ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলিতে যে কাজের চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে

0
567

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলিতে অনেক ধরনের কাজ রয়েছে। সময়ের পরিক্রমায় কিছু কাজের চাহিদা বৃদ্ধি পায় আবার কিছু কমে যায়। তাই ফ্রিল্যান্সিংয়ে ক্যারিয়ার গড়তে হলে কাজের ট্রেন্ড দেখে সিদ্ধান্ত নিতে হবে কোন কাজের চাহিদা ভবিষ্যতে আরও বৃদ্ধি পাবে। এরপর আপনাকে সেই নির্দিষ্ট কাজটি ভালভাবে শিখতে হবে এবং সেটিকে ভিত্তি করেই ক্যারিয়ার গড়তে হবে। আমরা বর্তমান ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে বিদ্যমান কাজগুলির উপর একটি পর্যালোচনা করেছি যেটি আপনাকে কাজের ট্রেন্ড সম্পর্কে বুঝতে সহায়তা করবে। এখানে বিভিন্ন ক্যাটাগরীতে গতবছরের তৃতীয় প্রান্তিকের কাজের পরিমান বিবেচনা করে বিশ্লেষণ করা হয়েছে। আশা করি নিচের এ বিশ্লেষণধর্মী আলোচনাটি পড়লে আপনি বুঝতে পারবেন কোন কাজটির চাহিদা আগামী দিনগুলিতে আরো বৃদ্ধি পাবে এবং যেটি আপনাকে একটি সঠিক কাজের সেক্টর বেছে নিতে সহায়তা করবে।

১. Web design & development

অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে অর্থ উপার্জনের যতগুলি উপায় রয়েছ তন্মধ্যে Web design & development নিঃসন্দেহে সেরা। বর্তমানে ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট উভয় সেক্টরেই প্রচুর পরিমাণ কাজ পাওয়া যায়। ওয়েব ডেভেলপমেন্টের ক্ষেত্রে সাইটের ধরণ অনুযায়ী কোডিং করতে হয়। যেমন স্ট্যাটিক ওয়েবসাইটের জন্য html, css ব্যবহার করা হয়। অপরদিকে ডায়নামিক ওয়েবসাইট তৈরীর জন্য PHP, ASP, Python, Ruby ইত্যাদি এবং সেই সাথে ডাটাবেজ হিসাবে MySQL, MS SQL, Oracle প্রভৃতি ব্যবহার করা হয়। সুতরাং কোডিংয়ের কাজ ছাড়াও ডাটাবেজের ও অসংখ্য কাজ পাওয়া যায়। এগুলি ছাড়াও ই-কমার্স, ওয়েব প্রোগ্রামিং, বাগ ফিক্সিং প্রভৃতি কাজ পাওয়া যায়। একটি সমীক্ষা অনুযায়ী বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে ৩০৩৮ টি কাজের হিসাবে html 5 এর কাজ বৃদ্ধি পেয়েছে ৪৪ শতাংশ, জেন্ড-পিএইচপির ৩৫০৬১ টি কাজের হিসাবে এটির কাজ বৃদ্ধির হার ১৯ শতাংশ। এছাড়া সিএসএস এবং জেকোয়েরী এর কাজ বৃদ্ধির হার যথাক্রমে ১৯ শতাংশ এবং ৩২ শতাংশ। উভয়ের কাজের পরিমাণ যথাক্রমে ৭০৯৯ এবং ২৯৭২। সুতরাং যে কেউ Web design & development নির্দ্বিধায় ক্যারিয়ার হিসাবে গ্রহন করতে পারে।

২. WordPress & Joomla

বর্তমান বিশ্বে ওয়েবসাইট তৈরীর জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় দুটি CMS হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস এবং জুমলা। আমরা যদি বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলিতে ওয়ার্ডপ্রেস এবং জুমলার কাজের পরিমাণ লক্ষ্য করি তাহলে দেখতে পাবো প্রতিনিয়ত এ দুটিতে ক্যাটাগরীতে কাজের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। একটি সমীক্ষা অনুযায়ী বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে ওয়ার্ডপ্রেসের কাজ বেড়েছে ২৭ শতাংশ (৭৭0৩টি কাজের হিসাবে)  অপরদিকে জুমলার কাজের পরিমাণ বেড়েছে ১৪ শতাংশ(৩১১৯টি কাজের হিসাবে) ওয়ার্ডপ্রেস এবং জুমলার কাজের পরিমাণ যেমন বেশি তেমনি এ কাজের পারিশ্রমিকও বেশি। ফ্রিল্যান্সিংয়ের যে কয়েকটি সেক্টরে কাজ করে তুলনামূলকভাবে দ্রুত নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা যায় তন্মধ্যে এ দুটি সেক্টর অন্যতম। তাছাড়া এ সব সেক্টরে কাজ পেতেও অন্যান্য সেক্টরের তুলনায় কম প্রতিদ্বন্দিতার সম্মুক্ষীন হতে হয়। তবে অন্যান্য যে কোন কাজের ন্যায় এখানেও আপনাকে সফল হতে হলে প্রফেশনাল মানের কাজ করতে হবে এবং ধৈর্যশীল হতে হবে।

