আন্তর্জাতিক টেলি কমিউনিকেশন সংস্থার (আইটিইউ) নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছে বাংলাদেশ

0
321

আন্তর্জাতিক টেলি কমিউনিকেশন সংস্থার (আইটিইউ) নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে কাউন্সিল সদস্য নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সোমবার এ খবর জানিয়ে বলেন, “আমরা এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে আইটিইউর কাউন্সিল সদস্য নির্বাচিত হয়েছি।”

সোমবার দক্ষিণ কোরিয়ার বুসানে আইটিইউ এর বার্ষিক সম্মেলনে এই ভোটাভুটি হয়। নির্বাচনে ১৬৭ ভোটের মধ্যে বাংলাদেশ পায় ১১৫ ভোট।

এ অঞ্চল থেকে চার বছরের জন্য নির্বাচিত ১৩ কাউন্সিল সদস্যের মধ্যে ভোটের দিক দিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান সপ্তম।

সম্মেলন উপলক্ষে বুসানে অবস্থানরত  তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক টেলিফোনে বলেন, “এই জয়ের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশের ভিশন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে চূড়ান্ত স্বীকৃতি পেল। আন্তর্জাতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ আরো একটি সংস্থায় আমরা আমাদের অবস্থান করে নিতে পারলাম।”

কাউন্সিল সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় এ অঞ্চলে আইটিইউর নীতিনির্ধারণসহ বিভিন্ন বিষয়ে বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে বলেও উল্লেখ করেন পলক।

এর আগে গত ২৩ অক্টোবর আইটিইউ এর সভায় বাংলাদেশের পক্ষে ভোট চেয়ে পলক বলেন, “টেলিকম  ও প্রযুক্তি খাতের অভিজ্ঞতা ও অর্জন সমূহ আমরা বিশ্বব্যাপী ভাগাভাগি করার মাধ্যমে একটি প্রযুক্তিময় বিশ্ব গড়তে চাই।”

বাংলাদেশের ভবিষ্যত কর্মপন্থা হিসেবে ২০১৮ সালের মধ্যে দেশের ৩৫ শতাংশ জনগণকে ব্রডব্যান্ড ও ৭০ শতাংশ জনগণকে ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় নিয়ে আসার পরিকল্পনার কথাও সভায় তুলে ধরেন তিনি।

তিনি জানান, বর্তমানে বাংলাদেশের ৯৮ শতাংশ ভূখণ্ড ও ৯৯ শতাংশ জনগণ টেলিকম নেটওয়ার্কের আওতাভুক্ত। এ দেশে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১১.৬ কোটি; ইন্টারনেট ব্যবহার করেন চার কোটি মানুষ।

জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেওয়ার এই চেষ্টার স্বীকৃতি হিসাবে আইটিইউ  থেকে উইসিস (ডব্লিউএসআইএস) অ্যাওয়ার্ড এবং উইটসা (ডব্লিউআইটিএসএ) অ্যাওয়ার্ড পাওয়ার কথাও তিনি সভায় তুলে ধরেন।

এর আগে ২০১০ সালের নভেম্বরে প্রথমবারের মতো আইটিইউর কাউন্সিল সদস্য নির্বাচিত হয় বাংলাদেশ। তারও আগে ১৯৭৩ সালে পায় সাধারণ সদস্যপদ।

ভিডিও – https://www.youtube.com/watch?v=EwrhDMdXZWw

একটি উত্তর ত্যাগ