ফিফা ওয়ার্ল্ডকাপ ম্যাচ প্রিভিউ : জার্মানি বনাম ব্রাজিল

1
765

চমৎকার এক বিশ্বকাপের একদম শেষ পর্যায়ে পৌঁছেছি আমরা। শুরু হচ্ছে সেরা চারটি দলের লড়াই। আজ মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ব্রাজিলের বেলো হরিজন্টেতে বিশ্বকাপের ৬১তম ম্যাচ এবং প্রথম সেমিফাইনালে খেলতে নামবে দুই সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ল্যাটিন পরাশক্তি ব্রাজিল ও ইউরোপিয়ান জায়ান্ট জার্মানি। ম্যাচটি এর মধ্যে উত্তাপ ছড়াতে শুরু করেছে, নানান জল্পনা কল্পনা চলছে টুর্নামেন্টের অতি গুরুত্বপূর্ন এই ম্যাচটিকে ঘিরে।

ব্রাজিলঃ

ব্রাজিল সেমিফাইনালে উঠেছে এখন পর্যন্ত এগারো বার। এইবার কোয়ার্টারফাইনালে খেলা কলম্বিয়ার সাথে ম্যাচটিকে অনেক ব্রাজিলিয়ান মনে রাখতে চাইবেন না। ব্রাজিলের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে মাত্রাতিরিক্ত ফাউল করার। সেটা একটা ব্যাপার, বড় ব্যাপার হল, ব্রাজিল এই ম্যাচে তাদের বড় দুই খেলোয়াড়কে পরবর্তী ম্যাচের জন্য হারিয়েছে। দলের প্রাণভ্রমরা নেইমার অসম্ভব রকম মার খেয়ে শিরদাঁড়া ভেঙে এখন মাঠের বাইরে। আবার বিশ্ব সেরা সেন্টআর ব্যাক থিয়াগো সিলভা হলুদ কার্ড খেয়ে বসে। কার্ডজনিত সমস্যায় তিনি সেমিফাইনাল মিস করতে যাচ্ছেন। এই মুহুর্তে তাই প্রতিপক্ষ জার্মানির আনন্দিত হবারই কথা। তো, নেইমার নেই। আজ তাঁর জায়গা নেবেন কে? জার্মানির সঙ্গে সেমিফাইনাল-যুদ্ধে নামার আগে ব্রাজিলিয়ানদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন এটাই। অস্কার? উইলিয়ান? এদের দিয়ে হবে? গত ম্যাচগুলোতে মূল স্ট্রাইকার ফ্রেডের পারফরমেন্স একেবারেই হতাশাজনক ছিল। আবার হাল্কও তেমন ভাবে জ্বলএ উঠতে পারেন নি।

ফিফা ওয়ার্ল্ডকাপ ম্যাচ প্রিভিউ : জার্মানি বনাম ব্রাজিল

জার্মানিঃ

গেল ম্যাচে ফ্রান্সের সাথে বেশ ভালোই বেগ পেতে হয়েছে জার্মানিকে। ম্যাচের শুরুতেই কর্নার থেকে দেওয়া গোলে যে এগিয়ে ছিল জার্মানদল, সেই গোলকেই বাকি আশি মিনিট ডিফেন্ড করে গিয়েছে তারা। ফ্রান্সের বেশকিছু মারাত্মক শট নিউয়ারকে অসামান্য দক্ষতায় রুখে দিতে দেখা গিয়েছে। দলের স্ট্রাইকারদের মধ্যে সফল বলতে মুলার, তাছাড়া আর কাউকে দেখা যাচ্ছে না। ক্লোসার যে বয়স হয়ে গিয়েছে, তা বোঝাই যাচ্ছে। অজিল একটা গোল পেলেও তার সেরা ফর্মে নাই। আসলে, প্রথম ম্যাচে পর্তুগালকে চার গোল দেবার পরে আর কোন ম্যাচেই জার্মানিকে সেই রকম দুর্দান্ত মনে হয় নি। জয়েচিম লো ব্রাজিলের মাত্রাতিরিক্ত ফাউল নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন বলেও জানিয়েছেন।

ফিফা ওয়ার্ল্ডকাপ ম্যাচ প্রিভিউ : জার্মানি বনাম ব্রাজিল

নিজেদের মধ্যেঃ
দুই দল বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ সংখ্যক ম্যাচ খেলেছে, ব্রাজিল ১০২টি, জার্মানি ১০৪টি। কিন্তু মজার ব্যাপার, নিজেদের মধ্যে বিশ্বকাপে ম্যাচ হয়েছে মাত্র একটি, ২০০২ সালে ফাইনালে সেই ম্যাচে জার্মানিকে দুই গোলে হারিয়ে দেয় ব্রাজিল।
এখন পর্যন্ত সব মিলিয়ে ২১ বার খেলেছে তারা, ব্রাজিল বারোবার জিতেছে, জার্মানি চারবার।

সময়ঃ
আজ ৮ জুলাই, দিবাগত রাত দুটায়, অর্থাৎ ক্যালেন্ডারে তখন ৯ জুলাই হয়ে যাবে, তখন ব্রাজিলের হরিজন্টেতে দুই দল নিজেদের মুখোমুখি হবে।

