নাস্তিকতা এবং স্টিফেন হকিং

0
558

সম্প্রতি নিজেকে নাস্তিক বলে উপস্থাপন করেছেন বিখ্যাত পদার্থবিদ স্টিফেন হকিং। একই সাথে তিনি দাবি করেছেন যে মহাবিশ্ব সৃষ্টির ব্যাপারটা বিজ্ঞানের মাধ্যমেই ভালোভাবে ব্যাখ্যা করা যায়, ধর্মের মাধ্যমে নয়। বিভিন্ন ধর্মে যেসব আলৌকিক ঘটনার কথা বলা হয়, বিজ্ঞানের চোখে সেগুলো অসম্ভব।

স্প্যানিশ নিউজপেপার এল মুন্ডোর প্রকাশিত এক ভিডিওতে এই বিজ্ঞানী বলেন, “বিজ্ঞান আসার পূর্বে এটা ধরে নেওয়াটা সহজ ছিলো যে ঈশ্বর তৈরি করেছেন এই বিশ্ব। কিন্তু এখন বিজ্ঞানের সাহায্য আরও যুক্তিযুক্ত একটি ব্যাখ্যা দেওয়া সম্ভব,” এবং এর পাশাপাশি তিনি নিজেকে নাস্তিক বলে দাবি করেন।

বিজ্ঞানী নাস্তিকতা এবং স্টিফেন হকিং

এসব কথা তিনি বলেন এল মুন্ডোর সাংবাদিক পাবলো জরেগুই এর প্রশ্নের জবাব হিসেবে। তিনি স্টিফেন হকিং এর ধর্মীয় চিন্তাভাবনার ব্যাপারে প্রশ্ন করেন। স্টিফেন হকিং এর বিখ্যাত বই “A Brief History of Time” এ বলা হয়েছিলো বিজ্ঞানীরা “mind of God” জানতে পারবে। এ ব্যাপারে প্রশ্ন করাতে তিনি বলেন, “এর মানে হলো যখন বিজ্ঞানের সব রহস্য উন্মোচিত হবে তখন আমরা ততটাই জানতে পারব যতটা ঈশ্বরের জানার কথা, যদি একজন ঈশ্বরের অস্তিত্ব থাকতো। কিন্তু ঈশ্বর বলে কিছু নেই, আমি একজন নাস্তিক”।

তবে নিজের ধর্মীয় বিশ্বাসের ব্যাপারে স্টিফেন হকিং এর আগেও কথা বলেছেন। ২০১১ সালে দি গার্ডিয়ানকে তিনি বলেন তিনি স্বর্গ বা পরকালের ওপর বিশ্বাসী নন, সেগুলো শুধুই সেসব মানুষের জন্য প্রযোজ্য যারা অন্ধকারকে ভয় পায়। এর আগে ২০০৭ সালে তিনি বিবিসিকে বলেন, তিনি স্বাভাবিক মানুষের মতো ধর্মবিশ্বাসী নন। তিনি বলেন, “আমি বিশ্বাস করি মহাবিশ্ব চালিত হয় বিজ্ঞানের নিয়মে। এসব নিয়ম হয়তোবা ঈশ্বরের দ্বারা নির্ধারিত। কিন্তু এসব নির্ধারিত নিয়মের ওপরে ঈশ্বর আর হস্তক্ষেপ করেন না”।

একটি উত্তর ত্যাগ