কিভাবে কানাডার ‘ফেডারেল স্কিলড ওয়ার্কার’ ভিসার জন্য আবেদন করবেন? তার বিস্তারিত ভিডিও টিউটোরিয়াল সহ।

0
746

Canada-jete-hole কিভাবে কানাডার ‘ফেডারেল স্কিলড ওয়ার্কার’ ভিসার জন্য আবেদন করবেন? তার বিস্তারিত ভিডিও টিউটোরিয়াল সহ।পরম করুনাময় আল্লাহর নামে শুরু করছি। আসসালামু আলাইকুম। প্রিয় সম্মানিত পাঠক বৃন্দ আশা করি মহান সৃষ্টি কর্তার অশেষ রহমতে আপনারা সবাই ভালোই আছেন।আজ আমরা আপনাদের মাঝে কানাডার ‘ফেডারেল স্কিলড ওয়ার্কার’ ভিসার জন্য কিভাবে আবেদন করবেন? তার সম্পর্কে কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো। যাতে করে কানাডার ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া নিয়ে আপনাদের মনের সকল প্রশ্নের উত্তর খুঁজে নিতে পারেন।তাহলে বন্ধুরা আর কথা না বাড়িয়ে আসুল কাজের কথায়।

কানাডা সরকারের ‘ফেডারেল স্কিলড ওয়ার্কার’ কর্মসূচির সংশোধিত পদ্ধতিতে আবেদনপত্র গ্রহণ শুরু হয়েছে মে ২০১৪ থেকে। ৫০ ধরনের পেশাজীবী এই ভিসার জন্যে আবেদন করতে পারবেন (৫০টি ক্যাটাগরিতে স্কিল্ড ওয়ার্কার নেওয়া হবে) মোট লোক নেওয়া হবে ২৫ হাজার।
এ সুযোগ প্রদানের ফলে দ্বার খুলছে ইমিগ্রেশন প্রত্যাশীদের। সিলেকশন ক্রাইটেরিয়া আগের মতোই রয়েছে। পয়েন্ট সিস্টেমও আগের মতোই। সর্বনিম্ন ৬৭ পয়েন্ট অর্জন করতে হবে একাডেমিক অর্জন, অভিজ্ঞতা, বয়স, ইংলিশ ও ফরাসি ভাষায় দক্ষতা, জব অফার এবং এডাপটিবিলিটি (কানাডায় বসবাসকারী ফার্স্ট ব্লাড কিংবা জব অফার) থেকে।ন্যূনতম স্নাতক, সে সাথে বেশ কিছু কাজের অভিজ্ঞতা এবং আইইএলটিএস স্কোর ভালো করলে ফেডারেল স্কিলড ভিসা পাওয়া খুব সহজ হয়ে গিয়েছে। আগে যেখানে ১-২ বছর লেগে যেত ভিসা পেতে, এখন সেখানে ৬-৯ মাসের মধ্যে ভিসা পেয়ে যাচ্ছে।

কাজেই আপনি কি এর জন্য আবেদন করতে পারবেন কিনা? বা ৫০টি ক্যাটাগরি আসলে কি কি? এবং সর্বনিম্ন ৬৭ পয়েন্ট অর্জন করার জন্য কি কি প্রয়োজন ইত্যাদি জানার জন্য এখানে ক্লিক করে সবার আগে আমাদের ব্লগে পূর্বে প্রকাশিত সেই লেখাগুলো অবশ্যই পড়ে আসুন।

ওকে আসা করি উপরের লিঙ্ক থেকে আপনারা বিস্তারিত সব তথ্য জেনে নিয়েছেন। এবার আসুন কিভাবে আপনি এর জন্য আবেদন করবেন?

