গুগল অ্যাডসেন্স সাইন আপ প্রক্রিয়া করুন আরও সহজ

0
324

ব্লগ বা ওয়েব সাইট থেকে অর্থ উপার্জনের জনপ্রিয় উপায় হলো গুগলের অনলাইন অ্যাডভার্টাইজিং সার্ভিস প্রোগ্রাম গুগল অ্যাডসেন্স। নিরাপত্তা ও সর্বোত্তম সার্ভিস পাওয়ার জন্য বিজ্ঞাপন দাতারা তাদের ব্র্যান্ড ও প্রোডাক্টকে প্রোমট করার জন্য গুগল অ্যাডসেন্সকেই বেছে নেয়। বর্তমানে বিজ্ঞাপন দাতাদের ক্লিক ফ্রড ও স্পামিং এর হাত থেকে রক্ষা করতে পাবলিশারদের জন্য রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া কঠিন করেছে। তাই আপনি যদি অ্যাডসেন্স পাবলিশার হিসেবে অ্যাকাউন্ট অ্যাপ্রুভ করাতে চান তাহলে আপনাকে বুঝতে হবে যে অ্যাডসেন্স আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট থেকে কি চায়। বেশির ভাগ ব্লগার অ্যাডসেন্স এ অ্যাপ্লাই করার পর একই ধরণের রিপ্লে পেয়ে থাকেন। যেমন – Page Type, Postal, Invalid Content বা insufficient content ইত্যাদি। আপনি যদি এর আগে অ্যাডসেন্স অ্যাপ্লাই করে থাকেন তাহলে হয়েতো এধরনের রিপ্লে পেয়েছেন। আপনার ব্লগ  বা ওয়েবসাইট যদি অ্যাডসেন্স এর Terms And Conditions ফলো না করে তাহলে আপনি যখন Application সাবমিট করবেন তখন অ্যাডসেন্স অ্যাপলিকেশন চেক করে দেখবে এবং একটি মেইল পাটাবে যে আপনার Page Type Error বা insufficient content এর কারণে অ্যাডসেন্স এ অংশ নিতে পারছেন না।  তো Page Type Error বা insufficient content আসলে কি? এখন এটি একটি কমন প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। শুধু মাত্র অ্যাডসেন্স এর ইঞ্জিনিয়ারাই জানেন এর অ্যালগরিদম সম্পর্কে। তবে আমি এখানে কিছু প্রয়োজনীয় পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করছি যাতে আপনার অ্যাডসেন্স সাইন আপ প্রক্রিয়া সহজ হয় এবং আপনি হতে পারেন একটি অ্যাপ্রুভ অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টের মালিক।

কিভাবে Page Type Error বা insufficient content থেকে মুক্তি পাবেন? এ জন্য যা যা করা যেতে পারে-

টপ লেভেল ডোমেইন প্রয়োজনঃ

আপনি কি সিরিয়াসলি অ্যাডসেন্স নিয়ে কাজ করতে চান? উত্তর যদি হ্যাঁ হয় তাহলে একটি কাস্টম ডোমেইন বা টপলেভেল ডোমেইন কেনার চিন্তা করুন। অ্যাডসেন্স খুব কমই ফ্রি বা সাব-ডোমেইনের সাইটের অ্যাপলিকেশন Accept করে। ধরুন আপনার একটি ভাল ব্রান্ড আছে আর আপনি এটি অনলাইনে প্রমোট করাতে চান। এটি কিন্তু সাব ডোমেইনের মাধ্যমে ভাল ভাবে প্রমোট করাতে পারবেন না। কারণ এধরনের সাইটের ভিজিটর বিশস্ত হয় না। আপনার ব্লগ যদি কাস্টম ডোমেইন বা টপ লেভেল ডোমেইনের হয়ে থাকে তাহলে এর মাধ্যমে অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট অ্যাপ্রুভ হবার সম্ভাবনা প্রায় ৭০%।

