DSLR লেন্স সমূহের বিষয়ে কিছু কথা।

0
637
DSLR লেন্স সমূহের বিষয়ে কিছু কথা।

AminVideoEditor

আমি #আমিন আমি একজন Short Film Maker, ভিডিও এডিটর। বর্তমানে ভিডিও এডিটিং পেশায় যুক্ত রয়েছি। www.advertisebd.com সাইটে কাজ করছি। আমার ফেসবুক পেজ : www.facebook.com/AminIslamFilmMaker
আমার ইউটিউব : https://www.youtube.com/channel/UCqknMJEJIzDLxqw5W3LTF3w
DSLR লেন্স সমূহের বিষয়ে কিছু কথা।

এনালগ ফটোগ্রাফির সুন্দরতম দিন 

একক লেন্স রিফ্লেক্স, বা SLR, পেশাদার এবং Dedicated hobbyist দের জন্য পছন্দের টুল ছিল। ডিজিটাল প্রযুক্তি ডিজিটাল SLR তৈরি করেছে যা সাশ্রয়ী এবং একজন অপেশাদার ফটোগ্রাফারের পক্ষেও ব্যাবহার উপযোগী। অনেক ভোক্তা শ্রেণীর DSLR আছে যেমন নিকন D60। আমি প্রায় দুই বছর আগে এটি কিনেছিলাম ছবি তোলার জন্য যার সাথে ছিল একটি জুম এবং একটি কিট লেন্স। কিট লেন্স বহুমুখী কিন্তু অনেকেই এর সঠিক ব্যবহার করতে পারেন না, এটা মূলত কারো দোষ নয়। আমি নিকনের অনেক রকমের লেন্স কিনি এবং ফটোস্যুট করতে বেড়িয়ে পড়ি। আমার অভিজ্ঞতা থেকে আমি বলতে পারি যে কিভাবে একটি লেন্স তার বহুমুখিতার মাধ্যমে ছবিকে আর সুন্দর করে তুলে।

ফোকাল দৈর্ঘ্য (বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন)
ব্যারেল লেন্সের দিকে একটু লক্ষ্য করুন এবং আপনি 18-55 মিনি বা এই ধরনের একটি পরিমাপ বা পরিসীমা দেখতে পাবেন। ওইটা আপনার লেন্সের ফোকাল দৈর্ঘ্য যা আপনার লেন্স এবং সেন্সরের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টি করে। ভিন্ন ধরনের সেন্সরের মাপ একে একটু বাকাতে পারে, সাধারণভাবে লম্বা ফোকাল লেন্থ telescope এর মত কাজ করে, ছোট ফোকাল লেন্থ সম্পূর্ণ কন বিশিষ্ট ফোটোগ্রাফির জন্য ব্যবহার করা হয়।

F-স্টপ (বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন)
প্রতিটি লেন্সের ব্যারেলে ছাপানেো হওয়া রেটিং হোল F-স্টপ। F-স্টপ লেন্সের অ্যাপারচারের ব্যাস নির্দেশ করে, যা লেন্সে কতোটুকু পরিমান আলো প্রবেশ করবে তা নির্ধারণ করে। F-স্টপকে প্রথমে কম নম্বরের counter intuitive বলে মনে হয়, লেন্স এর অ্যাপারচার সরাসরি পরিমাপ হয় না কিন্তু লেন্স এর অ্যাপারচার বোঝাতে ফোকাল লেন্থ দ্বারা বুঝানো হয়। এছাড়া, লেন্সের গায়ে ছাপানো হয় সর্বনিম্ন সম্ভব F-স্টপ, বা widest অ্যাপারচার। জুম লেন্স উপর, সর্বোচ্চ অ্যাপারচার f/3.5-5.6- হিসাবে একটি পরিসীমা পর্যন্ত উল্লেখ করা হয়েছে, কারণ আপনি যদি জুম হিসাবে, সর্বোচ্চ F- স্টপ ব্যবহরা করেন তবে, ফোকাস দৈর্ঘ্য পরিবর্তন হবে। এর আসল রেঞ্জ হচ্ছে f/22 থেকে f/1.4 পর্যন্ত, যার সেটিং f/11, f/5.6 এবং f/2.8 এর মধ্যে। প্রতিটি ক্রমবর্ধমান স্টপ অ্যাপারচার এর আয়তনের দ্বিগুণ।

