গেমস জোন :: Avatar – The Game (২০০৯)

1
393
এটি 283 পর্বের গেমস জোন সিরিজ টিউনের 249 তম পর্ব
গেমস জোন :: Avatar – The Game (২০০৯)

গেমওয়ালা

হ্যালো! আমি ফাহাদ! গেমওয়ালা হয়ে টিউনারপেজে রয়েছি অনেকদিন ধরেই। আমি একজন পুরোনো টিউনার এই টিউনারপেজের। গেমস নিয়ে রয়েছি আমি তোমাদেরই সাথে। আশা করি আরো বেশ কিছুদিন থাকতে পারবো।
গেমস জোন :: Avatar – The Game (২০০৯)

তখন গেমটা খেলতে পারি নাই! পিসি তে চলে নাই। তবে এত গুলো বছর পর গেমটা খেলেই টিউন করতে বসে পড়লাম!

২০০৯ সালের সাড়া জাগানো ত্রিমাত্রিক ছায়াছবি এভাটারের অফিসিয়াল গেম নিয়ে এসেছিল ঊবিসফট। গেমটি 3rd Person একশন ভিডিও গেম এবং গেমটি ছায়াছবিটির প্রিকুয়্যাল হিসেবে কাজ করেছে। মানে ছবিটি এবং গেমটির কাহিনী একই নয়। গেমটিতে আলাদা করে থ্রিডির অপশন রয়েছে যেমনটি ক্রাইসিস ২ গেমটিতে ছিল।

গেমস জোন :: Avatar – The Game (২০০৯)

নির্মাতাঃ

ঊবিসফট মন্টিয়াল

প্রকাশকঃ

ঊবিসফট

ইঞ্জিণঃ

দুনিয়া,

হ্যাভোক

জেইড

খেলা যাবেঃ

বিভিন্ন প্লাটফর্মে

মুক্তি পেয়েছেঃ

ডিসেম্বর, ২০০৯ সালে

ধরণঃ

একশন এডভেঞ্চার

3rd person

খেলার ধরণঃ

সিঙ্গেল এবং মাল্টিপ্লেয়ার

সিস্টেম রিকোয়ারমেন্টসঃ

ডুয়াল কোর প্রসেসর,

৪ গিগাবাইট র‌্যাম,

১ গিগাবাইট গ্রাফিক্স কার্ড

উইন্ডোজ সেভেন

ডাইরেক্ট এক্স ১০

টাইটানিক, টার্মিনেটর খ্যাত পরিচালক জেমস ক্যামরন ২০০৯ সালে নিয়ে
আসেন ‘এ্যাভাটার’ নামক এক চলচ্চিত্রের যা একটি পান্ডোরা নামক এলিয়েন উপগ্রহ নিয়ে রচিত। ছবির কাহিনী নিয়েই গেম কম্পানি উবিসফ্ট(UBI Soft) চলচ্চিত্রের সংগেই নিয়ে আসে এর ভিডিও গেম। গেমটি এমনভানে তৈরী করা যেন মনে হয় গেমটি মূল চলচ্চিত্রেরই একটা অংশ।
এভাটার:দ্যা গেম, চলচ্চিত্রে দেখানো উপগ্রহতেই শুরু হয় কিন্তু গেমটি পুরোপুরি ছবির নকল নয়। বরং এটি পান্ডোরা উপগ্রহের অতীতের কথা বলে। পান্ডোরা হল এমন এক যায়গায় যেখানেই একমাত্র “উনোবটনিয়াম” নামক এক খনিজ পাওয়া যায়। দুর্ভাগ্যবশত পান্ডোরার পরিবেশ মোটেই মানুষের জন্যে উপযুক্ত নয় এবং এখানে কিছু আক্রমনাত্নক জাতি বাস করে। এদের মধ্যে রয়েছে মাংশখেকো গাছ এবং “না’ভি”, একটি এলিয়েন জাতি যারা ১০ ফুট লম্বা। আরডিএ, একটি মিলিটারি দল এই খনিজ পাওয়ার লক্ষ্যে “এভাটার” বা অবতার তৈরী করে। এভাটার হচ্ছে মানুষ আর না’ভি এর মধ্যে জেনেটিক হাইব্রিড প্রানি যা মিলিটারিরা এভাটারদের সংগে যুদ্ধ করতে তৈরী করে। তাই সত্যই সত্যই যুদ্ধ শুরু হয়ে যায়।
কাহিনী খুব কমই খেলোয়ারকে বোঝানো হয় গেমের শুরুতে। তাই দ্রুতই আপনি নেমে যাবেন এবেল রাইডার, একজন নতুন এভাটারযুক্ত আরডিএ রিক্রুট এর ভুমিকায়। দ্রুতই আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনি না’ভি নাকি আরডিএ এর হয়ে খেলবেন। গেমটি কোনো সময় নষ্ট না করেই কাহিনীতে চলে যায়। ভনিতা না করে কিছু সাধারণ অভিযান আর হালকা কাহিনী দিয়ে খোজা হয় একটি বিশেষ পাথর যার সম্বন্ধে আপনার কোনো ধারনাই নেই।
যদি আপনি আরডিএ’র হয়ে খেলতে চান তবে এভাটার:দ্যা গেম একটি থার্ড পার্সন শুটার হিসেবে আবির্ভূত হয় সাথে দেয় প্রচুর অস্ত্র আর যুদ্ধযান। না’ভিদের হয়ে যুদ্ধ করলে এসবের বদলে থাকবে প্রাচিন গদা, দন্ড, ছুরি। সম্মুখ যুদ্ধেই না’ভি যোদ্ধাদের মুল শক্তি। তবে তীর-ধনুক এবং মেশিনগান থাকবে দুরগামী অস্ত্র হিসেবে। যদিও দুই পক্ষেরই বিভিন্ন পাওয়ার আছে। এই বৈশিষ্টের ফলে নতুন অভিজ্ঞতার আবির্ভাব হয়।
গেমটি অতি আকষর্নীয় হলেও দুঃখের ব্যাপর হল দুভাবেই গেমটির আকার মাত্র ৬ ঘন্টার। বেশি হতে পারে যদি অতিরিক্ত পার্শমিশনগুলো খেলেন। গেমটির সবচেয়ে আকর্ষনীয় বিষয় হল পান্ডোরা উপগ্রহ। গেমে গ্রহটিকে খুবই যত্নের সাথে ডিজাইন করা হয়েছে। চলচ্চিত্রের পান্ডোরার মতই সব কিছু রয়েছে গেমের পান্ডোরায়। এ গেমে পান্ডোরা উপগ্রহটি ডিজাইন করতেই সব কষ্ট করা হয়েছে যেন। এজন্যে গেমের অন্যান্য শাখায় কোনো উন্নতি করা হয়নি। পান্ডোরা উপগ্রহটি ছাড়া গেমের মধ্যে বলার মত কিছুই নেই।

