ট্যালি টিউটোরিয়াল- ৪ : ট্যালি.ইআরপি ৯ স্ক্রিন অপশনগুলোর পরিচয়

1
440

ট্যালি সফটওয়্যার বাংলাদেশে আমার পেশাগত ব্যস্ততার কারণে অনেকদিন ধরে আমার ধারাবাহিক টিউটোরিয়ালটির নতুন পর্ব লিখতে পারিনি, আমি ক্ষমাপ্রার্থী!

যায় হোক, আগের পর্বে আমরা ট্যালি.ইআরপি ৯ সফটওয়্যারটিতে কিভাবে কোম্পানি তৈরি করতে হয় সেটি শিখেছি। একটি কোম্পানী তৈরি হওয়ার পরই আমরা মূল ট্যালি সফটওয়্যার স্ক্রিনটি পাই। এখানে যে অপশনগুলো থাকে আজ সেগুলোর পরিচয় নিয়েই লিখবো। আমাদের প্রফেশনাল কাজের জন্য এই স্ক্রিনের কোনটির কাজ কি তা অবশ্যই জানতে হবে।

ট্যালি টিউটোরিয়াল- ৪ : ট্যালি.ইআরপি ৯ স্ক্রিন অপশনগুলোর পরিচয় ট্যালি টিউটোরিয়াল- ৪ : ট্যালি.ইআরপি ৯ স্ক্রিন অপশনগুলোর পরিচয়

ট্যালির প্রাথমিক স্ক্রীন

ট্যালি চালু করলেয় প্রথমে নিচের স্ক্রীন টি প্রদর্শিত হবে । এ স্ক্রীনে মেনু, টপ বার,বাটন প্লেট;এ্যাকটিভ কোম্পানি ,ট্যালি ভার্সন নাম্বার সহ বিভিন্ন বিষয় প্রদর্শিত থাকে।

  • Print : এ বাটনটির মাধ্যমে আপনি যেকোন রিপোর্ট প্রিন্ট করতে পারবেন।
  • Export : এ বাটন দ্বারা আপনি যেকোন রিপোর্ট মাইক্রোসফট এক্সেল কিংবা পিডিএফ সহ কয়েকটি ফাইলে এক্সপোর্ট করতে পারবেন।
  • Email: আপনি যেকোন রিপোর্ট এই বাটনের মাধ্যমে কাউকে ইমেইল পাঠাতে পারবেন।
  • Upload : ইন্টারনেট সার্ভারে কোন রিপোর্ট বা ডেটা সাবমিট করা যায়।Help : এ বাটনটির মাধ্যমে ট্যালি কর্তৃপক্ষ অনলাইন সুবিধা প্রদান করে । এ বাটন ক্লিক করলে স্ক্রীন যে অবস্থায় রয়েছে তা সংশ্লিষ্ট বিষয়ের হেল্প টপিকগুলো প্রদর্শিত হয় যা থেকে ব্যবহারকারী প্রোয়জনীয় বিষয়ের ধারনা নিতে পারেন ।
  • Shop : ট্যালি কাস্টোমাইজেশন করার জন্য আপনি প্রচুর পরিমাণ অ্যাড-অন পাবেন ট্যালি স্টোরে। এজন্য আপনি ট্যালি শপ বাটনের মাধ্যমে আপনার প্রয়োজনীয় অ্যাড-অনসটি খুঁজে নিতে পারেন।
  • Language : প্রদর্শনের জন্য ডিফল্ট ল্যাংগুয়েজ সেটআপ করা যায়।
  • Keyboard : ডেটা ইনপুটের জন্য ডিফল্ট ল্যাংগুয়েজ সেটআপ করা যায়।
  • Control Center : এ বাটনটির মাধ্যমে আপনি ট্যালি কন্ট্রোল সেন্টারের অ্যাক্সেস পাবেন।
  • Support Center : ট্যালি সাপোর্ট সেন্টার বাটন এটি।
  • Help : এই বাটনটি ক্লিক করলেই বিশাল একটা হেল্প রিসোর্স চলে আসবে আপনার সামনে।

