ফেসবুক মোবাইল ব্যবহারকারীরা পাচ্ছে শেয়ার বাটন

0
279
ফেসবুক মোবাইল ব্যবহারকারীরা পাচ্ছে শেয়ার বাটন

ফেরারি মন

অজানাকে জানা আর অচেনাকে চেনার জন্য মন ফেরারী হয়ে ঘুরছি। দেশ থেকে দেশান্তরে, দিগ থেকে দিগন্তে। কিন্তু.....
ফেসবুক মোবাইল ব্যবহারকারীরা পাচ্ছে শেয়ার বাটন

ফেসবুক মোবাইল ব্যবহারকারীরা পাচ্ছে শেয়ার বাটন

ফেসবুক গ্রাহকের সংখ্যা প্রায় ১০০ কোটি যার মধ্যে মোবাইল গ্রাহক সংখ্যা ৫০ শতাংশের বেশি। তবে ওয়েব আর মেবাইল এই দুই সংস্করণের ব্যবহারকারীরা একইসময়ে এর সুবিধাগুলো উপভোগ করতে পারেনা। ফেসবুকে ‘শেয়ার বাটন’ যেটি আগেই পেয়েছে ওয়েব ভার্সন। এবারে ফেসবুক মোবাইল সংস্করণেও গতানুগতিক শেয়ার বাটনের সুবিধা যোগ করল ফেসবুক।

সুত্র মতে, মোবাইলে যুক্ত নতুন শেয়ার বাটনের গঠন এমনভাবে হয়েছে যাতে ব্যবহারকারীরা নানা ধরনের  কনটেন্ট বন্ধুদের সাথে বিনিময়ে উৎসাহী হবে।

প্রযুক্তি সাইট টেকক্রাঞ্চ ফেসবুকের নতুন সেবার বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করেছে। যাতে বলা হয় মোবাইলে শেয়ার বাটন যুক্ত হয়েছে এছাড়া আইওএস এবং অ্যান্ড্রুয়েড উপযুক্ত পণ্যে আগামীতে বিনিময়যোগ্য সুবিধা যোগ করার পরিকল্পনা অব্যাহত রয়েছে ফেসবুকের।

মোবাইল ব্যবহারকারীরা তাদের দৈনিন্দন কাজ ছাড়াও বিশেষ সব মুহূর্ত যেমন বিভিন্ন লেখা থেকে শুরু করে ভিডিও, ছবি বিনিময় করতে শেয়ার লিঙ্কটির মাধ্যমে সহজেই সুবিধাটি নিতে পারবে। ব্যবহারকারীরা যখন ফেসবুকে প্রবেশ করবে তখন শেয়ার বাটনটি লাইক এবং কমেন্ট বাটনের ডান পার্শ্বে দেখা যাবে। আলতো টোকায় উন্মুক্ত হবে ইন্টারফেস যাতে মন্তব্যও দেওয়া যাবে।ফেসুবক গ্রুপসের মাধ্যমে ব্যবহারকারী নির্বাচিত কনটেন্ট তার বিশেষ বন্ধুদের পাঠাতে পারবে। এছাড়া সম্মতিপ্রাপ্ত সকল গ্রাহকদের উদ্দেশ্যে প্রকাশ্য পোষ্ট দিতে পারবে। এরপরে একবার যদি সে সব পোষ্টে  সম্মতি আসে তবে শেয়ারিং কার্যক্রম নিশ্চিত হবে। অন্যদিকে বাতিল হওয়া পোষ্ট ব্যবহারকারীর নিউজ ফিডে ফিরে আসবে।

উল্লেখ্য, নতুন এই শেয়ার বাটন কেবলমাত্র নিউজ ফিডে প্রতীয়মান। তবে ব্যক্তিগত কিংবা কোনো ব্র্যান্ডের সাইটের জন্য সেবাটি এখনও অন্তর্ভূক্ত করা হয়নি।

এদিকে ফেসবুকের ত্রৈমাসিক ফলাফল অনুযায়ী সক্রিয় মোবাইল ব্যবহারকারী সংখ্যা প্রায় ৬০০ মিলিয়ন যাদের মধ্যে ১২০ মিলিয়ন ব্যবহারকারী একচেটিয়া ফেসবুক ব্যবহার করে থাকে।

আলোচকরা বলছে মোবাইলে গ্রাহক প্রচুর তাই ফেসবুকের কার্যকৌশল হিসেবে সেবাটিকে মোবাইলে আনা হয়েছে। তাছাড়া শেয়ারিং বাটনের অন্তর্ভূক্তি প্রযুক্তিগত সফলতা নয় । তাই উন্নয়নের অগ্রধিকার লক্ষ্য করা যাচ্ছে মোবাইল ইন্টারফেসে। শেয়ার সুবিধাটি বেশ জনপ্রিয় তাই নতুন করে অবশিষ্ট ব্যবহারকারীরাও পাওয়ায় এর ব্যবহার ব্যাপক হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