টাইম ম্যাগাজিনের তালিকায় শীর্ষ ১০ অ্যাপ্লিকেশন

1
969

সঙ্গে করে বহন করা যায় এমন আকারে ডিভাইসই সফটওয়্যার নির্মাতারা তৈরি করেছেন গেল বছর। মানুষ সহজে কাজে লাগাতে পারেন তারা এমন সময়োপযোগী বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করছেন অনেক বেশি সংখ্যায় ।

এর কোনোটি দিয়ে স্মার্টফোনেই ভিডিও এডিট করা যায়, আবার কোনোটিতে রয়েছে বিশ্বজুড়ে আলোচিত খবরগুলোর সর্বশেষ সংস্করণ। তাও খবরগুলো পড়ে শোনাবে সফটওয়্যার। টাইম ম্যাগাজিনের তালিকায় ২০১৩ সালের শীর্ষ ১০ অ্যাপ্লিকেশন নিয়ে থাকছে এমন একটি প্রতিবেদন।

টাইম ম্যাগাজিনের তালিকায় ২০১৩ সালের শীর্ষ ১০ অ্যাপ্লিকেশন টাইম ম্যাগাজিনের তালিকায় শীর্ষ ১০ অ্যাপ্লিকেশন

১. এক্সবক্স ওয়ান স্মার্টগ্লাস (Xbox One SmartGlass)

সফটওয়্যার জায়ান্ট মাইক্রোসফটের গেইমিং কনসোল এক্সবক্স ওয়ানের জন্য স্মার্টগ্লাস এনেছে মাইক্রোসফট। ডিভাইসটি গেইমিংয়ের জন্য তৈরি বলে সরাসরি গুগল গ্লাসের প্রতিদ্বন্দ্বী নয়। স্মার্টগ্লাস ব্যবহার করে স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট ডিভাইসকে সেকেন্ডে স্ক্রিন হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। এতে দূরে বসেও টিভি শো স্মার্টফোনে দেখা যাবে। এতে দূরে অবস্থান করেও আপনি টেলিভিশন প্রোগ্রাম বা গেইমিং কনসোলের উপর নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারবেন। চমৎকার এ অ্যাপসটি বছরের সেরা অ্যাপ্লিকেশনের তালিকায় প্রথমে রয়েছে।

২. আইওয়ার্ক (iWork for iCloud)

অ্যাপলের অফিস প্রোগ্রাম আইওয়ার্ক। অনলাইনেও আইওয়ার্ক ব্যবহার করে কাজ করা যায়। এ জন্য টেক্সটকে অফিস ফরমেটে কনভার্ট করার প্রয়োজন নেই। অ্যাপলের ওয়ার্ড প্রসেসিং অ্যাপ্লিকেশন আইওয়ার্ক মাইক্রোসফট অফিস প্রোগ্রামের প্রতিদ্বন্দ্বী। মাইক্রোসফটের উপর নির্ভরতা বাদ দিয়ে অ্যাপলের উদ্ভাবিত প্রযুক্তি ওয়ার্ড, এক্সেল, পাওয়ারপয়েন্টসহ গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু ফিচার রয়েছে আইওয়ার্কে। অ্যাপ্লিকেশনটি প্রথমবারের মতো উইন্ডোজ ও ম্যাক ভার্সন উন্মুক্ত করেছে অ্যাপল। ম্যাক ব্যবহারকারীদের জন্য রয়েছে কোনো মূল্য ছাড়াই ওএস এক্স ভার্সন ব্যবহারের সুযোগ।

ক্লাউড ভিত্তিক অ্যাপ্লিকেশন আই ওয়ার্ক রয়েছে সেরা অ্যাপসের তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে।

৩. লিংকডইন ইনট্রো (LinkedIn Intro)

ইনট্রো লিংকডইনের নিরাপদ ইমেইল সেবা। এখানে রয়েছে ইমেইল প্রেরক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য। ফলে কেউ ইমেইল পাঠালে তার নাম, ছবি ও জীবনবৃত্তান্ত লিংকডইন ইনট্রোতে প্রদর্শিত হয়। লিংকডইন ইনট্রোকে নিরাপদ ইমেইল সেবা বলে জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।

ইয়াহু, জিমেইল, আইক্লাউডসহ আরও কিছু ইমেইল লিংকডইন ইনট্রোর মাধ্যমে ব্যবহার করা যায়।

৪. মেইলবক্স (Mailbox)

