ডেস্কটপে রাখা ফাইল নিয়ে কী করবেন?

1
386

ঝটপট কাজের সুবিধার জন্য কম্পিউটারের অনেক ফাইল ইচ্ছে করেই ডেস্কটপে সংরক্ষণ করেন অনেকে। প্রচুর ফাইল আর বিভিন্ন প্রোগ্রামের শর্টকাটগুলো জমতে জমতে ডেস্কটপটা দেখতেও বিশ্রি লাগে। আবার ডেস্কটপে এভাবে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল জমা রাখাটা মোটেও নিরাপদ নয়। কোনো কারণে সিস্টেম নষ্ট বা ক্র্যাশ হওয়ার কারণে কম্পিউটার চালু না হলে সেগুলো উদ্ধার করাটা আরেক ঝামেলার কাজ। ডেস্কটপে রাখা সব ফাইল উইন্ডোজের সিস্টেম ড্রাইভে আগে থেকেই সংরক্ষণ করার ব্যবস্থা থাকে। ফলে সেই একই ড্রাইভে নতুন করে অপারেটিং সিস্টেম ইনস্টল করলে হারিয়ে যাবে আগেকার সব ফাইল। আগের কোনো তারিখে কম্পিউটারটি সিস্টেম রিস্টোর করলেও ডেস্কটপে থাকা ফাইল গায়েব হয়ে যেতে পারে। অনেক ফাইল ব্যাকআপ সফটওয়্যারে আবার ডেস্কটপে থাকা ফাইল ব্যাকআপ নেওয়ার ব্যবস্থা থাকে না।
সিস্টেম ড্রাইভ (সাধারণত C:/ ড্রাইভ) বাদ দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল ফোল্ডার অন্য ড্রাইভে রাখাটাই ভালো। তার পরও নিজের সুবিধার খাতিরে ডেস্কটপে যদি ফাইল রাখতেই চান তাহলে দুভাবে সেটা নিরাপদ করা যায়—ডেস্কটপের সব ফাইল উইন্ডোজ লাইব্রেরিতে যোগ করে বা আগে থেকে নির্ধারণ করে রাখা সিস্টেম ড্রাইভের অবস্থান পরিবর্তন করে অন্য ড্রাইভে দেখিয়ে দিলে। ফাইল এক্সপ্লোরার দিয়ে কম্পিউটার খুলে বাঁয়ে লাইব্রেরির নিচে থাকা Documents-এ ডান ক্লিক করে Properties নির্বাচন করে Include a folder বোতাম চেপে আবার বাঁয়ে থাকা ফেভারিটস থেকে Desktop দেখিয়ে দিন। তাহলে ডেস্কটপের ফাইল ডকুমেন্টসে জমা হওয়ার কারণে সেগুলো নিয়মিত ব্যাকআপ নেওয়া সহজ হবে।
দ্বিতীয় ব্যবস্থায় ডেস্কটপের ফাইল অন্য ড্রাইভে জমা রাখতে হলে Windows Key + R চেপে রান চালু করুন। রানে regedit লিখে এন্টার করুন। রেজিস্ট্রি এডিটর চালু হলে সেখান থেকে HKEY_CURRENT_USER/ Software/ Microsoft/ Windows/ CurrentVersion/ Explorer/ User Shell Folders অবস্থানে গিয়ে ডানে থাকা Desktop-এ দুই ক্লিক করে ভ্যালু ডেটা বক্সে অন্য কোনো ড্রাইভের অবস্থান দেখিয়ে দিন। যেমন ডি ড্রাইভ (D:) বা অন্য ড্রাইভে গিয়ে Desktop নামে একটি ফোল্ডার বানিয়ে রাখতে পারেন। তারপর ডি ড্রাইভের ক্ষেত্রে ভ্যালু ডেটা বক্সে লিখে দিন D:/Desktop এবং OK করুন। তারপর কম্পিউটার একবার রিস্টার্ট করুন। এখন ডি ড্রাইভের ডেস্কটপ ফোল্ডারেও নিরাপদে সুরক্ষিত থাকবে।

সময় হলে আমার ব্লগে ঘুরে আসতে পারেন:   আমার ব্লগ  অথবা আমার ব্লগ

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