ফ্রিল্যান্সিং শিখুন অনলাইনে সম্পূর্ণ ফ্রী। part-1,

1
1365
ফ্রিল্যান্সিং শিখুন অনলাইনে সম্পূর্ণ ফ্রী। part-1,

Shimul Baran

I am a Online Marketing freelancer and a Blogger. Here are my main working areas: Email Marketing, Advance SEO, CRM system, Article writing, Web research, Project management and some others.
ফ্রিল্যান্সিং শিখুন অনলাইনে সম্পূর্ণ ফ্রী। part-1,

ফ্রিল্যান্সিং শিখুন অনলাইনে সম্পূর্ণ ফ্রী। ইদানিং কিছু নাম সর্বস্ব প্রতিষ্ঠান ফ্রিল্যান্সিং সেখানোর নাম করে মানুষের কাছ থেকে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। তাদের এসব আপক্রমের জবাব দিতে আমার এই ছোট্ট প্রয়াস, আশা করি আপনারা আমার সাথে থাকলে এই উদ্দেশ্য সফল হবে। ফ্রিল্যান্সিংয়ের সকল বিষয়ে সহজ ভাষায় বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করবো। প্রয়োজনে চিত্র/ভিডিও ব্যবহার করা হবে। ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার আগে ভালো একটি প্রতিষ্ঠান থেকে আপনার পসন্দের যেকোনো একটি বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেকে ওই কাজে সম্পূর্ণ দক্ষ করে গড়ে তুলুন, তাহলে আপনাকে আর কখনই পিছনে ফিরে তাকাতে হবে না। আসুন তাহলে শুরু করা যাক।

ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আমার লেখা ধারাবাহিক টিউটোরিয়ালের এটি প্রথম পর্ব। আমি পর্যায় ক্রমে ফ্রীলেঞ্চিং এর সব বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো।

আজকের পর্বে যা যা থাকছেঃ

  • ফ্রিল্যান্সিং কি? আউটসোর্সিং কি? এই দুটার মধ্যে পার্থক্য কি?
  • ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কি কি সধারন যোগ্যতা অবশ্যই থাকতে হবে।
  • ফ্রিল্যান্সিং কাদের জন্য উপযোগী ?
  • প্রচলিত চাকরি থেকে ফ্রীলেঞ্চিংয়ের সুবিধা গুলো কি কি?

ফ্রীলেঞ্চিং ফ্রিল্যান্সিং শিখুন অনলাইনে সম্পূর্ণ ফ্রী। part-1,

ফ্রিল্যান্সিং কি? আউটসোর্সিং কি? এই দুটার মধ্যে পার্থক্য কি?

ফ্রীলেঞ্চিং শব্দটির বাংলা আভিধানিক অর্থ  “মুক্ত পেশাজীবী”। ফ্রীলেঞ্চিং শব্দটির প্রথমেই “ফ্রী” কথাটি আছে যার মানে হল এটি পুরোপুরি স্বাধীন একটি পেশা। ফ্রীলেঞ্চিং মানে স্থায়ীভাবে কোন কম্পানি বা কোন বাক্তির অধীন না থেকে নিজের পছন্দের কাজ, নিজের পছন্দের কৌশলে, নিজের সুবিধামত সময়ে (শর্ত প্রযোজ্য)  করা। এখানে আপনি যেকোনো একটি কাজের বিষয়ে দক্ষ হলে সেই একই কাজটি আলাদাভাবে বিভিন্ন বাক্তির কাছে বিক্রি করে ইনকাম করতে পারবেন। যেমন আপনি যদি ওয়েব ডিজাইনার হন, আপনি একটি ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডিজাইন করে সেটি বার বার বিক্রি করে আয় করতে পারবেন।

