CV তৈরি করার সময় অতি গুরুত্যপূর্ণ কিছু বিষয়

0
347

অনেক পরিশ্রম করে আপনি একটা দারুণ বায়োডাটা তৈরি করলেন। ধরুন তাতে সংযোজন করলেন সবচেয়ে ভালো একটা কভার লেটার। আপনাকে চাকরির ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাকল। এরপর ইন্টারভিউয়ের জন্য সব প্রস্তুতি নেয়ার পরও সামান্য ব্যাপারে আপনার চাকরি না হোক, তা কি আপনি কখনো চাইবেন? এ ঝামেলা থেকে এড়াতে নিচের তিনটা পরামর্শ সব ইন্টারভিউয়ের সময় মনে রাখতে হবে।


১. মাথা থেকে পা পর্যন্ত সাদৃশ্য : এর আগেই আপনি জেনেছেন ইন্টারভিউতে কী ধরনের পোশাক পরা উচিত। সে অনুযায়ী আপনি পোশাক পরে গেলেন। কিন্তু তাতে সামান্য একটু খুঁত রাখলেন। আপনি যখন ইন্টারভিউয়ের জন্য প্রস্তুত হচ্ছেন, তখন নিজের দিকে ভালোভাবে আরেকবার তাকান। যদি মনে হয়, দাঁড়িটা সেভ করা দরকার, নখের পরিচর্যা করা দরকার, কিংবা চিপটা ঠিক করা দরকার, করে ফেলুন। কাপড়ে বা টাইতে লাগা একফোঁটা ঝোলের দাগ বা জুতায় লাগা সামান্য ময়লা পরিষ্কার করে ফেলুন। এ ধরনের সামান্য খুঁতও অনেক সময় নিয়োগকর্তার মনযোগ সরিয়ে দেয়। এতে তারা আপনাকে অপেশাদার মনে করতে পারে। তাই ইন্টারভিউতে রওনা দেয়ার আগে আয়নায় নিজের পা থেকে মাথা পর্যন্ত আরেকবার দেখে নিন।

২. বন্ধ করুন আমতা-আমতা করা : আমরা অনেকেই কথা বলার সময় আমতা আমতা করি। অনেকে নিজের অজান্তেই তা করি। তবে ইন্টারভিউয়ের সময় এটা করা নিঃসন্দেহে আপনার জন্য ক্ষতিকর হবে। এতে চাকরিদাতারা ইন্টারভিউয়ে আপনার প্রস্তুতি নেই বলেই মনে করবে। আমতা আমতা বন্ধ করার প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে বুঝতে হবে, কেন তা আপনার মুখে আসছে। এ জন্য ইন্টারভিউয়ের আগেই এ বিষয়টি খেয়াল করতে হবে। আপনি কতবার তা উচ্চারণ করেন এবং তাতে কী হয় তা বুঝে নিন। সাধারণত মানুষ এ কথা বলে, যখন তারা নিরবতা ভাঙতে চায়। বিশেষ করে কথা বলার সময় সঠিক কোনো শব্দ খুঁজতে এটা অনেকেই ব্যবহার করেন। এর আরেকটা সমাধান হতে পারে, নীরবতা অবলম্বন। আপনি যদি কোনো শব্দ খুঁজে বের করতে চান, তাহলে নীরব থাকুন। অথবা আমতা-আমতা না করে বলুন, ‘একটু পরে বলছি’ অথবা ‘আমাকে একটু চিন্তা করতে দিন।’

৩. সঠিক সরঞ্জাম সঙ্গে রাখুন : ইন্টারভিউয়ের মাঝপথে আপনি নিশ্চয়ই কোনো ইন্টারভিউয়ারের কাছ থেকে কাগজ-কলম ধার নেবেন না। অনেক সময় প্রশ্নকারীর একাধিক প্রশ্ন থাকে। সে সময় মনে রাখার সুবিধার্থে পরের প্রশ্ন নোট করে রাখা যেতে পারে। ইন্টারভিউয়ের সময় কাগজ কলম সঙ্গে রাখা ও প্রয়োজনে নোট করা আপনার নিষ্ঠার একটি ভালো প্রমাণ হতে পারে। এতে আপনার পেশাদারি আচরণ প্রকাশ পাবে। ইন্টারভিউয়ের শেষে কোনো প্রশ্ন করার সময়েও তা কাজে লাগবে। এ জন্য আপনার খুব দামি কোনো কলমের দরকার নেই। শুধু কোনো ব্র্যান্ডের ছাপ ছাড়া একটা মানসম্পন্ন কলম, প্যাড বা ডায়েরি এ কাজে লাগতে পারে। –

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

9 − 3 =