অ্যাপলের দ্রুতগতির ইমেইল সেবা মেইলবক্স। আইফোন ও আইপ্যাডে অ্যাপটি ব্যবহার করে ইয়াহু, জিমেইল একাউন্টের মেইল চেক করার অপশন রয়েছে।

৫. ইফটিটিটি (IFTTT)

ব্যক্তিগত সহকারীর মতো বিভিন্ন তথ্য দিয়ে আপনাকে সহায়তা করবে ইফটিটিটি অ্যাপ্লিকেশন। ইফ দিস, দেন দ্যাট (ইফটিটিটি) অ্যাপ্লিকেশনটি তৈরি হয়েছে অ্যাপল ডিভাইসের জন্য। ধরুন বাইরে বৃষ্টি হচ্ছে, তখন আবহাওয়ার খবর জানাবে ইফটিটিটি অ্যাপ্লিকেশন। এছাড়া স্টকের দাম ওঠানামা করলে তাও মেসেজের মাধ্যমে জানিয়ে দেবে ওই অ্যাপ্লিকেশন। ইন্টারনেটে সংযুক্ত থাকলে এ ধরনের অতিপ্রয়োজনীয় খবরগুলোর আপডেট স্বয়ংক্রিয়ভাবে জানিয়ে দেবে ইফটিটিটি।

৬. ইউম্যানো (Umano)

অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস ডিভাইসের উপযোগী অ্যাপ্লিকেশনটি ইন্টারনেটে প্রকাশিত আলোচিত খবরগুলো পড়ে শোনাবে। এ অ্যাপ্লিকেশনটি সেরা অ্যাপস তালিকায় ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে। অ্যাপটি এমনভাবে খবর পড়ে শোনায়, তাতে মনে হয় সত্যিকার কোনো মানুষ খবর পড়ে শোনাচ্ছে।

৭. ফোরস্কয়ার (Foursquare)

বন্ধুদের সঙ্গে সবসময় সংযুক্ত থাকতে ফোরস্কয়ার অ্যাপ। অ্যাপটি ব্যবহার করে বন্ধুদের খবরাখবর জানা যাবে। এছাড়া দর্শনীয় কোনো জায়গা থেকে ঘুরে এসেও তা বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করা যাবে। গুগল প্লের তথ্যানুসারে এখন বিশ্বের চার কোটি ডিভাইসে অ্যাপটি ব্যবহৃত হচ্ছে। সেরা ১০ অ্যাপসের তালিকায় এটি রয়েছে সপ্তমে।

৮. কোস্ট (Coast by Opera)

স্মার্টফোনের ডিফল্ট ব্রাউজারগুলো সাধারণত ধীরগতির হয়। স্বাচ্ছন্দ্যে ইন্টারনেট ব্রাউজের জন্য দরকার আরো দ্রুতগতির ইন্টারনেট ব্রাউজার। অ্যাপল ডিভাইসগুলোর জন্য কোস্ট নামে দ্রুতগতির ডিফল্ট ব্রাউজার এনেছে অপেরা। কোস্ট আইফোনের ডিফল্ট ব্রাউজার সাফারির মতো হলেও এতে প্রচলিত ইন্টারনেট ব্রাউজারের অনেক ফিচারই নেই। অ্যাপ্লিকেশনটির অভিনবত্ব হচেছ, এতে প্রচলিত ব্রাউজারের মতো অ্যাড্রেস বার, বুকমার্কস, ট্যাব বা হোম বাটন নেই। তবে গুগল প্লাস, জিমেইল, ইউটিউবসহ প্রয়োজনীয় সেবা রয়েছে এতে।

৯. কুইপ (Quip)

কুইপ একটি মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন, এতে রয়েছে ওয়ার্ড প্রসেসিং সিস্টেম ও ডকুমেন্ট সম্পাদনার ব্যবস্থা। অ্যাপলের ম্যাক, আইওএস, পার্সোনাল কম্পিউটার ও অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে ডিভাইস করা যাচ্ছে।

১০. জাম্পক্যাম (JumpCam)

স্মার্টফোনে ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার জাম্পক্যাম। ইন্টারনেট জায়ান্ট গুগলের তৈরি অ্যাপ্লিকেশন জাম্পক্যাম ব্যবহার করে স্মার্টফোনের ভিডিওগুলো একত্রিত করে বানাতে পারেন শর্টফিল্ম। আইওএস এবং অ্যান্ড্রয়েড দুই ভার্সনে এটি পাওয়া যাচ্ছে। সেরা ১০ অ্যাপসের তালিকায় জাম্পক্যাম্প রয়েছে দশম অবস্থানে।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

one × five =