জেনুইন এবং কোয়ালিটি কনটেন্টঃ

ব্লগে সব সময় আসল এবং কোয়ালিটি কনটেন্ট যুক্ত করুন। কোনরূপ কপি পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন। খেয়াল রাখবেন আপনার ব্লগের কনটেন্ট অ্যাডসেন্স এর Terms And Conditions ফলো করে চলছে কি না। একটি নতুন আর্টিকেল তৈরির প্রস্তুতির জন্য নিচের পয়েন্ট গুলো মাথায় রাখবেন।

  •  আপনি যখন স্পামিং বা হ্যাকিং টাইপের ব্লগে যাবেন তখন সর্বদা অ্যাংকর ট্যাগে ডুফলো অ্যাট্রিবিউট যুক্ত করুন।
  •   আর্টিকেলে শব্দের সংখ্যা কমপক্ষে ২৫০+ রাখার চেষ্টা করুন।
  • পাঠককে কখনও বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার জন্য জোর বা চাপ প্রয়োগ করবেন না।
  •   অন্য ব্লগে ব্যবহৃত ইমেজ আপনার ব্লগে ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। অন্য ব্লগের ইমেজ ব্যবহার করলে আপনি কপিরাইট লঙ্ঘন করতে পারেন। কারন ইন্টারনেটে থাকা সব ইমেজই অটোমেটিক কপিরাইটের আওতায় চলে যায়। তাই নিজের ব্লগের জন্য পরিচ্ছন্ন ইমেজ তৈরি করুন।

কিছু স্ট্যাটিক পেজ তৈরি করুনঃ

ব্লগে আপনাকে কিছু স্ট্যাটিক পেজ রাখতে হবে। আপনি যদি ব্লগার.কম এ ব্লগ করেন তাহলে এখানে প্রায় ২০ টি স্ট্যাটিক পেজ তৈরি করতে পারবেন। ব্লগে স্ট্যাটিক পেজ তৈরির জন্য এ অপশনকে কাজে লাগান। সব সময় ব্লগে About us, Contact us, Privacy Policy পেজ তৈরি করুন।  Privacy Policy পেজ ব্লগের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ন পেজ। এতে আপনার ব্লগের কনটেন্ট এবং ভিজিটরের প্রকৃতির বর্ণনা থাকে যা অ্যাডসেন্সের কাছে খুবই পছন্দনীয় একটা ব্যাপার।

 

টেম্পলেট ডিজাইন করুন সুন্দর ভাবেঃ

ব্লগে আপনি যে টেম্পলেটটি ব্যবহার করছেন তা ভাল ভাবে কাস্টমাইজ হতে হবে। এত কোন ডিজাইনিং ত্রুটি থাকা চলবে না।   আপনি যদি নিজে ডিজাইন করতে না পারেন তাহলে টেম্পলেট ডাউনলোড করুন অথবা একটি প্রিমিয়াম টেম্পলেট কিনে ফেলুন।

এবার অ্যাপলিকেশন সাবমিট করার পূর্বে নিচের পয়েন্ট গুলো নিয়ে আরেকবার ভাবুন।

  • ব্লগ বা ওয়েসবাইটের হোম পেজের সাইজ।
  • মেনুবার সম্পর্কে নিশ্চিত হোন। যাতে এত কোন ডিজাইনিং ত্রুটি না থাকে।
  • Credits এবং Privacy Policy সম্পর্কিত তথ্য সাইটের ফুটার সেকশনে রাখুন।
  • টেম্পলেট থেকে ওভারফ্লো এলিমেন্ট গুলো মুছে ফেলুন।
  • শেয়ারিং এবং সাবক্রিপশন উইজেট বা গ্যাজেট ব্লগে যুক্ত করুন।

আমাদের একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে গুগল এ আমরা যে অ্যাপ্লিকেশন গুলো সাবমিত করি কোন মানুষ এগুলো চেক করে না। একাজের জন্য আছে বট। এটা একটা মেশিনের মত কাজ করে। তাই সব কিছু ঠিক থাকলে অ্যাকাউন্ট অ্যাপ্রুভ হবে।

শেষে এসে বলতে চাই  আপনি উপরের টিপস্‌ গুলো মেনে চলতে পারেন তাহলে হয়তো পেয়েও যেতে পারেন আপনার কাঙ্খিত গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট।

  MY SITE

 

 

একটি উত্তর ত্যাগ