বিষয়টি অনেক সহজ ‘ফেডারেল স্কিলড ওয়ার্কার’ সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা হয়ে যাওয়ার পর আপনি যদি মনে করেন আপনার সেই যোগ্যতা রয়েছে এবং আপনি এই ভিসার আবেদনের জন্য তৈরি। তাহলে ‘মাত্র তিনটি’ ধাপেই আপনি এর আবেদন করে আপনার ভাগ্যের চাকা পরিবর্তন করতে পারেবন।

1. Get the application package

2. Pay application fees

3. Submit your completed application

ধাপ-১

Get the application package: সবার প্রথমে আপনাকে ভিসার এপ্লিকেশন ফর্মটি কানাডার অফিসিয়াল ‘ফেডারেল স্কিলড ওয়ার্কার’ ভিসা সংক্রান্ত ওয়েব সাইট থেকে ডাউনলোড করে নিতে হবে।( উল্লেখ্য অনলাইনে এরকম অনেক ভুয়া ওয়েব সাইট ও এজেন্সি রয়েছে) কাজেই ওদের কাছ থেকে সাবধান। আপনাকে অবশ্যই কানাডার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ফর্মটি সংগ্রহ করতে হবে।

ফর্ম সংগ্রহ করার পর আপনার কম্পিউটার দিয়ে অথবা কোন ইন্টারনেট ক্যাফে থেকে ফর্মটি খুব সুন্দর ও নিখুত ভাবে পূরণ করুণ। পূরণ করার পর সেখানে Validate  নামক একটি বাটন রয়েছে। সেই বাটনে ক্লিক করে দেখে নিন আপনার সব ধরেনের তথ্য তথা প্রয়োজনীয় ঘর গুলো পূরণ করেছেন কিনা? যদি ভুল হয়ে থাকে বা ভুলবশত কোন ঘর পূরণ করতে ভুলে গিয়ে থাকেন। তাহলে Validate  নামক বাটনটি ক্লিক করার সাথে সাথে ঐ ফর্ম এর যে যে ঘর বাকি রয়েছে, সেখানে লাল রঙ্গ দিয়ে মার্ক করে আপনাকে ধরিয়ে দেওয়া হবে। একবার সম্পূর্ণ ফর্ম টি সঠিক ভাবে পূরণ করা হয়ে গেলে এবং ভ্যালিডেট করা হয়ে গেলে আপনাকে সেই ফর্মটি প্রিন্ট করে তার একটি কপি সংরক্ষণ করতে হবে।এবং প্রিন্ট করা সেই ফর্মটিতে যেভাবে বলা হয়েছে সেভাবে নির্দিষ্ট স্থানে আপনার স্বাক্ষর করতে হবে। এবং সবশেষে আপনার আবেদন করার সময় সেই ফর্মটি অন্যান্য কাগজ পত্রের সাথে ওদের কাছে পাঠিয়ে দিতে হবে। আমরা এই লেখার উপর ভিত্তি করে এর সম্পর্কে একটি ভিডিও টিউটোরিয়াল বানিয়েছি ( যেটি আমাদের ব্লগে রয়েছে। আপনি চাইলেএখানে ক্লিক করে সরাসরি আমাদের ব্লগ থেকে সেই ভিডিওটি দেখে আসতে পারেন) যাতে করে আপনারা বিষয়টি আরও সহজ ভাবে বুঝতে পারেন। কাজেই লেখা শেষে অবশ্যই সেই ভিডিওটি ভালো করে লক্ষ্য করুণ।

ধাপ-২

Pay application fees:  এবার আপনাকে ভিসার আবেদন করার জন্য নির্দিষ্ট ফি জমা দিতে হবে। এবং এর জন্য একটি ফর্ম রয়েছে, সেটাও অনলাইন থেকে ডাউনলোড করে নিতে হবে এবং ধাপ-১ এর মতো করে এটাও পূরণ করতে হবে। তবে এখানে একটি কথা জেনে রাখা ভালো। যারাই এই ‘ফেডারেল স্কিলড ওয়ার্কার’ ভিসা আবেদনের জন্য নির্দিষ্ট ফি জমা দিবেন তারা কিন্তু পরে তাদের আবেদন মঞ্জুর না হলে টাকা পুনরায় ফেরত পেয়ে যাবেন। এবং এর জন্য আপনাকে কিছুই করতে হবে না। কানাডার ভিসা সিস্টেম অনুযায়ী যাদের আবেদন মঞ্জুর হবে না তাদের টাকা অটোমেটিক তাদের জমাকৃত বাংকে চলে আসবে একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে। কাজেই এই বিষয় নিয়ে আপনাদের চিন্তা করার কোন প্রয়োজন নেই। তবে টাকা জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে আপনার জন্য ভালো হবে (এডি/AD শাখাঃ AUTHORIZED DEALER. বৈদেশিক বাণিজ্যিক শাখা, যেসব শাখায় আমদানি-রপ্তানী হয়ে থাকে এবং ডলার বিক্রয় হয়) ইত্যাদি ব্যাংক গুলোর মাধ্যমে ফি জমা দেওয়া। আর এই ভিসার আবেদনের জন্য জন প্রতি আপনার পরিবারের সদস্যের উপর ভিত্তি করে ফি জমা করতে হবে।