৩. আ্যন্ড্রয়েড এপ্লিকেশন

বর্তমান ফ্রিল্যান্সিং জগতে অন্যতম সম্ভাবনাময় সেক্টর আ্যন্ড্রয়েড এপ্লিকেশন। যতই দিন এগিয়ে যাচ্ছে ততই বেড়ে চলছে আ্যন্ড্রয়েড এপ্লিকেশনের কাজের সংখ্যা। এটি নিশ্চিতভাবেই বলা যায় অদুর ভবিষ্যতে আ্যন্ড্রয়েড এপ্লিকেশন ডেভেলপারদের চাহিদা হবে গগনচুম্বী। কারণ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে মোবাইল ডিভাইস ও স্মার্টফোনের বাজার। তাই মোবাইল ডিভাইস বা স্মার্টফোনের এপ্লিকেশনের চাহিদাও বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে প্রতিনিয়ত ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটগুলোতে আ্যন্ড্রয়েড এপ্লিকেশনের কাজ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে আ্যন্ড্রয়েড এপ্লিকেশনে কাজের পরিমাণ ৮ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমান ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে প্রায় ৫ হাজার ৫০৯ টি আ্যন্ড্রয়েড এপ্লিকেশনের কাজ রয়েছে। আর প্রতিনিয়ত বেড়েই চলছে কাজের সংখ্যা।

৪. SEO

সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনকে (SEO) ক্যারিয়ার হিসাবে বেছে নিয়ে আমাদের দেশেই অনেকে আজ সুপ্রতিষ্ঠিত। সুতরাং এসইও যে ক্যারিয়ার গড়ে তোলার ভাল একটি সেক্টর হতে পারে সেটি আজ প্রমাণিত। প্রতিদিন অসংখ্য এসইও’র কাজ ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলিতে জমা হচ্ছে। এসইও’র চাহিদা সবসময়ই থাকবে। কারণ যেকোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা অন্যান্য ওয়েবসাইট কতৃপক্ষ সব সময়ই চাইবে তাদের ওযেবসাইটকে প্রমোট করতে যেন এটি সার্চ ইন্জিনে উপরের দিকে থাকে। আর সাইট প্রমোট করতে হলে অবশ্যই সাইটের জন্য এসইও করাতে হবে। একটি সমীক্ষা থেকে দেখা যায় ১০৫০৯ টি কাজের হিসাবে সার্চ ইন্জিন অপটিমাইজেশনের কাজের পরিমান বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ১২ শতাংশ। সুতরাং যারা এসইও’র কাজ করছেন তাদের হতাশ হওয়ার কিছু নেই বরং, ধৈর্য সহকারে কাজ চালিয়ে যেতে হবে। তবে এ সেক্টরে সফলতা পাবার জন্য কাজের কোয়ালিটি অবশ্যই ভালো হতে হবে। নতুনদের ক্ষেত্রে, একবার একটি কাজ পেয়ে গেলে এবং সেটি প্রফেশনাল লেভেল মেইনটেইন করে ভালভাবে করে দিতে পারলে পরবর্তীতে তার কাজ পেতে সমস্যা হয় না।
৫. গ্রাফিক ডিজাইন
গ্রাফিক ডিজাইন এমনি একটি ক্ষেত্র, যার চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলছে। একজন প্রফেশনাল ডিজাইনার এ খাত থেকে আয় করতে পারে মাসে হাজার ডলারেরও উপরে।

৬. Data entry, Email marketing & proofreading

নতুন ফ্রিল্যান্সারদের জন্য Data entry, Email marketing & proofreading হতে পারে উপযুক্ত কাজ। এ কাজগুলি করতে কম্পিউটার সর্ম্পকে মোটামুটি ধারণা থাকলেই চলে। ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলিতে বর্তমানে প্রচুর ডাটা এন্ট্রির কাজ পাওয়া যায়। আমাদের দেশে এমন অনেকেই রয়েছেন যারা ডাটা এন্ট্রির কাজ করে নিজেকে স্বাবলম্বী করেছেন। গত বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে ডাটা এন্ট্রির কাজ বৃদ্ধি পেয়েছে ১৪১ শতাংশ(৬৯৩২ টি কাজের হিসাবে) । এছাড়াও Email marketing এর কাজ করেও বেশ ভালো পরিমান অর্থ উপার্জন করতে পারেন। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলিতে অনেক proofreading এর কাজও পাওয়া যায়। এখানে কোন বিষয়ের উপর লেখা, অনুবাদ ইত্যাদি করতে হয়। ২০১২ সালের তৃতীয় প্রান্তিক কাজ বৃদ্ধির হার ২৬ শতাংশ (১৭৩০ টি কাজের হিসাবে) সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলিতে এ ধরনের কাজের সংখ্যা বেড়েই চলছে। এখন শুধু আমাদের প্রয়োজন একাগ্রতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যাওয়া। তবেই সফলতা ধরা দেবে আমাদের কাজে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

thirteen + thirteen =