দেশীয় প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন স্মার্টফোনের মূল্য বৃদ্ধি !!

1
499

(প্রিয় টেক): ২০১৪-১৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে হ্যান্ডসেট আমদানির উপর ১৫% শুল্কবৃদ্ধির প্রস্তাব দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত । দেশীয় শিল্পের বিকাশে এই পদক্ষেপ নিয়েছিলেন বলে বাজেট বক্তৃতায়  জানিয়েছিলেন তিনি। তার এ ঘোষণার সাথেই সাথেই বাজারে বৃদ্ধি পেয়েছিলো বেশকিছু বিদেশী কোম্পানীর স্মার্টফোনের দাম ! আর এবারে স্মার্টফোনের মূল্যবৃদ্ধির তালিকায় যুক্ত হলো দেশীয় প্রতিষ্ঠান ওয়ালটনের নাম !

সম্প্রতি তাদের ওয়েবসাইট থেকে জানা গেছে যে, তারা তাদের বেশ জনপ্রিয় ৪টি মডেলের স্মার্টফোনের মূল্য কিছুটা বাড়িয়েছে। মূল্য বৃদ্ধি পাওয়া এসব স্মার্টফোনের মডেল হলো – Primo GH2, Primo GH+, Primo H3 এবং Primo R3 ! মডেলভেদে এসব স্মার্টফোনের দাম ২০০ টাকা থেকে শুরু করে ১,০০০ টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে।

10417536_739076006149634_5973853150885756775_n দেশীয় প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন স্মার্টফোনের মূল্য বৃদ্ধি !!

 

প্রিমো জিএইচ২ : ১ গিগাবাইট র‍্যাম ও ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রসেসরের এই ফোনটি বাজারে আসার স্বল্পতম সময়েই এর স্বল্পমূল্যের কারণে বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছিলো। ১০,০০০ টাকা বাজেটের মধ্যে স্মার্টফোন কিনতে আগ্রহী ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায় শীর্ষেই ছিলো মাত্র ৯,২৯০ টাকা মূল্যের এই ফোন ! তবে সম্প্রতি এর মূল্য ২০০ টাকা বাড়িয়ে ৯,৪৯০ টাকা নির্ধারণ করেছে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ।

 

প্রিমো জিএইচ+ : প্রয়োজনীয় সব ফিচারের পাশাপাশি দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারী ও BSI সেন্সরযুক্ত ক্যামেরাসমৃদ্ধ এই ফোনটির পূর্বমূল্য ছিলো ১০,৫৯০ টাকা ! কিন্তু সম্প্রতি এর দাম ৫০০ টাকা বাড়িয়ে করা হয়েছে ১০,৯৯০ টাকা

 

প্রিমো এইচ৩ :  আইপিএস ডিসপ্লে, কোয়াডকোর প্রসেসর, অ্যান্ড্রয়েড কিটক্যাট প্রভৃতি ফিচারসমৃদ্ধ অনন্য এক স্মার্টফোন ওয়ালটন Primo H3; স্পেসিফিকেশনের তুলনায় দাম খানিকটা কম হওয়ায় (১১,৪৯০ টাকা) অত্যন্ত দ্রুততার সাথেই বাজারে বেশ শক্ত অবস্থান তৈরী করেছিল এই ফোন। তবে এর দাম ১,০০০ টাকা বেড়ে বর্তমানে মূল্য হয়েছে ১২,৪৯০ টাকা

 

প্রিমো আর৩  – কোয়াডকোর প্রসেসর সমৃদ্ধ নতুন এই স্মার্টফোনটির বিশেষ দিক হলো এতে আলট্রা শার্প এইচডি ডিসপ্লে ব্যাবহার করা হয়েছে, যা ব্যবহারকারীকে দিবে আরও উন্নত মাল্টিমিডিয়া এক্সপেরিয়েন্স। ১ গিগাবাইট র‍্যামের নতুন স্মার্টফোনটিতে বেশ ভালো মানের ছবি তোলা নিশ্চিত করতে যেমন রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা, তেমনি সেলফি তোলা কিংবা ভিডিও কল –  এসবের জন্য রয়েছে ২ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা।

তবে বাজারে আনার সময় এই ফোনের মূল্য ১২,৮৯০ টাকা নির্ধারণ করা হলেও সম্প্রতি এর মূল্য ৬০০ টাকা বাড়িয়ে ১৩,৪৯০ টাকা নির্ধারণ করেছে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ।

 

আমদানিকৃত স্মার্টফোনের উপর শুল্ক বৃদ্ধির ব্যাপারে অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, “দেশে কিছু কোম্পানি উন্নত মানের মোবাইল ফোন সংযোজন করছে। তাদের উৎপাদন পর্যায়ে ১৫ শতাংশ মূসক দিতে হচ্ছে। অথচ আমদানি পর্যায়ে মোবাইল ফোনে শুধু ১০ শতাংশ শুল্ক প্রযোজ্য আছে। এর ফলে দেশীয় সংযোজন কোম্পানিগুলো অসম প্রতিযোগিতার সম্মুখীন হচ্ছে ।” দেশীয় সংযোজন কোম্পানিগুলোর জন্য লেভেল-প্লেয়িং ফিল্ড তৈরীর জন্যই শুল্ক বৃদ্ধি করা হয়েছে বলে জানান অর্থমন্ত্রী। তবে দেশীয় কোম্পানী হয়েও ওয়ালটন কেনো তাদের হাতেগোনা কয়েকটি মডেলের স্মার্টফোনের দাম বাড়ালো – এমন প্রশ্ন অনেকেরই মনে ! এবিষয়ে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষের নিকট হতে এখন পর্যন্ত কোন ধরণের বিবৃতি পাওয়া যায়নি।

Our FB Page:https://www.facebook.com/BDearntips

MY BLOG SITE : http://edustro.blogspot.com/

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