারে সহায়তা করতে পারে :

ল্যান সার্ভেয়র :

এটি আপনার নেটওয়ার্ক ম্যাপিংয়ের জন্য একটি চমত্কার ফিচারসমৃদ্ধ অ্যাপ্লিকেশন৷ এর ৩০ দিনের ট্রায়াল ভার্সন ফ্রি পাওয়া যাবে http://neon.com সাইট থেকে৷

নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্টের টুল4 নেটওয়ার্কিং এবং নেটওয়ার্ক ম্যানেজমেন্টের টুল নিয়ে মেগা টিউন
চিত্র-৪ : ল্যান সার্ভেয়রে তৈরি করা নেটওয়ার্ক ম্যাপ

এর ইনস্টলেশন প্রক্রিয়াটি খুব সহজ৷ উইজার্ড অনুসরণ করে কয়েক মিনিটের মধ্যেই ইনস্টল করতে পারবেন৷ ইনস্টলেশনের পর এটি একটি উইজার্ড স্টার্ট করবে৷

এখানে আপনাকে নেটওয়ার্ক সাবনেটের বিস্তারিত তথ্য দিতে হবে৷ উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, আপনি ক্লাস C নেটওয়ার্ক 192.168.0.X ব্যবহার করছেন৷ সুতরাং আপনি 192.168.0.1 থেকে 192.168.0.254-এর মধ্যে সব মেশিনে সার্চ করতে চাইতে পারেন৷ সিস্টেমে এই ভ্যালু প্রদান করুন এবং LANSurveyor -এ আপনার কাঙিক্ষত নম্বরটি উল্লেখ করুন যেটি আপনি সার্চ করতে চাচ্ছেন৷
এই পেজের নিচে উল্লেখ করতে পারেন, আপনার নেটওয়ার্কের কোন ধরনের নোড খুঁজে পেতে চান৷ যেমন ICPM রেসপন নোড, নেটবায়োস ক্লায়েন্ট, SIP ক্লায়েন্ট ইত্যাদি৷

এরপর Ok -তে ক্লিক করলে সার্চ প্রসেস শুরু হবে৷ নেটওয়ার্কের সাইজের ওপর নির্ভর করে এবং সাবনেট ক্লাসের ওপর ভিত্তি করে সার্চ কার্যক্রম শুরু হবে, যা কয়েক মিনিট থেকে শুরু করে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সম্পন্ন হবে৷ সার্চ সম্পন্ন হলে এটি লিঙ্ক কানেকশনসহ আপনার নেটওয়ার্কের ম্যাপসহ উপস্থিত হবে৷ এই ম্যাপে সিলেক্ট করতে পারবেন এবং যেকোনো মেশিনের ত্রুটির জন্য বা লিঙ্ক রেসপন্সের জন্য সতর্কতা সৃষ্টি করতে পারবেন৷ এমনকি নিয়ন এজেন্টকে তাদের ওয়েবসাইট থেকে কিনতে বা ডাউনলোড করতে পারবেন৷

একটি উত্তর ত্যাগ