আপনার করনীয় কাজগুলো ব্লগে কাঙ্খিত ভিজিটর পেতে

2
343

অনেক দিন পর আপনাদর মাঝে ফিরে এলাম ,আশা করি সকলে ভাল আছেন ,এদানিং সবাই নিজের একটা ব্লগ বা ওয়েবসাইট বানাছে। কেউ শখের বসে , কেউ বা টাকা ইনকামের জন্য । কিন্তু অনেকের মধ্যে একটা ভুল ধারন আছে , তারা মনে করে ব্লগ বানালেই মনে হয় হাজার হাজার ভিজিট এসে যাবে ! কেউ কেউ নিজে নিজে লিখতেছে আবার কেউ কেউ বিভিন্ন জায়গা হতে কপি-পেস্ট করে ব্লগ ভরিয়ে দিচ্ছে , কিন্তু ব্লগ তেমন ভিজিটর পাচ্ছে না। ফলাফল কয় একদিন পর ব্লগিং থেকে বিদায় নিচ্ছে। ঝড়ে যাচ্ছে কিছু ভাল মেধা , যাদের কাছ থেকে হয়ত বা আমরা আর নতুন কিছু পেতে পারতাম। তবে আমার আজকের এই পোস্ট সেই সব ব্লগারদের জন্য যারা নিজে নিজে ব্লগ লিখতেছে কোন কপি-পেস্ট করতেছে না এবং অনেক শ্রম দিচ্ছেন।

আপনি একজন ব্লগার , একবার চিন্তা করুন আপনি যখন ব্লগ খুলেছে কখন চিন্তা করেছে আপনি কি জন্য ব্লগ খুলতেছেন? কেন ব্লগ খুলতেছেন? কোন বিষয়ের উপর ব্লগ খুলতেছেন? কি আমি জানি অনেকেই এই চিন্তা গুলো করে না । আপনি যদি টাকা ইনকামের কথা চিন্তা করে ব্লগিং করেন তাহলে ভুল করছেন, আপনাকে ব্লগিং করতে হবে নিজের ভালবাসা থেকে, কারন কোন বিষয় যদি ভালবাসা না থাকে তাহলে সেই কাজ হতে সাফল্য পাওয়া সম্ভব না। আপনি যদি একজন সফল ব্লগার হতে চান বা আপনার ব্লগকে পপুলার করতে চান তা হলে নিচের জিনিস গুলো অনুসরন করতে চেস্টা করুন।

সুন্দর একটা ব্লগের নাম নির্বাচন করুন

একটা ব্লগ বা ওয়েবসাইটের ডিজাইন ভাল হলে হয় না এর ডোমেইন নাম অনেক বড় একটা ব্যপার। আপনার প্রথমে একটা ভাল ডোমেইন নাম সংগ্রহ করতে হবে। আপনি আগে আপনার ডোমেইন নেম টা নির্বাচন করুন এরপর আপনার ডোমেইন নেম চেক করে দেখুন আছে কি না। যদি থাকে আপনি এটা ইন্টারনেট থেকে কিনতে পারবেন । অনলাইন এ ডোমেইন নেম রেজিস্ট্রেশন করার কয় একটা পপুলার সাইট হল

এগুলো থেকে ডোমেইন নেম রেজিস্ট্রেশন করতে আপনার খরজ হবে ৭-১০ ডলারের মত যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৬০০-৭০০ টাকা । এবং প্রতি বছর এর রেনু ফি ৭-১০ ডলার অর্থাৎ আপনার প্রতি বছর ব্যয় হচ্ছে প্রায় ৭০০ টাকা । খূব একটা বেশি না । আর আপনি অনলাইনে এই ডোমেইন নেম কিনতে আপনাকে পেপাল বা ভিসা কার্ড ,মার্স্টার কার্ড ব্যবহার করতে হবে। এছাড়া এ ব্যবস্থা না থাকলে আপনি বাংলাদেশী কোম্পানি গুলো হতে আপনি বাংলাদেশী টাকায় ডোমেইন নেম রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন ।

এবার আমি ডোমেইন নেম নেয়ার সময় যে দিক গুলোর কথা আপনার খেয়াল রাখতে হবে তাহল

  • সবচেয়ে সহজ নামে ডোমেইন নেম নির্বাচন করুন যাতে আপনার ভিজিটরা সহজে আপনার ডোমেইন নেম টা মনে রাখতে পারে ।যেমন http://www.bdtutorial24.com
  • আপনার ডোমেইন নেম যাতে কোন বড় মানের ওয়েবসাইটের [www.google.com ,www.yahoo.com] সাথে মিলে না যায় । যেমন http://www.bdyahoo24.com , http://www.bdgoogle24.com ইত্যাদি। এতে আপনার ডোমেইন নেম সমস্যা হতে পারে এবং আপনার নামে বাতিল হতে পারে ।তাই এ বিষয় টা মনে রাখবেন ।
  • ডোমেইন নেম বড় হলে যেমন http://www.fahimrezabadhon.com এটা মনে রাখা কঠিন হতে পারে , তাই এই নামের মাঝে আপনি ডেশ [-] ব্যবহার করতে পারেন যেমন http://www.fahim-reza-badhon.com
  • ডোমেইন নেম বড় করা হতে বিরত থাকুন । যেমন http://www.thelongestlistofthelongeststuffatthelongestdomainnameatlonglast.com

