আপনার অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেটটির ডাটা ব্যাকআপ করতে চান? চিন্তা নেই! জেনে নিন সেরা ডাটা ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশন গুলো সম্পর্কে!

0
881

হ্যাল্লোওওওওওওওওওওওওওও রিডারস! চিনতে পারছেন? হ্যাঁ! আমিই! আপনাদের সবার প্রিয় এক্সট্রিম টিউনার™ অ……নে……ক দিন পর ফিরে এসেছে আপনাদের জন্য নতুন কিছু নিয়ে! :D

 

এখনকার যুগে মোবাইল হ্যান্ডসেটের বাজার বেশ ভালোভাবেই দখল করে নিয়েছে জনপ্রিয় মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড। সিম্বিয়ান, আইওএস, জাভাকে পেছনে ফেলে এক লাফে উঠে এসেছে জনপ্রিয়তার শীর্ষে! এখনকার দিনে হ্যান্ডসেট যদি অ্যান্ড্রয়েড না হয়, তাহলে কি চলে? তাই যারা অ্যান্ড্রয়েড ইউজার আছেন তাদের জন্য আজকের লেখাটি!

অ্যান্ড্রয়েড যেমন সর্ব কাজের কাজী, তেমনি এর মাঝে মাঝে কিছু সমস্যাও হয়। তখন হয়তো অপারেটিং সিস্টেম ফ্ল্যাশ, অথবা আপডেট দেয়ার প্রয়োজন পড়ে। যার কারণে দুর্ঘটনা বশতঃ আপনার ফোনে থাকা আপনার জরুরী পারসোনাল ডাটা যেমন – কল লগ, মেসেজ, কন্ট্যাক্টস ইত্যাদি হারিয়ে যেতে পারে যে কোন মূহুর্তে! যারা জানেন ব্যাপারটা তার নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন, কিন্তু যারা জানেন না তাদের অবস্থা ভাবছি। কি? মাথায় হাত? আরে ধুর! কিসের এত চিন্তা! আমি আছি না? :D

আজ আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা কয়েকটি অ্যাপ্লিকেশনের, যেগুলো আপনাকে আপনার পারসোনাল ডাটা ব্যাকআপ করতে সাহায্য করবে। তবে এর আগে চলুন জেনে নেয়া যাক কিভাবে ব্যাকআপ করা যায় আপনার ডাটাগুলো।

যদি আপনার প্রয়োজন খুব ছোট হয়, অর্থাৎ যদি খুব বেশি কিছু ব্যাকআপ করার না থাকে, তবে আপনি  Super Backup অথবা ROM Toolbox Lite ব্যবহার করতে পারেন। এই অ্যাপগুলো আপনাকে সম্পূর্ণ সহযোগীতা দেবে। আর আপনি যদি অনলাইনে ব্যাকআপ করতে চান, তাহলে mega (50GB free) অথবা SurDoc (100GB free) ব্যবহার করতে পারেন। আমরা এগুলো নিয়ে পরে বিস্তারিত আলাপ করব।

1 আপনার অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেটটির ডাটা ব্যাকআপ করতে চান? চিন্তা নেই! জেনে নিন সেরা ডাটা ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশন গুলো সম্পর্কে!

 

এবার জানা যাক ব্যাকআপের ধরণগুলো –

 

ফোন ডাটা ব্যাকআপ

এটি খুবই সহজ! জাস্ট অ্যাপ ডাউনলোড করবেন, ইন্সটল দেবেন এবং ব্যাকআপ অপশন এ ক্লিক করলেই আপনার ফোনের পারসোনাল ডাটা লগ আকারে আপনার মেমোরী কার্ডে অথবা যদি অনলাইনে করতে চান তাহলে অনলাইন স্টোরেজে জমা হয়ে যাবে! আপনার ফোন ডাটা বলতে আমি কন্ট্যাক্টস, মেসেজ, কল লগ, সিস্টেম সেটিংস, বুকমার্কস ইত্যাদি বুঝিয়েছি। আর একটা কথা, এই ডাটা ব্যাকআপ করতে আপনার ফোন রুট করার প্রয়োজন পড়ে না!

