আপনার স্লো এবং পুরনো পিসিকে আরো ফাস্ট করতে ৭টি টিপস

0
498

অনেকেই তাদের কম্পিউটার ধীর গতির কারণে বিরক্তিকর অবস্থায় আছেন। কিন্তু আপনি আপনার কম্পিউটারের গতি বাড়িয়ে দিতে পারবেন কিছু বিষয় খেয়াল রাখলেই!

নানা কারণে আপনার প্রিয় কম্পিউটারের গতি কমে যেতে পারে ফলে আপনি পড়তে পারেন বিড়ম্বনায়। অনেকেই ভাবেন কেবল কম্পিউটারে বেশী রেম লাগালেই বুঝি এর গতি বেড়ে যাবে বিষয়টি আংশিক ঠিক তবে অনেক ক্ষেত্রে বেশী রেম লাগানর পরও আপনার কম্পিউটার হতে পারে ধীর গতির। চলুন জেনেনিই কিভাবে আপনি আপনার কম্পিউটারের গতি বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

ডুপ্লিকেট ফাইল সমূহ মুছে ফেলুনঃ
অনেক সময় নানান কারণে একই ফাইল বেশ কয়েকবার কপি হয়ে থাকে ফলে কম্পিউটারে যায়গা বেশী নেয়। বিশেষ করে এক এক ফাইল এক এক ফোল্ডারে গিয়ে জমা হয় যা নিজের পক্ষে খুজে নেয়াও অনেক ঝামেলার বিষয়। আপনি অপ্রয়োজনীয় যেসব ফাইল একের অধিক আপনার কম্পিউটারে রয়েছে তা খুজে নেয়ার জন্য easyduplicatefinder.com থেকে সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে নিতে পারেন এতে আপনার পক্ষে ঝামেলায় না পড়ে আপনার কম্পিউটারে থাকা ডুপ্লিকেট ফাইল সমুহ খুজে নিয়ে ডিলিট করে দেয়া সহজ হবে। অনেক সময় একই ছবি দুই বা তার অধিকবার কপি হয়ে থাকে বিভিন্ন ফোল্ডারে ফলে আপনার পক্ষে তা খুজে পাওয়া অনেক ঝামেলা আপনি duplicatephotocleaner.com থেকে সফটওয়্যারটি নামিয়ে এর সাহায্যে খুব সহজে ডুপ্লিকেট ছবি খুজে নিয়ে ডিলিট করে দিতে পারবেন ফলে আপনার কম্পিউটারের যায়গা আগের চেয়ে অনেক বাড়বে।

টেম্পোরারি ফাইল সমূহ মুছে ফেলুনঃ

টেম্পোরারি ফাইল হচ্ছে এমন এক ধরণের ফাই যা আমাদের অজান্তেই কম্পিউটারে যোগ হয়ে যায়। এটি অনেক সময় হিডেন থাকে ফলে খুজে পাওয়া যায়না। টেম্পোরারি ফাইল সমূহ আপনার কম্পিউটারে তখন যোগ হয় যখন আপনি কোন ব্রাউজারে ইন্টার নেট ব্যাবহার করছেন কিংবা কোন ফাইল ডাউনলোড করছেন। অনেক সময় নতুন সফটওয়্যার ইন্সটল করার সময়ও টেম্পোরারি ফাই সমূহ তৈরি হয়ে যায়। দীর্ঘদিন ধরে টেম্পোরারি ফাইল সমূহ তৈরি হতে হতে আপনার কম্পিউটারে অনেক যায়গা দখল করে নেয় ফলে আপনার কম্পিউটার অনেকটা ধীর গতির হয়ে যায়। আপনি টেম্পোরারি ফাইল ডিলিট করতে (piriform.com/ccleaner) সিসিক্লিঞ্জার নামে সফটওয়্যার ডাউনলোড করে নিতে পারেন। আপনি যদি ম্যাক ব্যবহারকারী হন তবে OnyX নামের সফটওয়্যারটি (titanium.free.fr) থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

অপ্রয়োজনীয় শটকাট সমূহ ডিলিট করে দিনঃ

বিভিন্ন ধরণের সফটওয়্যার ইনিস্টল করার কারণে অনেক সময় নানান সফটওয়্যারের শটকাট ফোল্ডার তৈরি হয়ে যায় যা ডিলিট না করার ফলে জমতে থাকে এমন আপনার কম্পিউটার ধীর গতির করে দেয়। আপনি যদি উইন্ডোস এক্সপি ব্যাবহারকারি হন তবে এতে স্বয়ংক্রিয় অব্যবহারিত শটকাট ডিলিট করার সফটওয়্যার দেয়া আছে তবে আপনি যদি উইন্ডোস ভিস্তা , ৭, অথবা ৮ ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন তবে Bad Shortcut Killer নামের এই সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারেন।

নিয়মিত ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্ট করুনঃ

আপনি দীর্ঘদিন আপনার কম্পিউটার ব্যবহার করার ফলে একবার ভেবে দেখুন তো কত অসংখ্য ফাইল ফোল্ডার কপি, ডিলিট কিংবা মুভ করছেন? অসংখ্য বার আপনি এসব করছেন ফলে আপনার কম্পিউটারের ডিস্কে তৈরি হচ্ছে ফ্রাগমেন্টেড ফাইল। আপনি এসব ফাইল ডিফ্রাগমেন্ট না করলে এক সময় আপনার কম্পিউটার অনেক ধীর গতির হয়ে যাবে। robust Defraggler হচ্ছে ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্ট করার ক্ষেত্রে বিশেষ উপকারী একটি সফটওয়্যার যা আপনি (piriform.com/defraggler) থেকে নামিয়ে নিতে পারবেন। এদিকে ম্যাক ব্যবহারকারীদের জন্য ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্ট করার প্রয়োজন নেই।

কম্পিউটার ওপেন হওয়ার গতি বাড়ানঃ

আপনার কম্পিউটারে যখন অনেক সফটওয়্যার ইন্সটল করা থাকে তখন এটি খুব ধীর গতির হয়ে যায় ফলে ওপেন বা অফ হতে অনেক সময় নেয়। আপনি চাইলেই খুব সহজে এই সমস্যা দূর করতে পারেন। এর জন্য (soluto.com) থেকে soluto নামক সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে নিতে পারেন। এটি আপনার কম্পিউটারের ওপেন হওয়ার সময় হিসেব করে দেখবে এবং অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার যার ফলে আপনার কম্পিউটারের গতি কম তা বন্ধ করে দিবে।

রেজিস্ট্রিগত সমস্যাঃ

বেশীরভাগ কম্পিউটারের মূল সমস্যা হচ্ছে এর সফটওয়্যার রেজিস্ট্রেশান বিহীন অর্থাৎ পাইরেটেড যার ফলে কম্পিউটারের গতি অনেক কমে যায়। আপনি চাইলে glarysoft .com/registry-repair থেকে Registry Repair নামক সফটওয়্যার দিয়ে এই সমস্যা দূর করতে পারেন।

একের ভেতরে সব সমস্যার সমাধানঃ আপনি চাইলে সকল সমস্যার সমাধান এক সাথে করে নিতে পারেন। TuneUp Utilities নামক সফটওয়্যার ব্যবহার করে আপনি এক সাথে সকল সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন। এই সফটওয়্যার আপনাকে টাকা দিয়ে কিনতে হবে আপনি চাইলে (tune-up.com) থেকে এটি কিনে নিতে পারেন।

একটি উত্তর ত্যাগ