বিশ্বে দ্রুত বাড়ছে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা

0
486

বিশ্বে দ্রুত বাড়ছে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা। মোবাইল ফোন অপারেটরদের আন্তর্জাতিক সংগঠন জিএসএমএ জানিয়েছে, গত এপ্রিল মাসে বিশ্বে মোবাইল ফোনের সংযোগ সংখ্যা ৭০০ কোটি অতিক্রম করেছে। আর বছর শেষে বিশ্বের মোট জনসংখ্যা ৭২০ কোটির সমান হবে সংযোগ সংখ্যাও। এতে দ্রুতই দেখা যাবে মোবাইল ফোন সংযোগ সংখ্যা বিশ্বের মোট জনসংখ্যাকেও অতিক্রম করে যাবে।

এদিকে এপ্রিল শেষে বাংলাদেশে মোবাইল সংযোগ সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ৫৬ লাখ। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এ বছরের জানুয়ারিতে দেশে ছয় অপারেটরের সম্মিলিত সংযোগ ছিল ১১ কোটি ৪৮ লাখ। ফেব্রুয়ারিতে এ সংখ্যা ছিল ১১ কোটি ৫৯ লাখ, যা মার্চে গিয়ে প্রায় সাত লাখ ৪২ হাজার কমে ১১ কোটি ৫২ লাখে দাঁড়ায়। তবে এপ্রিল মাসে এসে সংযোগ সংখ্যা চার লাখ বেড়ে ১১ কোটি ৫৬ লাখ হয়। এপ্রিলের প্রবৃদ্ধির ধারা মে মাসেও অব্যাহত ছিল।

বিশ্বে দ্রুত বাড়ছে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা বিশ্বে দ্রুত বাড়ছে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা

বিটিআরসির তথ্য অনুযায়ী, মে মাসে সব অপারেটরের সম্মিলিত গ্রাহক ১১ কোটি ৬২ লাখ, যার মধ্যে গ্রামীণফোনের চার কোটি ৯০ লাখ, বাংলালিংকের দুই কোটি ৯৬ লাখ, রবির দুই কোটি ৪০ লাখ, এয়ারটেলের ৮৪ লাখ, সিটিসেলের ১৪ লাখ ও টেলিটকের ৩৫ লাখ।

এদিকে ২০১৩ সালে চতুর্থ প্রান্তিকে চীনে মোবাইল ফোন সংযোগ সংখ্যা পৌঁছেছে ১২৫ কোটিতে। আশা করা হচ্ছে, আগামী বছরের মাঝামাঝি সময়ে দেশটির মোট জনসংখ্যা ১৩৯ কোটিকে অতিক্রম করে যাবে মোবাইল ফোন সংযোগ সংখ্যা। বিটিআরসিকে দেওয়া মোবাইল ফোন অপারেটরদের তথ্যের ভিত্তিতে দেশের জনসংখ্যা ১৬ কোটি ধরলে প্যানিট্রেশন হওয়ার কথা ৭১ শতাংশ। কিন্তু মোবাইল ফোন অপারেটরদের সংগঠন অ্যামটব বলছে, অ্যাক্টিভ সিমের সংখ্যা যা-ই হোক না কেন, গ্রাহক সংখ্যা বড়জোর সাত কোটি ৫৬ হাজার।

তাদের বিবেচনায় দেশের মাত্র ৪৫ শতাংশ লোক এখন মোবাইল ফোন ব্যবহার করছে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কাছে এ তথ্য জানিয়েছে অ্যামটব। তারা বলছে, পাশের অনেক দেশেই অ্যাক্টিভ সিমের হিসেবে প্যানিট্রেশন ১৫০ শতাংশের মতো। ওই সব দেশে প্রকৃত মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা শতভাগের কাছাকাছি। অ্যামটবের হিসাবে অ্যাক্টিভ হিসাবের মধ্যে ৩৫ শতাংশ ডুয়েল সিম রয়েছে। সেগুলো বাদ দিলে গ্রাহক সংখ্যা সাড়ে সাত কোটির মতো হবে। অ্যামটবের মতে, অপারেটরদের আরো অন্তত কয়েক কোটি মানুষকে মোবাইল ফোনের সেবা দেওয়ার সুযোগ রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