কম্পিউটার ফান্ডামেন্টাল (Computer Fundamental) বা মৌলিক কম্পিউটার (১)

0
460

কম্পিউটার ফান্ডামেন্টাল!

উদ্দেশ্য
ইনপুট ডিভাইস এর সাথে পরিচিতি লাভ।

তত্ত্বঃ
যে সমস্ত ডিভাইস এর মাধ্যমে কম্পিউটারে কোন তথ্য বা নির্দেশ প্রদান করা হয় সেই সমস্ত     ডিভাইসকে ইনপুট ডিভাইস বলে। কীবোর্ড একটি গুরুত্বপূর্ন ইনপুট ডিভাইস। কতগুলো বর্ণ, সংখ্যা,     বিশেষ চিহ্ন ইত্যাদির সমন্বয়ে অনেকগুলো বোতাম বা কী বিশিষ্ট যন্ত্রকে কীবোর্ড বলা হয়।     কম্পিউটারের কীবোর্ড দেখতে অনেকটা টাইপ রাইটারের মতো। কম্পিউটারের সাথে সংযুক্ত কীবোর্ডের     কোনো বৈদ্যুতিক সংকেত তৈরি হয়। অতঃপর কম্পিউটারের কীবোর্ড এনকোডার নামক ইলেক্ট্রনিক     সার্কিট ঐ বৈদ্যুতিক সংতেকে সনাক্ত করে এবং বাফার নামক সেকেন্ডারি মেমরিতে অস্থায়ীভাবে জমা     রাখে।

কম্পিউটার ফান্ডামেন্টাল কম্পিউটার ফান্ডামেন্টাল (Computer Fundamental) বা মৌলিক কম্পিউটার (১)

কীবোর্ডের প্রকারভেদঃ
কীবোর্ড প্রধানত দুই প্রকার:
১। সিরিয়াল কীবোর্ড।
২। প্যারালাল কীবোর্ড।

সিরিয়াল কীবোর্ড:
যে কীবোর্ড কোন উপাত্তকে ক্রমানুসারে অর্থাৎ একটি একটি করে কম্পিউটারে প্রেরণ করে সেই     কীবোর্ডকে সিরিয়াল কীবোর্ড বলে।

প্যারালাল কীবোর্ড:
যে কীবোর্ড কোন উপাত্তকে বাইট আকারে সমান্তরলভাবে কম্পিউটারে প্রেরণ করে সেই     কীবোর্ডকে সিরিয়াল কীবোর্ড বলে।

কীবোর্ডের কী – গুলোর কার্যাবলীঃ
১।   কীবোর্ডে   থেকে   পর্যন্ত যে কীগুলো দেখা যায় তদের            বলা হয়। এই কী গুলোর সাহায্যে বিভিন্ন লেখা টাইপ করা যায়।
২।   কীবোর্ডের ডানপার্শ্বের প্রান্তে লক্ষ করলে দেখা যায় সাধারণত ক্যালকুলেটর          এর মত কীবোর্ডের এই অংশটি। এই কীগুলোর উপরে সংখ্যা যেমন-   নিচে কমান্ড থাকে।                                                  যেমন –   ,   লেখা যুক্ত বোতাম একবার চাপ দিয়ে অর্থাৎ            করে লেখতে থাকলে গাণিতিক সংখ্যাগুলো কাজ করবে। আর যদি       থাকে          তাহলে তার     নিচের কমান্ড কাজ করবে।
৩।    : কীবোর্ডের একেবারে উপরের সারিতে   থেকে   পর্যন্ত যে কী-গুলো          দেখা যায় তাদের   কী বলে।       কী চেপে ধরে   কী          ব্যবহার করা হয়।
৪।    : এই  কী – তে চাপ  দিলে  ডানদিকে  যেখানে টেব সেট করা আছে কার্সার সে          ঘরগুলোতে লাফ দিয়ে যাবে।  সাধারণত ডিফল্ট সেট করা থাকে।
৫।    : অনেক অ্যাপ্লিকেশন প্যাকেজে এই কী চাপ দিয়ে কমান্ড বাতিল করা যায়।
৬।   :    – কে কন্ট্রোল কী বলা হয়। এই কী ব্যবহার করে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন          প্যাকেজে আদেশ প্রদান করা হয়।
৭।   :    – কে অল্টার কী বলা হয়। এই কী চেপে বিভিন্ন প্যাকেজে মেনু নির্বাচন          করা হয়।
৮।   : কম্পিউটার চালু করার পর কার্যক্ষেত্রে এই কী বেশি ব্যভহার করা হয়।
৯।    : আমরা যদি কোন অক্ষর মুছতে চাই তাহলে     একবার           চাপ দিলে কার্সার তার বামদিকের অক্ষর মুছবে।
১০।   :    – কে   কী বলা হয়। এই কী একবার চাপ দিলে কার্সারের            উপরের অক্ষর মুছবে।

লেখকঃ Ashik Ahmed

প্রথম এখানে প্রকাশিতঃ- এবং সংরক্ষিত

একটি উত্তর ত্যাগ