এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ কেনার আচগে জেনে নিন দরকারি কিছু টিপস

0
288

প্রতিদিন আমরা দরকারি কাজে অসংখ্য ফাইল, ডকুমেন্ট, ভিডিও, ছবি কম্পিউটারে সেইভ করি। এতে অনেক সময় আমাদের কম্পিউটারের হার্ডড্রাইভের জায়গা পূর্ণ হয়ে যায়। এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে এক্সটার্নাল হার্ড ড্রাইভ হতে পারে একটি ভালো সমাধান। দরকারি জিনিস ব্যাকআপ রাখতে কিংবা কম্পিউটারের total storage বাড়াতে এক্সটার্নাল হার্ড ড্রাইভ ব্যবহার করা যায়।

আজকাল অনেকেই পুরানো এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ কেনা বেচা করে। সাধ ও সাধ্যের মধ্যে মিল রেখে পছন্দ করতে পারেন আপনার এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভটি। তবে ব্যবহৃত এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ কিনতে চাইলে কিছু কিছু ব্যাপারে জেনে নিতে হবে।

বাজারে অনেক ধরণের এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ পাওয়া যায়। ইউএসবি, ফায়ারওয়্যার, প্যারালাল ইত্যাদি। প্রতিটির আলাদা আলাদা বৈশিষ্ট্য রয়েছে। আপনার প্রয়োজনের দেখে ঠিক করে নিন কোন ধরণের এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ কিনবেন। তবে আমরা সাধারণত ব্যবহারের জন্য ইউএসবি হার্ডড্রাইভ কিনে থাকি।

এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভের পারফর্মেন্স অনেকটাই এর স্পীড ক্ষমতার উপর নির্ভরশীল। যেইসব হার্ডড্রাইভের RPM ( Rotations Per Minute ) বেশী থাকে সেগুলোতে তত দ্রুত ডাটা একসেস করা যায়। তাই এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ কেনার ক্ষেত্রে RPM দেখে কিনুন। এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ গুলোর RPM সাধারণত ৫৪০০ থেকে  ১০,০০০ পর্যন্ত হয়। RPM যত বেশি হবে দাম তত বেশি হয়।

এবার ব্যবহৃত হার্ডড্রাইভটি কোন কম্পিউটারের সাথে লাগিয়ে দেখুন।  কোন ফাইল সেন্ড করলে তা নিচ্ছে কিনা সেটা দেখুন। সবচেয়ে ভালো হয় সম্পূর্ণ হার্ডড্রাইভটি একবার পূর্ণ করে তারপর খালি করে পরীক্ষা করুন। এতে সম্পূর্ণ নিশ্চিত হওয়া যাবে হার্ডড্রাইভের ভিতরে কোন সমস্যা রয়েছে কিনা।

পাওয়ার সাপ্লাইয়ের প্লাগটা খেয়াল করতে ভুলবেন না। অনেক সময় ব্যবহৃত হার্ডড্রাইভের পাওয়ার সাপ্লাই তে সমস্যা দেখা যায়।এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ কেনার আগে অবশ্যই নিশ্চিত হয়ে নিন পাওয়ার সাপ্লাইয়ে কোন সমস্যা আছে কিনা।

অনেক এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভের সাথে ওয়ারেন্টি মেয়াদ নির্দিষ্ট করা থাকে। যদি বিক্রেতা সেরকম কোন কিছু অফার করে তবে ওয়ারেন্টির মেয়াদ কতদিন আছে এবং কোথা থেকে সুবিধা পাবেন সেসব বিষয়ে জেনে নিন।

একটি উত্তর ত্যাগ