আউটসোর্সিং মানে হচ্ছে নিজের ঘরে থেকে অনলাইনে আপনি আপনার দেশের/শহরের বাইরে থেকে আয় করবেন। সেই অর্থে সব ফ্রীলেঞ্চিং কাজ আউটসোর্সিং ের মধ্যে পরে, যেহেতু সব দেশেই পর্যাপ্ত সংখ্যক ক্লাইন্ট (ফ্রীলেঞ্চিং এ ক্লাইন্ট মানে যে আপনাকে কাজ দিবে) থাকে না এবং বেশির ভাগ ফ্রীলেঞ্চার বিদেশি ক্লাইন্টের সাথে কাজ করে। তবে এই দুইতির পার্থক্য হল আপনি অনলাইনে কাজ করে আপনার পাশের বাসার লোকটির কাছ থেকেও আয় করতে পারেন, তাহলে সেটি ফ্রীলেঞ্চিং হবে কিন্তু আউটসোরচিং হবে না।

ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কি কি সাধারন যোগ্যতা অবশ্যই থাকতে হবেঃ

১. ফ্রিল্যান্সিং এর প্রথম এবং প্রধান শর্ত অবশ্যই আপনাকে ইংরেজি ভাষার সঠিক ব্যবহার জানতে হবে। অনেকেই মনে করতে পারেন ইংরেজি তো আমি কথায় কথায় বলি। কিন্তু জনাব, কথায় কথায় ইংরেজি বলা আর একজন বিদেশির সাথে ইংরেজিতে তথ্য আদান প্রদান করা এক কথা নয়। বাংলিশ (বাংলা + ইংলিশ) ভাষা দিয়ে আর যাই হোক ফ্রীলেঞ্চিং হয় না।

আবার অনেকেই ইংরেজি জানেন কিন্তু সেটার সঠিক ব্যবহার জানেন না। ফ্রীলেঞ্চিং এ সফল হতে হলে অবশ্যই ইংরেজিতে পুরোপুরি দক্ষ হতে হবে, এর কোন বিকল্প নাই। এবার আসুন সঠিক ব্যবহার না হলে ভাষার মানে কি দাঁড়ায় সেটার উপর একটা ভিডিও দেখে আসি। সবাই চোখ, কান (বাকি যা যা আছে সবকিছু) খোলা রেখে দেখবেন।

২. ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে অবশ্যই কঠোর পরিস্রম করার মানসিকতা থাকতে হবে। যেসব বাবু সাহেবরা চিন্তা করতেছেন খাবো, ঘুমাবো, বন্ধুদের সাথে আড্ডা মারব তারপরও মাসে হাজার হাজার ডলার আয় হবে, তাদের বলি কঠোর পরিস্রম ছাড়া কোন সফল ফ্রীলেঞ্চার আজ পর্যন্ত তৈরি হয়নি এবং ভবিষ্যতেও হবে না, ১০০% গারান্টি।

৩. আপনাকে প্রচণ্ড ধৈর্যশীল হতে হবে কারন প্রথম জবটা পাওয়া কিছুটা হলেও কষ্টকর। তবে আপনি সত্যিকার অর্থে একটি কাজে দক্ষ হলে এই সময়টা খুব বেশি না। চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে যতক্ষণ না সফল হন। আর যেকোনো সাহায্যের জন্য আমরা ত আছিই।

৪. আপনাকে সৎ হতে হবে, অসৎ কেউ অন্য যাই করুক ফ্রীলেঞ্চিংে সফল হতে পারবে না। আপনি ২ ঘণ্টার কাজ ৫ ঘণ্টায় করলে হয়ত পেমেন্ট পাবেন কিন্তু বায়ার (ক্লাইন্ট) আপনাকে একটা খারাপ ফিডব্যাক দিলে সেটা আপনার পুরো ফ্রীলেঞ্চিং ক্যারিয়ার ধ্বংসের কারন হয়ে উঠতে পারে।

৫. জব করার সময় আপনি এমন কিছু প্রবলেম এ পড়বেন যা থেকে কিভাবে উদ্ধার পেতে হবে সেটা আপনার নিজেরই খুজে বের করতে হবে, দুনিয়ার কোন ট্রেনিং সেন্টার আপনাকে এগুলি শিখাতে পারবে না । (আপনার মাথায় ১.৫ কেজি ওজনের একটা মগজ দিছে, আর আপনি সেটা কাজে লাগাইবেন না এইটা কোনো কথা…!)