স্ক্রীনের বাম অংশ

স্ক্রীনের বাম অংশে ট্যালির নিম্নোক্ত বর্তমান অবস্থা প্রদর্শিত হয়। যেমন –

  • Current Period : আর্থিক বছর প্রদর্শিত হয়।
  • Current Date : বর্তমান তারিখ প্রদর্শিত হয়।
  • Active Company : নির্বাচিত কোম্পানির নাম প্রদর্শিত হয়। একাধিক কোম্পানি নির্বাচন করা হলে প্রদর্শিত থাকবে ।

ভার্টিক্যাল বাটন বার

ট্যালির স্ক্রীনের ডান দিকে খাড়া ভাবে একটি প্যালেট রেয়েছে । এটিকে ভার্টিক্যাল বাটন বার বলে। এ বাটন প্যালেট বিভিন্ন অবস্থার প্রেক্ষিতে বিভিন্ন বাটন প্রদর্শিত হয়। এক একটি ফাংশন কী এর এক এ ধরনের কার্যকারিতা রয়েছে । নিচে এগুলোর কার্যকারিতা সম্পর্কে বর্ণনা করা হলো ।

  • F1: Select Comp : এ অপশন চেপে একাধিক কোম্পানির হিসাব রাখার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কোম্পানি নির্বাচন করা যায়।
  • F1: Shut Comp : তালিকা থেকে কোম্পানির নাম বাদ দেওয়া যায়। এ অপশনটি Alt+F1 কী চাপ দিতে হয়।
  • F2 Date : বর্তমান তারিখ নির্বাচন বা পরিবর্তন করার জন্য এ অপশনটি ব্যবহার করা হয়।
  • F2 Period : আর্থিক বছর পরিবর্তন করার জন্য এ বাটনটি ব্যবহার করা হয়। এর জন্য Alt +F2 কীদ্বয় চাপ দিতে হয়।
  • F3 Company : একাধিক এ্যকটিভ কোম্পানির মধ্যে করার জন্য এ বোতামটি প্রয়োগ করা হয়।
  • F3 Comp Info : এ বোতামটি মেনু Comp Info প্রদর্শন করে। এ বোতামটি ব্যবহার করার জন্য Alt+F3 কী দ্বয় একত্রে চাপ দিতে হয় । অথবা মাউচ দিয়ে এখানে ক্লিক করতে হয়।
  • F11: Feature: এ বোতামটি Company Feature মেনু প্রদর্শন করে।
  • F12: Configure : এ বোতামটি মেনু Configuration মেনু প্রদর্শন করে ।

ট্যালি কোম্পানি মেনু পরিচয়

সহজে কাজ করার সুবিধার্থে অন্যান্য এপ্লিকেশনের মতো ট্যালিতেও বিভিন্ন মেনু রয়েছে । মেনু থেকে এর যাবতীয় কাজ কর্ম সম্পাদান করা যায়। স্ক্রীনের ডান অংশে ট্যালির মেনু প্রদর্শিত হয়। ট্যালির মেনুকে প্রধান চারটি গ্রুপে ভাগ করা যায়।

  • Masters
  • Transaction
  • Utilities
  • Reports

এই প্রধান মেনুগুলোর অধীনেও আবার অনেকগুলো সাব-মেনু রয়েছে। নিচের ছবিতে আপনারা সেটি দেখে নিতে পারেন।

ট্যালি টিউটোরিয়াল- ৪ : ট্যালি.ইআরপি ৯ স্ক্রিন অপশনগুলোর পরিচয়

এতক্ষণ আমরা যে স্ক্রিন-অপশনগুলো দেখেছিলাম সেগুলো কাস্টোমাইজ করলে আপনি মূলত ট্যালি সফটওয়্যারটি কাস্টোমাইজ করলেন। আর কোম্পানি মেনুর মাধ্যমে নির্দিষ্ট কোন কোম্পানির তথ্যাদি পরিবর্তণ কিংবা প্রবেশ করানো যাবে। যারা ট্যালিতে কাজ করেন তাদের মূলত এই মেনুটিই ব্যবহার করতে হয়। আশা করছি এটি নিয়ে খুব বিস্তারিত লিখতে হবে না, আপনারা অপশনগুলো দেখেই বুঝে যাওয়ার কথা কোনটির কোন কাজ।