 

অ্যাপ্লিকেশন ডাটা ব্যাকআপ

এই ব্যাকআপ আপনি দুইভাবে করতে পারেন! যথা –

১. Without app-data backup of Apps : এর মানে হল আপনি আপনার ফোনে থাকা এপ্লিকেশন গুলোর ইন্সটলেশন ফাইল, অর্থাৎ .apk ফাইলগুলো ব্যাকআপ করতে পারবেন। যাতে পরে আবার অ্যাপ গুলো ইন্সটল করা যায়। তবে বর্তমানে ইন্সটল করা এপ্লিকেশন গুলোর সেভড ডাটা ব্যাকআপ করতে পারবেন না।

২. With app-data backup of apps : যদি আপনি অ্যাপ্লিকেশনের সেভড ডাটা সহ ব্যাকআপ করতে চান, তবে আপনার ফোনটি রুট করার প্রয়োজন পড়বে। কারণ রুট করলে ফোনের কাস্টমাইজেশনের পুরো কন্ট্রোল আপনার হতে। রুট করা না থাকলে ফোনের ডিফল্ট সেটিংস কোন অ্যাপকে আপনার ফোনের ডিফল্ট অ্যাপ্লিকেশনের সেভড ডাটা ব্যাকআপ করতে দেবে না! রুট করা থাকলে আপনি সেগুলো ব্যাকআপ করতে পারবেন এবং পরে সময়মত রিস্টোর করতে পারবেন।

 

এবার চলুন দেখা যাক ব্যাকআপের জন্য সেরা এপ্লিকেশন গুলো কি কি! এক্ষেত্রে আমরা এগুলোকে দুইভাগে ভাগ করব – রুট অপ্রয়োজনীয় এবং রুট প্রয়োজনীয়।

প্রথমে দেখে নেয়া যাক, রুট প্রয়োজন নেই এরকম কি কি অ্যাপ আছে আমাদের কাছে!

 

SMS and Call Log Backup

2 আপনার অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেটটির ডাটা ব্যাকআপ করতে চান? চিন্তা নেই! জেনে নিন সেরা ডাটা ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশন গুলো সম্পর্কে!

 

এই অ্যাপ্লিকেশনটি খুব সহজে আপনার ফোন এর পারসোনাল ডাটা যেমন কল লগ, মেসেজ ব্যাকআপ করতে পারে। শুধুমাত্র এক ক্লিকেই এটি সবকিছু ব্যাকআপ করে ফেলে। এটি Dropbox এবং Google Drive এ ব্যাকআপ ডাটা রিস্টোরেশন সাপোর্ট করে। এছাড়া কল লগ, মেসেজ এর আলাদা আলাদা ব্যাকআপ ফাইল তৈরী হয়, যাতে আপনি চাইলে যে কোন একটি আপনার ইচ্ছামত রিস্টোর করতে পারেন। এর রিস্টোরেশন সিস্টেমে আরেকটি বিষয় আছে, সেটি হল এই অ্যাপটি আপনার ফাইল গুলোকে ডেট অনুসারে আলাদা করে সাজিয়ে রাখে।

তবে এটিতে আপনি কন্ট্যাক্টস, ক্যালেন্ডার, বুকমার্ক সেভ করতে পারবেন না।

 

প্লে স্টোর ইন্সটলেশন লিঙ্ক 

 

Super Backup: SMS and Contacts

3 আপনার অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেটটির ডাটা ব্যাকআপ করতে চান? চিন্তা নেই! জেনে নিন সেরা ডাটা ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশন গুলো সম্পর্কে!

