কিছু টিপস মনে রাখলেই আপনি দীর্ঘ সময় ল্যাপটপের চার্জ ধরে রাখতে পারবেন

    0
    548

    ল্যাপটপ বহনযোগ্য কম্পিউটার হওয়ার কারণে আউটডোরে এর ব্যবহার ব্যাপক। কিন্তু এ ডিভাইসটি নিয়ে সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো ব্যাটারি চার্জ বেশিক্ষণ থাকে না। বাইরে প্রয়োজনীয় কাজটি তাড়াহুড়ো করে করতে হয়। তারপরও হুট করে চার্জ শেষ হয়ে গেলে আপনি পঙ্গু।

    ল্যাপটপের চার্জ কিছু টিপস মনে রাখলেই আপনি দীর্ঘ সময় ল্যাপটপের চার্জ ধরে রাখতে পারবেন

    তাই জেনে নিন কীভাবে আপনার ল্যাপটপের ব্যাটারি চার্জ দীর্ঘস্থায়ী করতে পারেন। কিছু টিপস মনে রাখলেই আপনি দীর্ঘ সময় চার্জ ধরে রাখতে পারবেন।

    ১. ল্যাপটপের স্ক্রিন কিন্তু অনেক বেশি চার্জ খরচ করে। তাই যতোটা সম্ভব ব্রাইটনেস কমিয়ে ব্যবহার করুন। কিবোর্ডে ব্যাকলাইট থাকলে সেটিও সেটিংস থেকে বন্ধ করে দিন।

    ২. ল্যাপটপের ইউএসবি পোর্টের সঙ্গে কোনো ডিভাইস লাগানো থাকলে প্রচুর চার্জ খরচ হয়। তাই প্রয়োজন শেষ হলেই এক্সটারনাল ডিভাইসটি খুলে ফেলুন।

    ৩. ল্যাপটপ বেশি গরম হলে ভেতরের ফ্যানগুলোর ঘুর্ণন বেড়ে যায়, এতে ব্যাটারি খরচ হয় বেশি। সে কারণে কখনোই নরম গদি বা বালিশে রেখে ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন না তাতে গরম বাতাস আটকে আরো গরম হবে। ল্যাপটপ কুলারও কিনে নিতে পারেন।

    ৪. কখনো স্ট্যান্ডবাই মুডে না রেখে হাইবারনেশনে রাখুন। এতে ব্যাটারির চার্জ সংরক্ষিত থাকবে। আর ল্যাপটপ বন্ধ হলেও শেষ যেভাবে কাজগুলো সংরক্ষণ করছিলেন ল্যাপটপ চালু করলে ঠিক সে অবস্থাতেই পাবেন।

    ৫. ল্যাপটপে উইন্ডোজের সঙ্গে বিল্টইন পাওয়ার প্ল্যান সেটিংসও আছে। বিভিন্ন অপশন যেমন: ডিসপ্লে ব্রাইটনেস বাড়ানো বা কমানো, কখন ডিসপ্লে ডিম বা অনুজ্জ্বল করতে এবং বন্ধ করতে চান, হার্ড-ড্রাইভ ও ইউএসবি পাওয়ার বন্ধ করতে চান সেগুলো সেটিং আছে।

    আর ব্যাটারির চার্জের হালনাগাদ তথ্য পেতে চাইলে ‘ব্যাটারি কেস’ (battery case) নামে একটি অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে পারেন। এতে ব্যাটারির সম্পূর্ণ স্ট্যাটাস দেখায়। এছাড়া কতোটুকু ব্রাইটনেসে ব্যাটারি কতোক্ষণ চলবে, ব্যাটারির বর্তমান অবস্থা, সিপিইউ ও হার্ড-ড্রাইভ অতিরিক্ত গরম হয়েছে কি না তা প্রদর্শন করে কেস অ্যাপ্লিকেশন।

    এই অবস্থা দেখেই আপনি সময় মতো ব্যবস্থা নিতে পারেন।

    একটি উত্তর ত্যাগ

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    two × five =