এরপরও যারা বুঝবেন না এই অংশনটি তাদের জন্য:

  • A : Accounts Info : এটি একটি প্রতিষ্ঠানের অ্যাকাউন্টসের সব তথ্য দেখা এবং তৈরির মেনু। আপনি এর মাধ্যমে লেজার, লেজার গ্রুপ, কস্ট সেন্টার এবং ভাউচার টাইপ তৈরি, দেখা এবং পরিবর্তন করতে পারবেন।
  • L: Payroll Info : সবার বেতনের হিসাব রাখার-দেখার জন্য এ মেনু। এর মাধ্যমে Employee, Employee Group তৈরি, Unit, Attendance, Production Type, Pay Head, Salary Details এবং Voucher Type দেখা, তৈরি এবং সম্পাদন করা যায়।
  • V: Accounts Voucher: প্রতিষ্ঠানের সব হিসাব এই মেনুটির মাধ্যমে সফটওয়্যারে এন্ট্রি করতে হয়।
  • Y: Payroll Voucher: প্রতিষ্ঠানের বেতনাদির হিসাব এই মেনুটির মাধ্যমে এন্ট্রি করতে হয়।
  • O: Import of Data: ভাইচার এবং লেচার ইমপোর্ট করার জন্য এই অপশনটি ব্যবহার করা হয়।
  • N: Banking: প্রতিষ্ঠানের ব্যাংকিং লেনদেনগুলো এই মেনুটির মাধ্যমে দেখা যায়। আবার ব্যাংক সংক্রান্ত কিছু কাজ, যেমন: চেক প্রিন্টিং, চেক রেজিস্টার, ব্যাংক রিকনসিলিয়েশন, ডিপোজিট স্লিপ, পেমেন্ট অ্যাডভাইসের মত কাজগুলোও এই মেনুটির মাধ্যমে করতে হয়।
  • B : Balance Sheet: প্রতিষ্ঠানের ব্যালেন্সশিট দেখার জন্য এই বাটনটি।
  • I: Income and Expense A/C: প্রতিষ্ঠানটির লাভ-ক্ষতি হিসাব কিংবা অলাভজনক প্রতিষ্ঠানগুলোর ক্ষেত্রে আয়-ব্যায়ের হিসাব এই অপশনের মাধ্যমে দেখা যায়
  • R: Ration Analysis: প্রতিষ্ঠানটি কেমন পারফর্ম করছে তা জানার জন্য টপ লেভেল ম্যানেজমেন্ট রেশিও অ্যানালাইসিস বা অনুপাত বিশ্লেশনের উপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল থাকে। ম্যানুয়ালি যেটি করা খুব কষ্ট-সাধ্য এবং সময়সাধ্য ব্যাপার। এই অপশনটির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের যেকোন রেশিও অ্যানালাইসিস মাত্র কয়েক ক্লিকেই করা সম্ভব।
  • C: Analysis and Verify: প্রতিষ্ঠানের ডাকা বিশ্লেষণ এবং ভেরিফাই করার জন্য এই বাটনটি ব্যবহার করা হয়।
  • D: Display: এই বাটনটি হচ্ছে প্রতিষ্ঠানের সব ধরণের রিপোর্ট দেখার জন্য।

আজকের মত এখানেই!

তো আজকে আমরা মেনু পরিচয়গুলো এবং ব্যবহার সম্পর্কে জানলাম। পরবর্তী টিউটোরিয়ালে আমরা লেজার তৈরি করা এবং গ্রুপ তৈরি করা শেখাবো। এবং পরবর্তী অধ্যায় থেকেই মূলত ট্যালির প্র্যাকটিক্যাল কাজ শুরু হবে। সে পর্যন্ত ভাল থাকুন, ট্যালি সফটওয়্যার বাংলাদেশের সঙ্গেই থাকুন। ধন্যবাদ সবাইকে।

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