৬. যত বিপদেই পড়েন মাথা গরম করবেন না, যে কোন পরিস্থিতিতে ঠাণ্ডা মাথায় সিদ্ধান্ত নিবেন। (কাজ করতে বসার সময় আইস ব্যাগ মাথায় লাগাইয়া রাখতে পারেন)

৭. নিজের উপর বিশ্বাস রাখেন যে আপনি পারবেন, আপনি পারেন, যদি নিজেই মনে করেন যে আপনি পারবেন না তাহলে আপনি জীবনেও পারবেন না ।

৮. সর্বশেষ এবং সবচেয়ে গুরুপ্তপূর্ণ পরামর্শ; মার্কেটপ্লেচ কাজ শেখার জায়গা না, কাজ করার জায়গা। যদি ভাবেন “কাজ করতে করতে সওওব শিখা ফালামু” তাহলে আপনি ভুল ভাবছেন। যদিও কিছু কিছু ক্লাইন্ট কাজ শুরুর আগে সব শিখাইয়া দেয়, কিন্তু পরের ভরসায় চরে যাওয়া কি ঠিক??

ফ্রিল্যান্সিং কাদের জন্য উপযোগী?

  • ছাত্রদের জন্য, তবে লেখাপড়ার ক্ষতি হয় এমন কাজ কখনো করবেন না। লেখাপড়া এবং আপনার নিত্য প্রয়োজনীয় সব কাজ ঠিক রেখে ফ্রিল্যান্সিং করবেন। তবে (উপরের ২ নং পয়েন্ট পড়ুন)।
  • বেকারদের জন্য, পড়াশুনা শেষ করে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছেন চাকরির খুজে। যে কয়দিন চাকরি খুজে বায় করবেন সেই কয়দিনে একটি ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষন নিন। কথা দিচ্ছি আপনাকে চাকরি খুজতে হবে না, একসময় চাকরি আপনাকে খুজবে। (দরকার হলে আপনার বাসায় গিয়ে হাজির হবে)
  • গৃহিণীদের জন্য, আপনি কি সারাদিনে রান্নাবান্না ছাড়া বাকি সময় টিভি (ইন্ডিয়ান সিরিয়াল) দেখে ব্যয় করেন। ওইসব বাদ দিয়ে আজই শুরু করে দিন ফ্রিল্যান্সিং , আপনার নিজের একটি পরিচয় তৈরি করুন।
  • প্রতিবন্ধীদের জন্য (চলাচলে অক্ষম), আপনার উপরের সবগুলো সাধারন যোগ্যতা আছে কিন্তু শারীরিক প্রতিকুলতার কারনে চাকরি/ বাবসা করতে পারছেন না। নো টেনশন, যেকোনো একটি বিষয়ের কাজে নিজেকে দক্ষ করে তুলুন এবং শুরু করে দিন ফ্রিল্যান্সিং । দেখবেন অনেকে ৯টা-৫টা চাকরি করেও আপনার সমান আয় করতে পারবে না।
  • অবসরপ্রাপ্ত চাকরিজীবী দের জন্য, আপনি চাকরি থেকে অবসর গ্রহন করেছেন কিন্তু এখনও পুরোপুরি কর্মঠ এবং চাইছেন নিজের/পরিবারের জন্য কিছু আয় করে সাহায্য করতে। তাহলে ফ্রিল্যান্সিং আপনারই জন্য।

freelance1 ফ্রিল্যান্সিং শিখুন অনলাইনে সম্পূর্ণ ফ্রী। part-1,

প্রচলিত চাকরি থেকে ফ্রিল্যান্সিংয়ের সুবিধা গুলো কি কি?