খেলার মাঠে দুই দলের কৌশলঃ

ব্রাজিলের থিয়াগো আজ খেলবেন না, তার বদলে খেলতে নামবেন জার্মান দল বায়ার্নের হয়ে খেলা দান্তে। জার্মান দলের আক্রমণভাগকে, বিশেষ করে টিমমেট মুলারকে কিভাবে সামলাতে হয় দান্তের ভালোই জানা থাকার কথা। এখন মুলারকে আটকানো সহজ নয়, তার পজিশন সেন্স অসাধারণ, সে আক্রমণভাগে একেবারে মাঝে দিয়ে দৌড়ায় না- তার ডানে বামে যাবার পূর্ণ স্বাধীনতা আছে। এক্ষেত্রে দান্তের একার পক্ষে কিভাবে তাঁকে সামলানো সম্ভব, আজ তা দেখার বিষয়। অন্যদিকে ফিলিপ লাম টুর্নামেন্টের প্রথম থেকে মাঝমাঠে খেললেও গত ম্যাচে ফ্রান্সের সাথে খেলেছে রাইট ব্যাকে। সেক্ষেত্রে তার পারফরমেন্স বেশ ভালোই ছিল।

ফিফা ওয়ার্ল্ডকাপ ম্যাচ প্রিভিউ : জার্মানি বনাম ব্রাজিল

এখন আজ যদি ব্রাজিলিয়ান কোচ স্কোলারি অসকারকে মাঝ মাঠে না খেলিয়ে আক্রমণভাগে আক্রমণে যেতে বলেন, সেক্ষেত্রে লামের দায়িত্ব পড়বে অসকারকে আটকানোর। অন্যদিকে হাল্কে বেশ কয়েকবার প্রতিপক্ষের জালে শট নিতে দেখা গিয়েছে, আজ হাল্ক দলের আক্রমণভাগের বাম পাশে থাকবেন, পিছনে থাকবেন বিশ্বের সেরা লেফট উইঙ্গার মারসেলো। আর সামনে থাকবেন প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডার হাওয়েডেস। নামটা অপরিচিত লাগতে পারে, হুম, ইনি অতটা খ্যাতি সম্পন্ন নন। জার্মানির রক্ষণভাগের দুর্বলতা ইনিই হতে পারেন। ব্রাজিল আজ সফল হবে যদি হাল্ক বাম পাশ দিয়ে মারসেলোর সহায়তায় আক্রমণে যেতে পারে। আবার অজিল অসাধারণ খেলোয়াড়, আজ তাঁকে আটকানোর দায়িত্ব পড়েছে ডেভিড লুইজের উপর। ডেভিড লুইজ আবার বেশ কবারই আক্রমণে উঠে যান। আজ তাঁকে অজিল এবং ক্লোসার উপর তীক্ষ্ণ নজর রাখতে হবে, সামান্য সুযোগ পেলেই এরা প্রতিপক্ষের জালে বল জড়িয়ে দিতে পারেন।

ফিফা ওয়ার্ল্ডকাপ ম্যাচ প্রিভিউ : জার্মানি বনাম ব্রাজিল

ফ্রেডের কথা না বললেই না, জার্মানির হামেলস ও বোয়েটাং আজ তাক যদি নিষ্ক্রিয় করে রাখতে পারে, ব্রাজিলের সেক্ষেত্রে ভরসা হবে ওই অস্কার আর হাল্কই। উইলিয়ান আজ নেইমারের বদলে খেলবেন, ফিলিম লাম এর সামনে আজ তার জ্বলে ওঠার উপর ব্রাজিলের অনেক কিছু নির্ভর করছে।

সম্ভব্য ফলাফলঃ ব্রাজিলকে খাতা কলমে মনে হচ্ছে অনেক দুর্বল। নেইমার নাই, থিয়াগো নাই। আক্রমণ ও রক্ষণভাগের দুই সেরা খেলোয়াড় নাই। কিন্তু এটাও ঠিক, এখন পর্যন্ত জার্মানির সামনে সবচেয়ে শক্ত প্রতিপক্ষ হচ্ছে এই ব্রাজিলই। এর মধ্যেই নেইমার জানিয়ে দিয়েছেন তিনি ব্রাজিল দলের চ্যাম্পিয়ন উৎসবে থাকতে চান। ফলে জার্মানদের এখন ভয় এটাই যে, শোককে শক্তিতে পরিণত করে ব্রাজিল অপ্রতিরোদ্ধ হয়ে ওঠে কিনা। আর ম্যাচ কৌশলে যে স্কোলারি সেরা, সেটা না বলএই হয়। আজ যদি তার ফর্মুলা সঠিকভাবে তার শিষ্যরা প্রয়োগ করতে পারে, তবে জার্মানিকে ২-১ গোলে হারিয়ে ফাইনালে দেখা যেতে পারে ব্রাজিলকেই।

 

অনলাইনে খেলা দেখতে এই লিঙ্ক এ ক্লিক করুন।

টিউন ভাল লাগলে অবশ্যই টিউমেন্ট দিবেন।

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