 

খুবই সহজ ব্যবহারযোগ্য অ্যাপ্লিকেশন এটি! আপনার ফোনের মেসেজ এবং কন্ট্যাক্ট সব কিছুই নিমেষে ব্যাকআপ করে ফেলবে আপনার মেমোরী কার্ডে। পরে সুবিধামত রিস্টোর করতে পারবেন এক ক্লিকেই! পরে ফোন আপডেট বা প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার রিপেয়ারিং এর পর অ্যাপ্লিকেশনটি সহজেই ইন্সটল করে আপনার ফাইল গুলো রিস্টোর করতে পারবেন। এই অ্যাপ্লিকেশন আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্টেও ফাইল ইন্সটল করা যাবে। আর যদি আপনার ফোনে রুট এক্সেস থাকে, বা রুট করা থাকে তাহলে আপনি আপনার ইন্সটল অ্যাপ্লিকেশন গুলোর সেভড ডাটা ব্যাকআপ করতে পারবেন।

প্লে স্টোর ফ্রী ভার্সন ইন্সটলেশন লিঙ্ক    প্রো ভার্সন ($1.99)

 

Go Backup and Restore Pro

4 আপনার অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেটটির ডাটা ব্যাকআপ করতে চান? চিন্তা নেই! জেনে নিন সেরা ডাটা ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশন গুলো সম্পর্কে!

 

অসাধারণ ডিজাইনের এই অ্যাপটি আপনার সব ধরণের ডাটা ব্যাকআপ করার সুযোগ প্রদান করে। এটি ব্যাচ ব্যাকআপ এবং রিস্টোর সাপোর্টিভ হওয়ায় অ্যাপ্লিকেশন ডাটাও ব্যাকআপ করতে পারেন যদি আপনার হ্যান্ডসেটটি রুট করা থাকে।

এটির দুটি ভার্সন আছে, তবে পেইড ভার্সনে আপনি বাড়তি সুবিধা পাবেন। যা অন্য ভার্সনটিতে পাবেন না। মেসেজ আপনি পেইড ভার্সনে ব্যাকআপ করতে পারবেন না। এটি ফ্রী ভার্সনে করা যায় না।

প্লে স্টোর ইন্সটলেশন লিঙ্ক 

 

G Cloud Backup

5 আপনার অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেটটির ডাটা ব্যাকআপ করতে চান? চিন্তা নেই! জেনে নিন সেরা ডাটা ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশন গুলো সম্পর্কে!

 

এটি একটি অসাধারণ ইন্টারফেস সাপোর্টিভ অ্যাপ্লিকেশন, যা অফলাইনে আপনার মেমোরি কার্ডে এবং অনলাইন স্টোরেজে আপনার ডাটা গুলো ব্যাকআপ করে। তবে পেইড ভার্সনে এর সুবিধা অনেক বেশি। যদিও ফ্রী ভার্সনে আপনি ১ জিবি স্টোরেজ পাবেন ডাটা ব্যাকআপ করার জন্য। এই ওয়েবসাইটে আপনি সহজেই কম্পিউটার থেকে আপনার ব্যাকআপ করা ফাইল গুলো দেখতে পারবেন। এটি এক ডিভাইস থেকে অন্য ডিভাইসে সহজে রিস্টোর করতে পারে।

প্লে স্টোর ফ্রী ভার্সন ইন্সটলেশন লিঙ্ক    প্রো ভার্সন($5.58)

 

 

SMS Backup+

6 আপনার অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেটটির ডাটা ব্যাকআপ করতে চান? চিন্তা নেই! জেনে নিন সেরা ডাটা ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশন গুলো সম্পর্কে!

 

আপনার ফোনের মেসেজ ব্যাকআপ করতে চাইলে এই অ্যাপ্লিকেশনটির কোন জুড়ি নেই। এটি আপনার ফোনের ডিফল্ট এসএমএস, এমএমএস, কল লগ এমনকি আপনার WhatsApp এর মেসেজও ব্যাকআপ করতে সক্ষম! এটিই একমাত্র অ্যাপ্লিকেশন যেটি সহজেই WhatsApp এর মেসেজ ব্যাকআপ করতে পারে! এটি প্রতি ৩০ মিনিটি থেকে প্রতি ২৪ ঘন্টায় আপনার আগত মেসেজ গুলো ব্যাকআপ করতে সক্ষম!