১. আমাদের দেশে ঘুষ ছাড়া চাকরি পাওয়া একটা অসাধারন বিষয় (যেহেতু সাধারন নয়, তবে কারো কারো যে হয়নি তেমন না)। আর ফ্রীলেঞ্চিং শুরু করতে এক পয়সাও খরচ নাই, মার্কেটপ্লেচ তখনই চার্জ কাটে যখন আপনি ইনকাম করেন। (কোথায় কত চার্জ জানতে পারবেন পরবর্তী পার্টে)

২. চাকরি করলে সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে বাথরুম, গোসল, নাস্তা (সব দৌড়ের উপর) করতে হবে তারপর বাসের হান্ডেল ধরে ঝুলে ঝুলে অফিসে যেতে হবে। আর ফ্রীলেঞ্চাররা বাসায় বসে বসে (দরকার হলে শুয়ে শুয়ে) কাজ করবে। বাইরে যেতে হলে সাথে একটা ল্যাপটপ আর ইন্টারনেট কানেকশন থাকলেই হলো।

৩. যারা চাকরি করেন তারা টাকার বিনিময়ে জীবনের নির্দিষ্ট কিছু সময় বিক্রি করে দিচ্ছেন। ওই সময়ে পূর্ব অনুমতি না নিয়ে কোন জরুরি দরকার হলেও ছুটে যেতে পারবেন না। কিন্তু ফ্রীলেঞ্চাররা নিজের পছন্দ মত সময়ে কাজ করতে পারেন, শুধুমাত্র নিরধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করলেই হল।

৪. প্রচলিত ধারার চাকরিতে আপনি একটি নির্দিষ্ট গন্ডির মধ্যে বন্দি থাকবেন এবং কয়েক জন পরিচিত লোকের সাথে কাজ করবেন। পক্ষান্তরে ফ্রীলাঞ্চাররা বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন ধরনের মানুষের সাথে কাজ করার সুযোগ পায়। এতে তাদের আন্তর্জাতিক একটা পরিচিতি তৈরি হয় এবং সারা বিশ্বের বিভিন্ন সভ্যতা ও সংস্কৃতি সম্পর্কে জানার সুযোগ পায়।

৫. ফ্রিল্যান্সিং একজন যেই ধরনের কাজে দক্ষ সে সেই ধরনের কাজ করার সুযোগ পায়। পক্ষান্তরে প্রচলিত ধারার চাকরিতে আপনারা এমন অনেক উদাহরন দেখবেন যেটা প্রকৃতপক্ষে হাস্যকর। যেমন আমি একজনকে চিনি যে ফার্মাসি বিষয়ে লেখাপড়া শেষ করে একটা কম্পানির মার্কেটিং বিভাগে কাজ করছে।

৬. প্রচলিত ধারার চাকরিতে আপনি আপনার বস কে স্যার বলে সম্বধন করেন এবং আপনার সাথে তার সবসময় একটা দুরত্ত থেকেই যাবে। আর ফ্রীলেঞ্চিংএ সবাই (ফ্রীলেঞ্চের এবং ক্লাইন্ট) নাম নিয়ে সম্বধন করতে পছন্দ করে। এতে তাদের মধ্যে বন্ধুত্ত সুলভ এবং সহজগিতার সম্পর্ক তৈরি হয়।

পরবর্তী পর্বে যা যা থাকছেঃ

  • ফ্রিল্যান্সিং শিখতে হলে যেসব সাধারন বিষয় / টুলস সম্পর্কে জানতে হবেঃ
  • ফ্রীলেঞ্চ মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে ধারনা, কোন মার্কেটপ্লেসটি আপনার জন্য পারফেক্টঃ
  • মার্কেটপ্লেসএ একাউন্ট করতে আপনার কি কি থাকতে হবেঃ
  • একই কম্পিউটার থেকে অনেকের একাউন্টে কাজ করা উচিত কিনা? এই সম্পর্কে বিস্তারিতঃ

অনলাইন ফ্রীলাঞ্চিং কোর্সের প্রথম পরব এখানেই শেষ করছি। কোর্স সম্পর্কিত যেকোনো প্রশ্ন করতে এবং আমাদের পরবর্তী পোস্ট সম্পর্কে আপডেট পেতে যোগ দিন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে। এই টিউটরিয়ালটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছে ইংরেজিতে এইখানে। এই টিউটরিয়ালটি সম্পূর্ণ বাংলায় পিডিএফ ফাইলে ডাউনলোড করুন এইখানে।

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