অবশেষে বাংলাতে বেদ, ডাউনলোড করুন

32
9683
অবশেষে বাংলাতে বেদ, ডাউনলোড করুন

অরণ্যালয়

নিজেকে চেনার চেষ্টায় আছি, চিনতে পারিনা। যাকে চিনিনা তার সম্পর্কে মন্তব্য করাটা বোকামী ছাড়া আর কিছুনা।
অবশেষে বাংলাতে বেদ, ডাউনলোড করুন

শুধমাত্র সনাতন ধর্ম অনুসারী ই নয়, অন্য ধর্মের অনেক অনেক অনুসারী ও বেদ সম্পর্কে জানার আগ্রহ প্রকাশ করেন। বেদ সনাতন ধর্মের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় গ্রন্থ, বেদ চার প্রকার তার মধ্যে সবচেয়ে প্রাচীন হচ্ছে ঋগবেদ। এতে প্রায় ১০,০০০ এর ও বেশী মন্ত্র আছে। বেদের অন্য অংশগুলো হতে এটা অনন্য। যদিও বেদ সনাতন ধর্ম মতালম্বীদের প্রধান ধর্মীয়গ্রন্থ কিন্তু খুজতে গেলে ১% হিন্দু বাড়িতে ও বেদ পাওয়া যাবে কিনা সন্দেহ আছে, অথবা অধিকাংশ মানুষই বেদ পড়েন নি। এটা শুধু ই অজ্ঞানতা না এর একটি কারণ হচ্ছে বেদ পড়ার কিছু আলাদা বাধ্য বাধকতা আছে এবং বাড়িতে বেদ রাখতে হলে বিশেষ কিছু নিয়ম কানুন মেনে চলতে হয় তাই অনেকেই বেদ রাখার সাহস করেন না, সর্বোপরি গীতা কেই এখন প্রাধান্য দেওয়া হয় বেশী। কিন্তু আমার কথা হচ্ছে পাপ হবে হোক কিন্তু আমার জ্ঞান দরকার, আর তার জন্যই আমাকে বেদ পড়তে হবে ও জানতে হবে।

বেদ মূলত সংস্কৃত ভাষায় তবে নেটে সার্চ দিলে ইংরেজীতে খুব সহজেই পাওয়া যাবে। কিন্তু বাংলাতে বেদ???? প্রায় অসম্ভব একটা চাওয়া। কারণ বাংলাকে অনেকেই তেমন গুরুত্বপূর্ণ মনেই করেনা। আর সনাতন ধর্ম অনুসারীদের একটি বৃহৎ অংশ পশ্চিম বাংলার অধিবাসী হলেও আমরা বাংলাদেশীরা বাংলাকে নিয়ে যতটা ভাবি। তারা তার সামনে দিয়ে তো দূরের কথা পিছন দিয়ে ও যায়না। তাই বাংলাতে সনাতন ধর্মীয় বই পাওয়া বেশ কষ্টকর । অনেকেই বলবেন এত কষ্ট না করে কিনে নিলেই তো হয়। হুম কিনলে তো হয়ই কিন্তু নেট থাকতে কিনবো এটা ভাবতেই কষ্ট লাগে। মাঝে মাঝে মনে হয় ক্ষুধা লাগলে নেটে সার্চ দেই দেখি পেট ভরানো যায় কিনা। হা হা

যাই হোক অনেকদিন ধরে খুজছিলাম পাইনা, এমনকি অনেকের কাছে চেয়েছি কিন্তু কেউই বলতে পারেনি বাংলাতে বেদ এর লিংক। অবশেষে পেলাম এক গুপ্ত ভান্ডার যেখানে শুধুমাত্র বেদ ই না সনাতন ধর্মের অনেক মূল্যবান বই সংরক্ষিত আছে যেমন কলিকাতন্ত্রম, রাজযোগ, সৌরপুরান, উপনিষদ, মহানির্বান তন্ত্র ইত্যাদি অনে দুর্লভ বই। এই সকল বই এর অধিকাংশ বাংলাদেশে পাওয়া যাবেনা এটা প্রায় নিশ্চিত এমনকি ভারতে গিয়েও খুজে বের করা বেশ কষ্ট সাধ্য হবে। আর বইগুলো অনেকদিন আগের সংস্করন এটা বই এর হরফগুলো দেখলেই বুঝা যায়।

যাই হোক একবারে এত দেওয়া যাবেনা তাই প্রথমে শেয়ার করছি ঋগবেদ। এটি কয়েকটা অংশে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে, এতখানি আর কষ্ট করলাম না। যারা যারা ডাউনলোড করতে ইচ্ছুক তারা (হিন্দুধর্ম নিয়ে আমাদের সাইট হিন্দুইজম সাইট ) এ গিয়ে এই পোষ্ট থেকে ইচ্ছামত ডাউনলোড করতে পারেন। আর হ্যা মিডিয়াফায়ার লিংক। তাই নিশ্চিন্তে ডাউনলোড করুন বাংলাতে বেদ। আর হ্যা বিশেষ কিছু কথা যা এই বইটির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তা বলে নেই, এই বইটি অনেক আগের একটি বই থেকে স্ক্যান করা। প্রকাশ কাল বাংলা ১লা বৈশাখ, ১২৯৩ আর এখন চলছে ১৪১৭ তাহলে হিসাব করুন কত্ত আগের বই !!! আর মোট ওজন 40MB এর মত হবে।

পরের পর্বে আরো কিছু ভালো ভালো বই শেয়ার করবো আশা করি। ধন্যবাদ সবাইকে। ভালো থাকবেন সবাই।

**** বিশেষ কিছু কথা না বললেই নয়, যেহেতু টিউনারপেজ একটি টেকনোলজিকাল সাইট, তবু এখানে টেকনোলজীর বাইরের সৃষ্টিশীল বিষয়কে সম্মান দেওয়া হয় তাই এখানে এই ধর্মীয় বিষয় শেয়ার করছি, আমার মতে সবাই নিজের ধর্মের পাশাপাশি অন্যান্য ধর্মীয় পুস্তক পাঠ করা উচিত, এতে নিজের ধর্মের অনেক বিষয়ের সত্যতা পরিষ্কার হয়ে যাবে। এবং কোথায় পার্থক্য তা সহজেই ধরা যাবে। তাই পোষ্টের উদ্দেশ্যকে সঙ্কীর্ণ মনে দেখবেন না। ধন্যবাদ সবাইকে

32 মন্তব্য

    • আপনাকেও ধন্যবাদ দাদা, ধর্ম জিনিস টা আসলেই অনেক গভীর, আমরা তার শত ভাগের একভাগ ও সঠিকভাবে হয়তো বুঝিনা, তবু যতটুকু পারি এ সম্পর্কে জানার চেষ্টা করি। আর হ্যা আামাদের এই সনাতন বা হিন্দু ধর্মে অনেক মতের সমন্বয় হওয়াতে সঠিক পথ বা সঠিক জ্ঞান রাখা আরো দুরুহ হয়ে গিয়েছে। আমি অনেকদিন খুজেও হিন্দু ধর্ম নিযে ভালো কোনো বাংলা সাইট পাইনি, আশা করেছিলাম অন্তত ভারতে এরকম ভালো কোনো বাংলা সাইট পাবো। কিন্তু তাও পাইনি। তাই আমি আর রাজেন্দ্র নামে এক দাদা দুজনে শুরু করলাম সাইট, যতটা সম্ভব এ বিষয়ে যারা জানতে চায় তাদের সঠিক পথের সন্ধান দিতে। আর হ্যা আমাদের সাইট টি ফ্রি তে তৈরী এর বেশ কিছু কারণ আছে, আমি বলছি
      ১. প্রথমত ভাবতেই পারিনি হিন্দু ধর্ম নিয়ে এত মানুষ আগ্রহ দেখাবে, তাই সাহস করতেই পারিনি নতুন করে করা একটা সাইট ডোমেইন আর হোস্টিং নিয়ে করবো।
      ২. প্রোগ্রামিং এর কিছুই পারিনা ধরতে গেলে তাই সব কিছু রেডিমেড আছে এমন একটা জায়গাই বেছে নিয়েছিলাম, অনেক কিছু ঠেকে ঠেকে শিখেছি, এখনও শিখছি প্রতিদিন, তবে একটু কষ্ট লাগে অনেকের কাছে সাহায্য চেয়েছি কিন্তু হিন্দু ধর্ম নিয়ে সাইট দেখেই আর এ ব্যাপারে কথাই বলেনি।
      ৩. অন্যতম কারণ হচ্ছে ভাই আমি গরীব মানুষ, দিন আনি রাত খাই অবস্থা। তাই সাহস করে ডোমেইন কেনার কথা ভাবতে পারছিনা, আবার সামনে পড়া শেষ হলেই আর কতটা সময় দিতে পারবো এটা ভেবেও পিছিয়ে যাচ্ছি।

      তবে এত এত মানুষের অনুপ্রেরণা পেয়েছি যে অনেক অনেক ভালো লাগে। আজকে মনে হয় সাইট তৈরী করার ১০০ দিন এর মধ্যে মোট হিট ১১,৬৩০। হিন্দু ধর্ম নিয়ে করা সাইটে এত হিট সত্যি কল্পনাও করিনি। আপনার সাথে অন্য সবাইকেও স্বাগতম, আসবেন প্রতিদিন , যতটা পারি জ্ঞানের চাহিদা পূরণের চেষ্টা করবো। ধন্যবাদ আপনাকে। ভালো থাকবেন

একটি উত্তর ত্যাগ