  • যেমন শুধু আপনার জন্য এর ফি কানাডিয়ান ডলারে  550$
  • আপনার স্ত্রীর জন্যও এর ফি কানাডিয়ান ডলারে  550$
  • আবার আপনার ১৯ বছর ও এর উপরে বিবাহিত অথবা অবিবাহিত সন্তান দের জন্য এর ফি কানাডিয়ান ডলারে  150$ জন প্রতি।
  • আপনার ২২ বছর ও এর উপরে বিবাহিত অথবা অবিবাহিত সন্তান দের জন্য এর ফি কানাডিয়ান ডলারে 550$  জন প্রতি।

এটা হল আপনার ভিসার জন্য আবেদন ফি।

(এছাড়াও আপনাকে ভিসা পাওয়ার পর আরও কিছু অনুসাঙ্গিক ফি পরিশোধ করতে হতে পারে যেমন। medical exam এর সময়, police certificate যদি প্রয়োজন হয়, an educational credential assessment (ECA), language testing সংক্রান্ত খরচ এবং services at a Visa Application Centre যদি প্রয়োজন হয়। আসলে এগুলো পরের বিষয় তাই আপাদত এগুলো নিয়ে আমাদের চিন্তা করার দরকার নেই।) কাজেই আপনাকে দ্বিতীয় ধাপে ফি পেমেন্ট করার ফর্মটি ভালো করে পূরণ করে সেটার একটি কপি প্রিন্ট করে আপনার কাছে সংরক্ষণ করতে হবে এবং আবেদনের সময় সেটা সহ পাঠিয়ে দিতে হবে এবং আপনি যে মাধ্যম ব্যবহার করে ফি জমা করেছেন তার সেই রিসিত এর একটি ফটোকপি সাথে দিয়ে দিতে হবে। উল্লেখ্য কানাডার ‘ফেডারেল স্কিলড ওয়ার্কার’ ভিসা আবেদনের ক্ষেত্রে ক্রেডিট/ডেবিট তথা অনলাইন পেমেন্ট গ্রহণ করে না। কাজেই আপনাকে শুধু মাত্র pay by certified cheque, bank draft  অথবা money order এর মাদ্ধমেই ফি জমা করতে হবে।

ধাপ-৩

Submit your completed application: উপরের ধাপ গুলো সম্পূর্ণ করার পর আপনাকে সবগুলো ফর্ম ও আপনার সম্পর্কে বিস্তারিত ডকুমেন্টস ইত্যাদি সব কাগজপত্র এক  সাথে করে নিন্মের ঠিকানায় পোস্ট এর মাধ্যমে পাঠিয়ে দিতে হবে।

Centralized Intake Office – Federal Skilled Worker (FSW)
P.O. BOX 7500
Sydney, NS  B1P 0A9
Canada

বন্ধুরা আসা করি আপনাদের বুঝাতে পেরেছি। এবার ভালো করে ভিডিওটি লক্ষ্য করুণ। আর ভিডিওটি দেখার জন্য এই লেখাটি পূর্বে প্রকাশিত আমাদের সাইটে গিয়ে দেখে নিতে পারেন এখানে ক্লিক করে।

একটি উত্তর ত্যাগ