গেমস জোন :: Avatar – The Game (২০০৯)
মেইন মেনু
গেমস জোন :: Avatar – The Game (২০০৯)
চেহারা চয়েজ করো!
গেমস জোন :: Avatar – The Game (২০০৯)
ঠিসা ঠিসা ঠিসা!

ডাউনলোডঃ

http://kickass.to/james-cameron-s-avatar-the-game-t6163090.html

জ্ঞাতব্য:

> গেমস জোন শুধুমাত্র বিনোদনের জন্য তৈরি করা হয়েছে। এর উপাদান সমূহের দ্বারা কেউ মনে কষ্ট কিংবা আঘাত পেলে তা ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার আহ্বান জানাচ্ছি।

> গেমস জোনে ব্যবহৃত বাংলা কভার, ওয়ালপেপারসমূহ সর্ম্পূণ ভাবে লেখকের নিজস্ব সৃস্টি। এর সাথে আসল গেমটির কোনো সর্ম্পক নেই

> গেমস জোন এর সাথে উক্ত গেমসগুলোর কোনো সরাসরি সম্পৃত্ত নেই এবং থাকবে না।

> গেমস জোন এর গেমসগুলোর রিলিজ তারিখ, নির্মাতা, প্রকাশক, মুক্তির তারিখ, সিস্টেম রিকোয়ারমেন্টস এবং চিটকোড তথ্য গুলো বিভিন্ন ওয়েবসাইট হতে সংগৃহকৃত। লেখক এখানে শুধুমাত্র বাংলায় লিখেছেন।

> ডাউনলোড লিংক এবং এর ফাইলসমূহ সর্ম্পূণ ভাবে অন্য সাইট হতে কপিকৃত। লেখকের সাথে ডাউনলোড লিংক এর কোনো সম্পৃত্ততা নেই।

> সর্বপরি গেমস জোন লেখক গেমওয়ালার ব্যক্তিগত কর্ম মাত্র। এর সাথে এই ব্লগের কোনো সর্ম্পক নেই এবং গেমস জোনের সকল তথ্য (ডাউনলোড লিংক ব্যাতিত) এর জন্য শুধুমাত্র লেখক গেমওয়ালা দায়ী থাকবে।

> গেমস জোন একটি সর্ম্পূণ ফ্রি গেমস রিভিউ এবং প্রিভিউ টিউন। তাই এর যেকোনো উপদান স্বাধীনভাবে “ব্যক্তিগত” উদ্দেশ্যে যে কেউ ব্যবহার করতে পারবে। তবে গেমস জোন কে “করপোরেট” ভাবে কখনোই ব্যবহার করা যাবে না।

> বর্তমানে গেমস জোন লেখক এর দ্বারা নিচের ব্লগ সমূহে টিউন করা হচ্ছে:

www.tunerpage.com

www.techtunes.com.bd

> গেমস জোন সংক্রান্ত যেকোনো সমস্যা, পরামর্শ, অভিযোগ এবং অন্যান্য যে কোনো বিষয়ের জন্য গেমস জোন এর ফেসুবক পেইজ www.facebook.com/games.zone.bd তে যোগাযোগ করুন অথবা সরাসরি লেখক গেমওয়ালার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন www.facebook.com/talented.fahad

Series Navigation << গেমস জোন :: Kingdoms of Amalur: Reckoning (2012)গেমস জোন :: ক্রাইসিস ২ (২০১১) >>

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