অ্যান্ড্রয়েড ব্যাকআপ সফটওয়্যার ইন্সটলেশন ও কানেকশন

0
282

অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের জন্য একটি ভাল ডিভাইস ম্যানেজার খুঁজে পেতে অনেকেই হিমশিম খেয়ে যান। এর জন্য আসলে তাদের দোষ দেয়া যায় না। অনেক স্মার্টফোন কোম্পানির নিজস্ব ডিভাইস ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার থাকলেও সেগুলো ততটা ইউজার ফ্রেন্ডলি ও কাজের না যেমন- স্যামসাং এর কাইজ। তাই আজকে আমরা একটি অসাধারণ ডিভাইস ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার নিয়ে আলোচনা করব নাম নাম স্ন্যাপপি (SnapPea)।

স্ন্যাপপি আসলে একটি অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার যা দিয়ে আপনি পিসি দিয়ে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজ করা,ব্যাকআপ রাখা,ফাইল ম্যানেজমেন্টসহ আরো অনেক কাজ অনেক সহজে করতে পারবেন। চলুন তার আগে দেখে নেই কিভাবে আপনি স্ন্যাপপি ইন্সটল করবেন।


ইন্সটলেশন ও কানেকশনঃ

প্রথমে স্ন্যাপপি ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার পিসিতে স্ন্যাপপি সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে ইন্সটল করে নিন। তবে শুধুমাত্র পিসিতে ইন্সটল করলেই হবে না আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসেও স্ন্যাপপি অ্যাপস ইন্সটলড থাকতে হবে। গুগল প্লে স্টোর থেকে সেটিও ইন্সটল করে নিন। তবে আপনি যদি ট্যাবলেট ইউজার হন তাহলে আরেকটি ওয়েবসাইট থেকে আপনাকে এর এপিকে ডাউনলোড করে ইন্সটল করতে হবে।

এখন স্ন্যাপপির সাথে কানেক্ট করতে হলে আপনার ডিভাইসকে ইউএসবি ডিবাগিং মোডে পিসির সাথে সংযুক্ত করতে হবে। কিভাবে তা করতে হয় তা না জানলে পিসির অ্যাপ্লিকেশনটি দেখুন। সেখানে অ্যান্ড্রয়েডের বিভিন্ন ভার্সনের জন্য কানেক্ট করার পদ্ধতি দেখানো আছে।

এরপর পিসির স্ন্যাপপি সফটওয়্যার চালু করে পরবর্তী নির্দেশনা অনুসরণ করুন। তাহলেই আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস পিসির স্ন্যাপপি সফটওয়্যারটির সাথে কানেক্ট হয়ে যাবে।

চলুন এখন দেখি আপনি কি কি করতে পারবেন

১. অ্যাপস ব্যাকআপ ও ম্যানেজমেন্টঃ আপনি স্ন্যাপপি দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন ডেস্কটপে ডাউনলোড করে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে ইন্সটল করতে পারবেন। এছাড়া অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ্লিকেশন সহজে ডিলিট করা,অ্যাপ্লিকেশন ডাটা ইন্টারনাল মেমরি থেকে এসডি কার্ডে কপি করার মতো বেসিক কাজগুলো সহজেই করে ফেলা যায়। প্রশ্ন করতে পারেন যে, এগুলো তো অ্যান্ড্রয়েড ফোন থেকেও করা যায়। হুম, তা যায়। তবে স্ন্যাপপি দিয়ে আপনি অনেকগুলো অ্যাপ্লিকেশন একই সাথে ম্যানেজ করতে পারবেন যা ডিভাইসে বেশ সময় সাপেক্ষ ব্যাপার।

snappea_41 অ্যান্ড্রয়েড ব্যাকআপ সফটওয়্যার ইন্সটলেশন ও কানেকশন

এছাড়া অ্যাপ্লিকেশনের ব্যাকআপ রাখতেও আপনি স্ন্যাপপি ব্যবহার করতে পারেন। এতে ডিভাইসে কোন অ্যাপস আপডেট করার পর তা ঠিকমতো কাজ না করলে আপনি ব্যাকআপ করে রাখা এপিকে দিয়েই অ্যাপস আবার রিস্টোর করতে পারবেন।

২. মিডিয়া ব্যাকআপঃ অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে আমরা অধিকাংশ সময়েই বিভিন্ন গান,মিউজিক ভিডিও এমনকি মুভিও সংরক্ষণ করি। এসব মিডিয়া ফাইলগুলো ব্যাকআপ,ডিভাইসে সিঙ্ক করতে আপনি স্ন্যাপপি ব্যবহার করতে পারেন। আইটিউনসের মিউজিকগুলোও আপনি আপনার ডিভাইসে এটি দিয়ে সিঙ্ক করতে পারবেন।

৩. কন্ট্যাক্টস ম্যানেজমেন্টঃ আর দশটা ডিভাইস ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যারের মতো স্ন্যাপপি দিয়েও আপনি আপনার মোবাইলের কন্ট্যাক্ট লিস্ট,এসএমএস এর ব্যাকআপ রাখতে পারবেন, কন্ট্যাক্ট লিস্ট এডিট করতে পারবেন এবং পিসি থেকে এসএসএম লিখে তা সেন্ড করতে পারবেন।

৪. ডিভাইস স্ক্রিনশট ও স্ক্রিন রেপ্লিকেশনঃ স্ন্যাপপি আরেকটি মজার ব্যাপার হলো এটি দিয়ে ডিভাইসের স্ক্রিনশট নেবার পাশাপাশি আপনি আপনার ডিভাইসের স্ক্রিনকে পিসিতেও দেখতে পারবেন। অর্থাৎ আপনি স্ন্যাপপি দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস পিসি থেকেই চালাতে পারবেন। তবে এই প্রক্রিয়া কিছুটা ধীরগতির তাই পিসি থেকে ডিভাইসের গেমস খেলার কথা আপাতত চিন্তা না করাই ভাল।

একটি উত্তর ত্যাগ