ব্লগের জন্য ভাল একটা লোগো ডিজাইন করুন

ব্লগ সুন্দর কাজ করলেন কিন্তু একটা ভাল লোগো নাই জিনিস্ টা কেমন হল বলুন তো? লোগো আপনার সাইটের নাম এর বৈশিস্ট বহন করে! লোগো দেখে যেন বুঝা যায় এটা অমুখ ভাই/বোনের ব্লগ বা ওয়েব সাইট, তাই না। আপনি নিজে যদি লোগো ডিজাইন না জানেন কিছু পয়সা খরজ করেন না কেন? এখানে তো একবারেই ইনভেস্ট করবেন কিন্তু এর প্রফিট সারা জীবন পাবেন। তাই একটা ভাল লোগো ডিজাইন করুন এতে আপনার সাইটের কিছু টা হলেও গ্রহন যোগ্যতা বাড়বে।

নিয়মিত পোস্ট দিন

খুব ধুম ধাম ব্লগ ডিজাইন করলেন কিন্তু আপনি আপনার ব্লগে নিয়মিত না তাহলে আপনার পাঠকরা কেন নিয়মিত হবে? ব্লগ এর প্রান হচ্ছে পাঠক ও পোস্ট । আপনার ব্লগে যত মানসম্পন পোস্ট দিবে সেরকম হারে পাঠক পাবেন। আপনি ব্লগে নিয়মিত পোস্ট করে দেখুনতো পাঠক কেমন হারে বাড়তে থাকে।এভাবে দেখবেন একটা সময় আপনার ব্লগে এমন একটা পাঠকগোষ্টী সৃস্টি হয়েছে যারা নিয়মিত আপনার ব্লগ পড়তেছে এবং মন্তব্য করতেছে। তাই আপনার ব্লগে আপনি একটু নিয়মিত হবার চেস্টা করুন।

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন হল এমন একটা মাধ্যম যা আপনার সাইটে অনেক ভিজিটর এনে দিতে পারে। আপনি আপনার ব্লগের সুবিধাদি নিয়ে লিফটলেট বানাতে পারেন তা বিতরন করুন এছাড়া বিভিন্ন ব্লগ ম্যাগাজিন , পেপারে আপনার ব্লগ বা সাইটের রিভিও দিন। পাশাপাশি আপনি নিজে নিজে সবাইকে জানান, আপনি যদি ভার্সিটির স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন তাহলে বন্ধুদের জানা তাদের লিঙ্ক শেয়ার করার কথা বলুন। আপনার সাইটে যদি ভাল পোস্ট পায় দেখবেন এখান থেকে কিছু নিয়মিত পাঠক পাবেন।

অন্যের ব্লগে মন্তব্য করুন এবং মন্তব্যের জবাব দিন

আপনি অন্য ব্লগে মন্তব্য করুন এবং সেখানে আপনার আইডি হিসাবে আপনার সাইটের নাম দিন। এছাড়া আপনি বিভিন্ন ফোরামের সাথে থাকুন , সেখানে যে সাক্ষর দেওয়ার স্থানে আপনি আপনার লোগো সাথে আপনার সাইটের লিঙ্ক দিন দেখবেন এখান থেকে আপনি ভাল কিছু ভিজিটর পাবে এবং এতে আপনার পেজ র‍্যাংক একটু উন্নতি হবে।

ইউনিক আর্টিকেল লিখুন

সব সময় ইউনিক পোস্ট দেওয়ার চেস্টা করবেন অর্থাৎ আপনি যে পোস্ট করবেন অন্য ব্লগ যেন এই পোস্ট না থাকে । চেস্টা করবেন সাম্প্রতিক ঘোটে যাওয়া বিষয় গুলো নিয়ে লিখতে, এতে ভাল ভিজিটর পাওয়া যায়। সময় এমন টপিক নির্বাচন করুন যা পাঠকরা চায় , পাঠকদের চাহিদার কথা জানার চেস্টা করুন এবং সেই রকমের পোস্ট দিন।

 

ই-মেইলে সাক্ষর ব্যবহার করুন

আপনি আপনার ইমেইল এ সাক্ষর ব্যবহার করুন।আপনার সাক্ষর হিসাবে আপনার ব্লগের লোগো এবং তাতে আপনার লিঙ্ক দিয়ে দিন। আপনি বিভিন্ন সময় অনেকেই মেইল করে থাকেন , এতে আপনার ব্লগের লিঙ্ক বিভিন্ন যায়গায় চলে যাবে এবং এ থেকে আপনি কিছু ভিজিটর পেতে পারেন

