পেপাল এর জন্য ভার্চুয়াল আন্দোলন শুরু ফেসবুকে

3
358

আজ আমরা পেপাল পেতে যে ভার্চুয়াল আন্দোলন শুরু করতে যাচ্ছি .তার আগে একটি বিষয় না বললেই নয় . এখনো বাংলাদেশের ৭০% মানুষ জানেনা ইন্টারনেট কি বা কিভাবে ব্যবহার করতে হয় । আমার এক নিজস্ব জরিপে দেখেছি শহরের ৫০% জেলা শহরের ৭০% উপজেলা শহরের ৯০% ও গ্রামের ৯৮% মানুষ এখনো জানেনা ইন্টারনেট কি ও কিভাবে ব্যবহার করতে হয় ? আর যারা ব্যবহার করছে তাদের মধ্য ৫০% মানুষ শুধু বুঝে ইন্টারনেট মানে সেক্সি ফিল্ম দেখা ও ফেসবুক দেখা ।ইদানিং ফেসবুকের পিছনে ছুটেছে সংখ্যাগরিষ্ট ইন্টারনেট ব্যবহারকারি ।ইন্টারনেটের খুটিনাটি জানে এমন সংখ্যায় যারা ব্লগিং করে তার মধ্য কিছু অংশ । ইন্টারনেট ব্যবহারকারি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে এতে সন্দেহ তবে এর সংখ্যা বেড়ে অনেক গুন হতো যদি ইন্টারনেটের দাম মানুষের হাতের নাগালে থাকতো ।আর একটি নিজস্ব জরিপে পেয়েছি কারা ইন্টারনেট নিয়মিত ব্যবহার করছে ?১.কিছু মানুষ যারা শেয়ার বাজারের পেছনে দৌড়াচ্ছে ২. যারা অফিশিয়াল কাজ করে ৩. কিছু ছাত্রসমাজ যারা নিয়মিত ব্লগিং করে মানুষকে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে উত্‍সাহ প্রদান করছে । এবার কাজের কথায় আসি উপরের যে পরিসংখ্যান আমার মতে দিলাম সেমতে পেপাল কি জিনিস অনেকের না জানারই কথা। আমাকে অনেকেই ফেসবুকে জানতে চায় ভাই পেপাল কি ?
উত্তরঃ পেপাল হল অনলাইন ব্যাংকিং সিষ্টেম.যা দিয়ে অনলাইনে সহজে লেনদেন করা যায় ।
প্রশ্নঃকি কি প্রয়োজনে পেপাল বেশী দরকারি
উত্তরঃ আমি আগেই বললাম এটা দিয়ে অনলাইনে বা ইন্টারনেটে সহজে লেনদেন করা যায় বা কেনাকাটা করা যায় . আর যারা অনলাইনে আয় করতে আগ্রহী তাদের জন্য পেপাল খুবই গুরুত্বপূর্ন কারন যে কোম্পানী ওয়েবসাইটে বিঞ্জাপন দেয় তারা বেশী ভাগই পেপালের মাধ্যমে টাকা পেমেন্ট করে । আমরা যারা টুকটাক অনলাইনে আয়ের চেষ্টা করছি তারা জানি পেপাল না থাকার ব্যথা কি ? যেহেতু সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে আগ্রহী সেহেতু পেপাল অনুমোদনের কোন বিকল্প নেই বাংলাদেশে । কারন ডিজিটাল বলতে আমরা যা বুঝি তা হলো সব কিছুতেই তথ্য প্রযুক্তির ছোয়া , তাই ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে অবশ্যই দুইটি কাজ সরকারকে করতে হবে ১.পেপাল অনুমোদন ২. লোডশেডিং মুক্ত বাংলাদেশ ।যারা পেপালের দাবিতে আমাদের সাথে যোগ দিয়েছেন সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ . পেপাল নিয়ে যে ভার্চুয়াল আন্দোলন শুরু হয়েছে ,তা আরো এগিয়ে নিতে প্রত্যকটি ব্লগারের উচিত্‍ প্রত্যক সাইটে পেপাল নিয়ে বেশী লেখা প্রকাশ করা । যেমন বিজয় অভ্রের লড়াইয়ের সময় ব্লগ কাঁপিয়ে তুলেছিল ।এবার পেপালের দাবিতে লেখার মাধ্যমে প্রত্যকটি ব্লগ কাঁপিয়ে তুলতে হবে । কোন দাঙ্গা হাঙ্গামা নয় লেখার মাধ্যমে আমরা সরকারের কাছে পৌছে দিব আমাদের দাবি।অনেকে মানববন্ধনের কথা বলেছেন . আমি মনে করি মানববন্ধন করার সময় এখোনো হয়নি কারন উপরে যে পরিসংখ্যান দিলাম তাতে আমরা সংখ্যালঘু হয়ে আছি । এজন্য লেখার মাধ্যমে সবাইকে আগে বুঝাতে হবে ও আমাদের ফেসবুক পেজে ফান বাড়াতে হবে.এজন্য www.facebook.com/paypalbd এই লিংকটি সবার সাথে শেয়ার করতে হবে । যখন আমরা সংখ্যাগরিষ্ঠ তখনি কেবল পারবো মানববন্ধন বা অনশন করে দাবি আদায় করতে । ইতিমধ্য আমরা অনেক ব্লগারএই চিঠি প্রধানমন্ত্রীর কাছে মেইল ঠিকানায় পাঠিয়েছি ।

3 মন্তব্য

  1. হবে হবে একদিন হবে। বাংলাদেশতো………… একটু জল ঘোলা করে খাবে। দু:খের বিষয় এই যে সাথে আমাদের খেতে হচ্ছে। আসুন সবাই দোয়া করি, ইয়া আল্লাহ আপনি “বাংলাদেশ সরকার” কে সুমতি দান করুন, নিশ্চয় আপনি দয়াশীল ো মহ্ত।

একটি উত্তর ত্যাগ