ডিজিটাল পদ্ধতিতে পরীক্ষার মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সম্ভাবনা পুরোপুরি দূর করা সম্ভব

0
302

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ডিজিটাল পদ্ধতিতে পরীক্ষার মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সম্ভাবনা পুরোপুরি দূর করা সম্ভব।

সরকারের লিভারেজিং আইসিটি ফর গ্রোথ, এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড গভর্নেন্স (এলআইসিটি) প্রকল্পের উদ্যোগে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) কেন্দ্রে ভবিষ্যৎ আইটি লিডার (ফাস্ট ট্রাক ফিউচার লিডার) বাছাইয়ের দিতীয়দিনের অনলাইন পরীক্ষা পর্যবেক্ষণ শেষে প্রতিমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

Visiting_Online_826114298 ডিজিটাল পদ্ধতিতে পরীক্ষার মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সম্ভাবনা পুরোপুরি দূর করা সম্ভব
তিনি বলেন, দেশের সাড়ে ৬ হাজার স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে আইটি শিল্প ও প্রতিষ্ঠানে চাকরির উপযোগী করে গড়তে  অনলাইনে যে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার আয়োজন করেছে এলআইসটি তা প্রচলিত ধারার পরীক্ষা থেকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে উত্তরণের পথ দেখাতে পারে। কারণ ডিজিটাল পদ্ধতিতে পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের কোন সুযোগ নেই।

এ পদ্ধতিতে পরীক্ষা শুরু করার সময় কিছু সমস্যা ও সীমাবদ্ধতা থাকতে পারে, তবে তা কাটিয়ে উঠাও সম্ভব। এছাড়া পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) পরীক্ষাসমূহ ডিজিটাল পদ্ধতিতে হলে চাকুরি প্রার্থীদের ডিজিটাল মানসিকতা তৈরিতে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করেন তিনি।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) সভাপতি শামীম আহসান ও এলআইসটি প্রকল্প পরিচালক মো. রেজাউল করিম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

দ্বিতীয় দিনের পরীক্ষায় প্রায় ৯০০ জন পরীক্ষার্থী যার মধ্যে ঢাকায় ৮৪০ জন এবং রাজশাহী ও চট্টগ্রামে বাকিরা অংশগ্রহণ করে।

পরীক্ষায় উত্তীর্নদের বিভিন্ন আইটি প্রতিষ্ঠানে সফটওয়্যার ডেভলপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন ও বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং (বিপিও), ম্যানেজমেন্ট এবং আইটি সাপোর্ট সার্ভিসে প্রশিক্ষণের জন্য মনোনীত করা হবে। আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন কারিকুলাম অনুসরণ করে এক মাসের আবাসিক ও দুই মাসের ট্রাক ভিত্তিক বিশেষায়িত বেসিক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