নতুন অপারেটিং সিস্টেম তৈরির ঘোষণা দিয়েছে চীনা তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়

0
278

তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ক্রমেই এগিয়ে যাচ্ছে চীনা প্রতিষ্ঠানগুলো। সম্প্রতি উইন্ডোজ এক্সপি বন্ধ হওয়ার পর নিজেদের তত্ত্বাবধানে নতুন অপারেটিং সিস্টেম তৈরির ঘোষণা দিয়েছে চীনা তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়। মাইক্রোসফটের এ সিদ্ধান্তের কারণে বেশ সমস্যায় পড়ে চীনা প্রতিষ্ঠানগুলো।
কেননা চীনের ৭০ শতাংশ ব্যক্তিগত কম্পিউটারই এ অপারেটিং সিস্টেমটি ব্যবহার করে থাকে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে টেলিযোগাযোগ খাতের মতো স্পর্শকাতর প্রতিষ্ঠানগুলোর কম্পিউটারও। চীনা তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রধান প্রকৌশলী জেং ফ্যাং জানান, উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম বন্ধ হওয়ার ফলে তাদের টেলিযোগাযোগ খাত নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এ সমস্যা সমাধানে নতুন একটি অপারেটিং সিস্টেম তৈরি করতে প্রয়োজনীয় সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে তারা। অপারেটিং সিস্টেমটি হবে লিন্যাক্সভিত্তিক, যেখানে সর্বময় ক্ষমতা চীনা কর্তৃপক্ষ নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে।

internet-users-china নতুন অপারেটিং সিস্টেম তৈরির ঘোষণা দিয়েছে চীনা তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়
আর এর পাশাপাশি চলতি বছরের মধ্যেই ভারতসহ বিশ্বের দশটি দেশে নিজেদের কার্যক্রম প্রসারের ঘোষণা দিয়েছে ‘চীনা অ্যাপল’ নামে পরিচিত স্মার্টফোন নির্মাতা কোম্পানি জিয়াওমি।
অপারেটিং সিস্টেম তৈরির পাশাপাশি স্মার্টফোন তৈরির দিক দিয়েও এগিয়ে যাচ্ছে চীনা কোম্পানিগুলো। চলতি বছরের মধ্যে তারা ভারতসহ বিশ্বের দশটি দেশে নিজেদের কার্যক্রম প্রসারিত করতে যাচ্ছে। ভারত ছাড়া চলতি বছরের মধ্যে জিয়াওমির সম্প্রসারণ তালিকায় থাকা অন্য দেশগুলো হলো— মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম, রাশিয়া, তুরস্ক, ব্রাজিল ও মেক্সিকো।
ভারতের বাজারে ব্যবসা প্রসারের জন্য সে দেশের মোবাইল অপারেটর কোম্পানিগুলোর সঙ্গে আলোচনা ও চুক্তি করেছে জিয়াওমি। পাশাপাশি নিজেদের ই-কমার্স সাইটের মাধ্যমে প্রতিযোগিতামূলক দামে স্মার্টফোন বিক্রি করবে। চলতি বছর বিশ্বব্যাপী ৪ কোটি স্মার্টফোন বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে জিয়াওমি, যা গত বছর তাদের বিক্রীত স্মার্টফোন সংখ্যার দ্বিগুণেরও বেশি।

একটি উত্তর ত্যাগ