Zooms (বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন)
প্রায় সব DSLR এর সাথেই জুম এবং কিট লেন্স থাকে। যেটা কিনা খুবই বহুমুখী একটি সংমিশ্রণ। আমার D60 18–55 mm এর লেন্স ছিল। 18 mm ছিল এটার ছোট ফোকাল দৈর্ঘ্য। জুম লেন্স অন্যান্য লেন্সের তুলনায় একটু আলাদা হয়। এর কনফিগারেশনের মধ্যেও বিভিন্ন ধরনের variety থাকে। Wide-angle জুম 10 mm থেকে 24 mm ফোকাল লেন্থ পর্যন্ত কভার করতে পারে। টেলিফটো জুম লেন্স 55 mm থেকে 200 mm পর্যন্ত কভার করতে পারে।

Prime Lenses (বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন)
প্রাইম লেন্সের ফিক্স ফোকাল দৈর্ঘ্য আছে এবং ফোটোগ্রাফিকে একটি নির্দিষ্ট ধরনের জন্য অপ্টিমাইজ করা হয়। প্রাইম লেন্সের রেঞ্জ 10.5 mm থেকে 600 mm এর মধ্যে হয়। এই তুলনা বিবেচনা করুন: এর সর্বাধিক ফোকাস দৈর্ঘ্য এ, নিকন এর 18-55-মিমি কিট লেন্স f/5.6 এ রেট করা হয়. একটি Nikkon 50 মিমি প্রাইম লেন্স ($ 485), অন্য দিকে, ছোট এবং বড় কাচের ব্যবহার করে, তাই এটা f/1.4 এ রেট করা হয়। নিম্ন F-রেটিং মানে হল ফিল্ডের গভীরতার উপর অধিক আলো এবং জোরালো নিয়ন্ত্রন।

Wide-Angle এবং Telephoto (বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন)
কম ফোকাল লেন্থ, কিংবা প্রশস্ত ফিল্ড লেন্থ— যেকোন কিছুই 35 mm নিচে হলে তা anything under 35 wide-angle হিসেবে বিবেচিত। এ ধরনের লেন্সে ঘরের ভেতরে ছবি তোলার জন্য উৎকৃষ্ট, যেখানে আলোটা বাধাগ্রস্থ হয়ে ফিরে আসে। কিন্তু super-wide-angle লেন্স ফটো প্রান্ত দিকে বিকৃতি সৃষ্টি করতে পারে। কিছু extreme wide-angle লেন্স হল ফিশআই লেন্স, যা বিক্রিত হয় না। বরং তারা এর সুবিধা গ্রহন করে। এর প্রভাব হতে পারে বেশ নাটকীয়, এমনকি একটু trippy। কোন বড় স্টেডিয়ামে ছবি তোলার ক্ষেত্রে ফিসআই লেন্স ভালো। অন্যদিকে টেলিফটো লেন্স এর নামের মতই অনেকটা টেলিস্কোপের মতো কাজ করে। আপনি যখন একটি দূরবর্তী বস্তু magnify করবেন, আপনি নিজেও ক্যামেরার movement করাবেন, তাই এখানে ইমেজ stabilizer অথবা ট্রাইপোড ব্যাবহার করাটা জরুরী।

ম্যাক্রো (বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন)
টেলিফটো লেন্স যদি হয় টেলিস্কোপের মতো, তবে ম্যাক্রো লেন্স হবে মাইক্রোস্কোপের মতো যা কিনা ব্যাবহার করা হয় ফুল, কীটপতঙ্গ কিংবা অন্যান্য ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্রাণীর বা জিনিসের খুব কাছ থেকে ছবি তোলার জন্য। ম্যাক্রো লেন্সের ম্যাগ্নিফিকেশন পাওয়ার যত বেশি এর ছবি তোলার কোয়ালিটি ততই ভালো হবে। লেন্স একটি ব্যয়বহুল অভ্যাসে পরিণত হতে পারে। অফ ব্র্যান্ড মডেল আপনার টাকা বাঁচাতে পারে, কিন্তু আমার অভিজ্ঞতা বলে আপনি যাই কিনবেন ভবিষ্যতে তা আপনাকে ফলাফল প্রদান করবে।

একটি উত্তর ত্যাগ