নিউজলেটার সিস্টেম চালু রাখুন

আপনি আপনার ব্লগে নিউজলেটার সার্ভিস চালু রাখুন। কারন সব ভিজিটরের পক্ষে প্রতিদিন আপনার ব্লগ আসা সম্ভব না , তাই তাদের সুবিধার জন্য নিউজলেটার সার্ভিস চালু রাখুন। আর আপনাদের এই সুবিধা দিচ্ছে FeedBurner

ফেসবুকে শেয়ার করার ব্যবস্থা রাখুন

এই সময় ব্লগকে পপুলার করা মাধ্যম হল ফেসবুক। আপনি এই ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার ব্লগ অনেক ভিজিটর বা পাঠক পেতে পারেন। আপনি আপনার ব্লগের নামে একটা পেজ ওপেন করুন, পেজ তি সবার সাথে শেয়ার করুন এবং আপবার আপনার ব্লগের সর্বশেষ পোস্ট আপডেট করার ব্যবস্থা রাখুন দেখবেন এখান থেকে আপনি অনেক পরিমান ভিজিটর পাচ্ছেন। এছারা আপনি আপনার ব্লগ ফেসবুক লাইক বাটন বা ফেসবুক শেয়ার বাটন ব্যবহার করুন এতে আপনার ব্লগের পাঠকরা তাদের বন্ধুদের কাছে শেয়ার করতে পারবে।

টুইটারে শেয়ার করার ব্যবস্থা রাখুন

এই সময় ব্লগকে পপুলার করা আর একটা মাধ্যম হল টুইটার । আপনি এই টুইটারের মাধ্যমে আপনার ব্লগ অনেক ভিজিটর বা পাঠক পেতে পারেন। আপনি আপনার ব্লগের নামে একটা টুইটার একাউন্ট ওপেন করুন, আপনার ব্লগের সর্বশেষ পোস্ট আপডেট করার ব্যবস্থা রাখুন দেখবেন এখান থেকে আপনি অনেক পরিমান ভিজিটর পাচ্ছেন। এছারা আপনি আপনার ব্লগ টুইটার শেয়ার বাটন ব্যবহার করুন এতে আপনার ব্লগের পাঠকরা তাদের বন্ধুদের কাছে শেয়ার করতে পারবে।

 

অপ্রয়োজনীয় পোস্ট করা থেকে বিরত থাকুন

অনেকে দেখায় যায় তারা যা পায় তা নিয়ে লিখে , কিন্তু আপনাকে চিন্তা করতে হবে বর্তমান পাঠকরা কি চায় ! আপনার ব্লগে সব সময় চেস্টা করবেন অপ্রয়োজনীয় পোস্ট না করা। কারন এথেকে আপনি অনেক পাঠক হারাতে পারেন। আপনি যদি সঠিক ভাবে পাঠকদের চাহিদা মিটাতে না পারেন তাহলে একসময় আপনার ব্লগ পাঠক শূন্য হয়ে যাবে। তাই অপ্রয়োজনীয় পোস্ট করা বন্ধ করে কম হলেও কাজের পোস্ট করুন।

সহজ শব্দ বা বাক্য ব্যবহার করুন

শব্দ বা বাক্য একটা পোস্ট অনেক বড় জিনিস। আপনি যদি এমন শব্দ ব্যবহার করেন যা আপনার পাঠকরা বুঝতে না পারে তাহলে সেই পোস্ট করার কোন মানে হয়। কোন ভাল আর্টিকেল লেখার সময় মনে রাখবেন যত সহজ ভাষায় আপনি আপনার পাঠকে বুঝাতে পারেন। অঝথা কঠিন কোন বাক্য বা শব্দ ব্যবহার করবেন না। আশা করি এই ব্যপার টা মাথায় রাখবেন।

আমি এই পোস্ট করেছি আমার নিজের অভিজ্ঞতা থেকে। এখানের অনেক জিনিস বা সব জিনিসেই আপনার জানা থাকতে পারে কিন্তু আপনি হয়ত কাজে লাগাছেন না। আমার মনে হয় আপনি এই জায়গায় বড় একটা ভুল করতেছেন। আমি এখানে যা বলেছি তা থেকে একটি কথায় বলতে চাই আপনি যদি ভাল মানের আর্টিকেল লিখেন , ইউনিক আর্টিকেল আর নিয়মিত হতে পারেন আপনি অবশ্যই সাফল্য পাবেন। আর ব্লগিং এ একটু ধর্য্য ধরুন দেখবেন সাফল্য আসবেই। আর সেই সাফল্যের যে কি আনন্দ বা মজা তা যারা পায় শুধু তারাই জানে। যা হোক এতখন আমার এই বিরক্তকর লেখাটা পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। ভাল থাকেব আমার জন্য দোয়া করবেন , এভাবে যে আমি আপনাদের মাঝে থাকতে পারি আর বাংলা ব্লগিং করে যেতে পারি। খোদা হাফেজ

আমার ব্লগ দেখতে পারেন

 

2 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