তবে আপনি কেবল মেসেজগুলো আপনার মেমোরী কার্ডে ব্যাকআপ করতে পারবেন। কোন প্রকার অনলাইন স্টোরেজ যেমন Dropbox, Google Drive, Cloud ইত্যাদি সাপোর্ট করে না অ্যাপ্লিকেশনটি।

প্লে স্টোর ইন্সটলেশন লিঙ্ক 

 

আসুন, এবার দেখে নেয়া যাক যেসব অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করার জন্য আপনার হ্যান্ডসেট টি রুট করা থাকতে হবে।

 

ROM Toolbox Lite

7 আপনার অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেটটির ডাটা ব্যাকআপ করতে চান? চিন্তা নেই! জেনে নিন সেরা ডাটা ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশন গুলো সম্পর্কে!

 

এই অ্যাপ্লিকেশনটি একটি অস্ত্র! আপনি যেমন আপনার ফোনের সব ডাটা ব্যাকআপ করতে পারবেন, তেমনি আপনার রুট করা হ্যান্ডসেটটির কাস্টমাইজেশন করতে পারবেন অত্যন্ত সহজে! কারণ কাস্টমাইজেশনের জন্য অসংখ্য ফিচার রয়েছে এই অ্যাপ্লিকেশনটি তে। এটি সহজেই আপনার অ্যাকাউন্ট, অ্যাপ্লিকেশন উইজেটস, ব্লুটুথ ডিভাইস, বুকমার্কস, কল লগ, কন্ট্যাক্টস, কান্ট্রি, ল্যাঙ্গুয়েজ, টাইম, ডাটা ইউজ, প্লে লিস্ট, সিস্টেম সেটিংস, মেসেজ, ইউজার ডিকশনারি, ওয়ালপেপার এমনকি ওয়াইফাই সেটিং পর্যন্ত ব্যাকআপ করতে পারে। এর সাথে আপনি পাবেন ফ্রী রুট এক্সপ্লোরার যা সহজেই আপনাকে নির্দেশনা দেবে কিভাবে একটু রুট করা হ্যান্ডসেট কাস্টমাইজেশন করতে হয়! এছাড়াও আপনার ফোনের জন্য চমৎকার রিবুট অপশন, অটো স্টার্ট, রম ম্যানেজমেন্ট ইত্যাদি অপশন চালু করতে পারবেন। যদি আপনি কোন কারণে প্রো ভার্সন কেনেনও, তাহলে আমি বলব আপনার টাকা জলে যাবে না! আমার সবচাইতে পছন্দের অ্যাপ্লিকেশন এটি!

প্লে স্টোর ফ্রী ভার্সন ইন্সটলেশন লিঙ্ক     প্রো ভার্সন($2.99)

 

 

Titanium Backup

8 আপনার অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেটটির ডাটা ব্যাকআপ করতে চান? চিন্তা নেই! জেনে নিন সেরা ডাটা ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশন গুলো সম্পর্কে!

 

রুট করে অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেটের জন্য এই অ্যাপ্লিকেশনটি বেশ জনপ্রিয়। অল-ইন-ওয়ান ব্যাকআপ হিসেবে এরও বেশ জনপ্রিয়তা আছে। যদিও ফ্রী ভার্সন লিমিটেড, তারপরও অসাধারন সেবা দিতে সক্ষম এই অ্যাপ্লিকেশনটি!

তবে ফ্রী ভার্সনে আপনি ব্যাচ রিস্টোরেশন সাপোর্ট পাবেন না।

প্লে স্টোর ফ্রী ভার্সন ইন্সটলেশন লিঙ্ক    প্রো ভার্সন($6.26)

 

এছাড়াও যদি আপনার ফোনে থাকা ছবি, গান, ভিডিও কিংবা মুভি অনলাইন এ স্টোর করতে চান এর জন্য নিচের দুইটি অসাধারণ সাপোর্ট দেবে।

Install Mega Android App (50 GB) via Playstore

Install SurDoc Android App (100GB) via Playstore

 

এই ছিল আজকের টিউন! কেমন লাগলো জানাবেন!

সামনে আবার নতুন কিছু নিয়ে নিয়মিত ফেরার চেষ্টা করব! সেই পর্যন্ত সবাই ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন এবং অবশ্যই তথ্য প্রযুক্তির সঙ্গেই থাকুন!

ধন্যবাদ! :)

একটি উত্তর ত্যাগ