যেভাবে সিদ্ধান্ত নিবেন।

1
718

[ সবার জন্যই এটি একটি গুরুত্ব পূর্ণ পোস্ট । দয়া করে কেউ এড়িয়ে যাবেন  না ]
আপনি যদি প্রোফেসনাল ফ্রীল্যান্সার ক্যারিয়ার তাহলে প্রশিক্ষণ এর বিকল্প নেই । কিন্তু, বেশির ভাগ মানুষ কোন কিছু চিন্তা না করেই প্রশিক্ষণ এর দিকে ছুটে । যার ফলে হয় অপ্রয়োজনীয় দক্ষতার উপর প্রশিক্ষণ নেয় বা একাদিক বার প্রশিক্ষণ নিতে হয়, নতুবা কিছু না শিখেই শুধু সার্টিফিকেট নিয়ে সন্তুষ্ট থাকে। বেশির ভাগ মানুষ ফ্রীল্যান্সার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে চান পয়সার লোভে । কিন্তু পয়সার লোভ নিয়ে আগালে বেশি দূর যাওয়া যায় না । পয়সার সাথে আরেকটি জিনিস দরকার পরে আর তা হল আবেগ। আবেগ নিয়ে পয়সা কামানোর জন্য এ পেশায় প্রবেশ করতে চাইলে আপনাকে সঠিক প্রশিক্ষন নিতে হবে । আর প্রশিক্ষন নেবার আগে আপনাকে আপনার ক্যারিয়ার এর পথ ঠিক করতে হবে । মানে আপনি কি করতে চান , কোন দিকে আগাবেন ইত্যাদি ।
ক্যারিয়ার শব্দ টাকে অনেকে চাকরী সমর্থক ভাবে । কিন্তু ক্যারিয়ার আলাদা একটা জীবন , আপনার প্রোফেসনাল জীবন । জীবনের ৮ ঘণ্টা যদি ঘুম হয় , ৮ ঘণ্টা যদি ব্যাক্তিগত জীবনের জন্য হয় তাহলে আপনার ক্যারিয়ার ঘুম বাদে আপনার জীবনের অধেক । তাই ক্যারিয়ার পরিকল্পনা আপনার জীবনের পরিকল্পনার ৫০% । ক্যারিয়ার পরিকল্পনা করতে গেলে সর্ব প্রথম আপনার নিজেকে চিন্তে হবে । আপনাকে অবশ্যই আপনার দক্ষতাকে যাচাই করে নিতে হবে ।
নিজেকে প্রশ্ন করতে হবেঃ ভালো গান গাইতে , নাচতে বা আঁকা আঁকি করতে পারেন ? আমেরিকান সিটিযেন সঙ্গে সহজেই কথা বিনিময় করতে পারেন ? ভালো ট্রান্সলেশন দক্ষতা আছে ? কম্পিউটার দক্ষতা আছে ? ভালো বাণিজ্যিক ধারনা আছে ? লেখা লেখির দক্ষতা আছে ?
নিজেকে প্রশ্ন করে বের করে নিন , এমন সব দক্ষতা , যা অন্যকেউ করে দিতে টাকা নিবে । মানে এই দক্ষতা গুলু যেন বিক্রয় উপযোগী হয় সেটি বিবেচনা করতে হবে । এর পর আপনি সবচেয়ে বেশি কি পছন্দ করেন তা নির্বাচন করতে হবে । আপনি কি বেশি পছন্দ করেন তা নির্বাচন করতে প্রশ্ন গুলুর উত্তর দিনঃ কষ্টকর হওয়া সত্তেও আপনি কোন কাজটি বিনা মূল্যে করতে পারবেন ? টানা ১৪ ঘণ্টা কাজ করার পরেও আপনি কোন চাপ বোধ করবেন না ? এমন কি মাঝে মাঝে রাতের খাবার খেতে ভুলে যান ? এমনটি যদি হয়ে থাকে তাহলে আপনি কাজটিকে নিশ্চয়ই অনেক ভালবাসেন । এমন কাজ প্রয়োজনে আপনি বিনা মূল্যেও করতে পারেন । সেখানে আপনার পছন্দ জড়িয়ে আছে ।
এই প্রশ্নের উত্তরের মাধ্যমে আপনি আপনার দক্ষতা ও পছন্দের বিষয় খুজে পাবেন । এখানে বিষয় গুলু একত্র করেন এবং এটিকে আপনার ক্যারিয়ার হিসেবে গড়ে তুলতে পারেন । আপনার ক্যারিয়ার পরিকল্পনা হয়ে যাওয়ার পর, আপনাকে কি কি শিখতে হবে , সেটারও পরিকল্পনা করতে হবে । যা যা শিখতে হবে , এর মানে এইনা যে সব কিছুর প্রশিক্ষণ নিতে হবে ।
যেটা সবার জন্য বলবো গুগল কে আগে কাজে লাগাতে শিখুন । শেখান থেকে আপনি প্রাথমিক ধারনা নিন । তারপর যে গুলু জটিল মনে হয় , শুধু সে গুলুর জন্য প্রশিক্ষণ নিন । যখন আপনি জানতে বা বুঝতে পারলেন আপনি কি কি করতে চান , আর কি কি প্রশিক্ষণ নিতে চান , তখনি সে বিষয়ক এক্সপার্টদের কাছ থেকে প্রশিক্ষণ এর বিষয় টি ভাবতে পারেন ।
আমি মনে করি, আইডিয়া ছাড়া ছাড়া প্রশিক্ষণ করা মানেই টাকাটাই অপচয় করা । তাই প্রশিক্ষণের বিষয়ে আগে থেকে বেসিক ধারনা থাকা প্রয়োজন ।

#ধন্যবাদ

My Facebook Profile: http://facebook.com/shorol3g

1 মন্তব্য

  1. আপনার পোস্ট থেকে অনেক কিছু জানলাম|পোস্ট থেকে আরো জানলাম আপনার দুরদর্শী চিন্তা গুলো।এগুলো আমাদের অনেক প্রয়োজন।আপনাদের অনেক উপকারে আসতে পারে,অনেক সহজেই পেয়ে যেতে পারেন অনেক কিছু।
    Rent Apartment

একটি উত্তর ত্যাগ