একদম নতুনদের জন্য আমার বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকেই ফ্রীল্যান্সিং এর হাতেখড়ি। সম্পূর্ণ নতুন সীজন। (পর্বঃ- ০২)

2
424

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সবাই ভাল আছেন। অনেকটা অগোছালো ভাবেই শুরু করেছিলাম আমার প্রথম পোস্টটি। যাই হোক এবার থেকে চেস্টা করব ধাপে ধাপে গুছিয়ে লেখার জন্য। তো চলুন শুরু করা যাক।
গত পর্বে আপনি কিভাবে ফ্রীল্যান্সিং শুরু করবেন তা সম্পর্কে একটু ধারনা দিয়েছিলাম কিন্তু আমার মনে হয় আপনারা অনেকেই তা বুঝতে পারেন নি। তাই আজকে আমি প্রথম থেকে আবার শুরু করছি। ফ্রীল্যান্সিং হল অনলাইনে আয়ের একটি মাধ্যম। আপনি অনলাইনে কাজ করবেন আর সেই কাজের জন্য আপনাকে টাকা দেওয়া হবে। শুনতে অনেক সোজা হলেও অনলাইনে আয় কিন্তু বাস্তব জীবনে আয় করার মতই কঠিন। শুধু পার্থক্য এইটুকুই যে, বাস্তব জীবনে আমাদের দেশে কাজের সুযোগ অনেক কম কিন্তু অনলাইনে এই সুযোগ অনেক বিস্তৃত। যে কেউ নূন্যতম যোগ্যাতা নিয়েই শুরু করতে পারেন অনলাইনে আয়। এর জন্য একটু ধৈর্য আর পরিশ্রম থাকলেই চলে। তো
– আপনাদের মনে অনেকেরই এই প্রশ্ন থেকে যায় যে, এই যে আমি যে বলতেছি কাজ করবেন আর টাকা তুলবেন, এটা আমি কোথায় কাজ করব, আর কার কাজই করব, আবার টাকা কিভাবে পাব??
এই প্রশ্নের উত্তর আমি দিচ্ছি। অনলাইনে কাজের জন্য অনেক সাইট রয়েছে। ওই সকল সাইটে গেলেই আপনি দেখতে পাবেন সেখানে অনেক ধরনের কাজ আছে। এই রকম একটা ওয়েবসাইট হল- ওডেস্ক । কিন্তু কথা হল এই কাজগুলো কারা দেন? অনেক লোক আছেন যারা তাদের নিজের কাজগুলো করিয়ে নিতে চান অন্য কাউকে দিয়ে। এই রকম লোকেরা এই সকল সাইটে (ওডেস্ক.কম) গিয়ে অ্যাকাউন্ট খুলেন তারপর তারা তাদের কাজগুলো পোস্ট করেন। যারা কাজ দেন বা কাজ পোস্ট করেন অন্য কাউকে দিয়ে করানোর জন্য তাদেরকে বলা হয় ক্লাইন্ট বা বায়ার। এখন ওই একই সাইটে আবার অনেকে আবার কাজ করার জন্য অ্যাকাউন্ট খুলেন (যেমনঃ আপনিও অ্যাকাউন্ট খুলবেন কাজ করার জন্য ।) । ক্লাইন্ট যখন কোন কাজ পোস্ট করেন তখন তারা ওই কাজগুলো দেখে ওই কাজটি করার জন্য আবেদন করেন। একে বলা হয় বিড করা। তো ধরুন একটি কাজের জন্য ৩০ জন বিড করেছেন, এখন যিনি কাজটি পোস্ট করেছেন তিনি এই ৩০ জনের মধ্যে থেকে একজনকে এই কাজটি করার জন্য নির্বাচন করবেন । মানে এই ৩০ জনের মধ্যে থেকে একজন কাজটি জিতে নিবেন এবং তিনি কাজটি করার সুযোগ পাবেন। তবে ক্ষেত্র বিশেষে ক্লাইন্ট একের অধিক ব্যাক্তিকেও কাজের জন্য মনোনয়ন করতে পারেন। এই ভাবে টোটাল প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হয়।
এই গেলো পুরো হিস্টরি জিওগ্রাফি। আশা করি আপনারা অনেকেই যারা নতুন তারা একটু হলেও আইডিয়া পেয়েছেন যে, আসলে কিভাবে এই কাজগুলো হয়ে থাকে। আপনারা ওডেস্ক থেকে ঘুরে আসুন, সেখানে কি কি কাজ পাওয়া যায় একটু দেখে আসতে পারেন এতে করে আপনাদের ধারনা একটু প্রখর হবে।
আমার ফ্রীল্যান্সিং বিষয়ক একটি সাইট আছে। এখানে এসইও এর ব্যাপারে হেল্প পাবেন। সময় থাকলে ঘুরে আসতে পারেন। এখানে ক্লিক করুন।

– যারা এই বেসিক বিষয় গুলো যানেন তাদের কাছে মনে হতে পারে আমি আপনাদের সাথে মশকরা করছি, কিন্তু আসলেই এ দেশে অনেক লোক আছে যারা আসল সিস্টেমটাই জানেন না, শুধুমাত্র তাদের জন্যই এই টিউন।

2 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