আসবাবপত্র ও নির্মান কাজে ব্যবহৃত কাঠের আয়ুষ্কাল বৃদ্ধি করুণ সহজে

1
1502

বাংলাদেশের শতকরা ৭০-৮০  জনের বেশী লোকের বাস গ্রামে। গ্রামীণ ঘরবাড়ির অবকাঠামোর প্রধান উপকরণ বাঁশ ও কাঠ। কিন্তু এসব সামগ্রী সহজেই কীট-পতঙ্গ ও ছত্রাক দ্বারা আক্রান্ত হয়ে থাকে। বিভিন্ন ছত্রাক ও কীট-পতঙ্গ নির্মাণ কাজে ও আসবাবে ব্যবহৃত বাঁশ-কাঠের প্রধান শত্র“। যে কারণে বাঁশের খুঁটি ১ থেকে ২ বৎসরের মধ্যেই পচে যায় এবং কাঠের মধ্যে শাল ও সেগুন জাতীয় কাঠ ছাড়া অন্যান্য কাঠ ২-৩ বৎসরের মধ্যে নষ্ট হয়ে যায়। এছাড়া অসার ও কম ঘনত্বের কাঠ দ্বারা তৈরী আসবাব ও পোকা দ্বারা আক্রান্ত হয়ে ২-৩ বছরেই নষ্ট হয়ে যায়। তাই আসবাবের কাঠ ও নির্মাণ সামগ্রীগুলোকে রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে সংরণ বা প্রক্রিয়াজাত করে নিলে তিকারক কীট-পতঙ্গ বা ছত্রাক সহজে আক্রমণ করতে পারে না। এতে ব্যবহারিক আয়ুষ্কাল বেড়ে যায়। টিকে বেশীদিন, সাশ্রয় হয় অর্থের ও সম্পদের। আসবাব বা ঘরের অভ্যন্তরে সামগ্রী যা মাটি-পানির সংস্পর্শে আসে না সেগুলো সংরণের জন্য প্রয়োজন বোরাক্স-বরিক এসিড (বিবি) এর দ্রবণ। আর বহিবাঙ্গনে ব্যবহৃত সামগ্রী অর্থাৎ যেগুলো মাটি-পানির সংস্পর্শে থাকবে সেসব দ্রব্য সামগ্রীগুলোর জন্য কপার-ক্রোম-বোরনের (সিসিবি) সম্মিলিত দ্রবণ ব্যবহৃত হয়।
সংরণী প্রস্তুত ও প্রয়োগ কিভাবে করবেন

রাসায়নিক সংরণীয় মিশ্রণ ও প্রস্তুত প্রণালী
আসবাব ও ঘরের অভ্যন্তরে ব্যবহার্য জিনিস পত্রের জন্য বোরাক্স (সোহাগা)-বোরিক এসিড (বিবি) দ্রবণের প্রস্তুতে ১ ভাগ বোরাক্স(সোহাগা) ও ১ ভাগ বোরিক এসিড সমভাবে নিতে হবে (অনুপাত ১ ঃ ১)।
বাহিরে ব্যবহৃত জিনিসের জন্য সিসিবি দ্রবণ তৈরিতে কপার সালফেট (তুঁতে)- সোডিয়াম ডাইক্রোমেট-বোরিক এসিডের দ্রবণ প্রস্তুতের জন্য ২ ভাগ কপার সালটেফট, ২ ভাগ সোডিয়াম ডাইক্রোমেট এবং ১ ভাগ বোরিক এসিড নিতে হবে (অনুপাত ২ ঃ ২ ঃ ১)।

সংরণী প্রয়োগের নিয়মাবলী
চাহিদা অনুযায়ী কাঠ চেড়াই করার পর ভাল ভাবে শুকিয়ে নিন।
নির্দিষ্ট আসবাব বা দরজা-জানালা প্রস্তুতের জন্য কাঠগুলো প্রয়োজনীয় সাইজ মত কেটে কেটে টুকরো করে নিন। প্রয়োজনীয় যান্ত্রিক কাজ যথা : রানদা, ছিদ্র করা ইত্যাদি কাজ শেষ করে নিন।
কাঠের ন্যায় বাঁশও ব্যবহারের পূর্বে সাইজ মত কেটে শুকিয়ে নিন। সংরণী প্রয়োগের পর কাটা-ছেঁড়া না করাই ভালো।
আসবাব সংরণের জন্য বোরাক্স-বোরিক এসিড (বিবি) এবং বাহিরে ব্যবহারের জন্য নির্মান সামগ্রীর বেলায় কপার সালফেট (তুঁতে), সোডিয়াম ডাইক্রোমেট ও বরিক এসিড (সিসিবি) সম্মিলিত দ্রবণ তৈরী করুন।
সাইজ করা কাঠ বা বাঁশ চুবানোর জন্য একটি ট্যাংক লাগবে।
ট্যাংকটি পাকা, টিন (প্লেইন শীট) বা কাটা ড্রাম দিয়েও তৈরী করতে পারেন।  এছাড়া সাময়িক ভাবে গর্ত করে তাতে পলিথিন শিট বিছিয়েও ট্যাংক তৈরী করা যেতে পারে।
প্রথমে সাইজ করা কাঠ বা বাঁশের সামগ্রীগুলো ট্যাংকে স্থাপন করে উপরে ভারী বস্তা দিয়ে চাপা দিন।
ট্যাংকে সংরণী দ্রবণ এমনভাবে ঢালুন যেন মিশ্রণের পরিমাণ সংরণী সামগ্রীর অন্ততঃ তিন ইঞ্চি উপরে থাকে।
আসবাব পত্রের বেলায় সাময়িক ভাবে সংরণের জন্য বোরাক্স-বোরিক এসিড দ্রবণ দ্বারা ¯স্প্রে পদ্ধতির মাধ্যমে সংরণ করা যেতে পারে।
আসবাব ও ঘরের অভ্যন্তরে ব্যবহৃত নির্মাণ সামগ্রীগুলো সংরণের জন্য প্রয়োজন ১০ ভাগ ঘনত্বের বোরাক্স-বোরিক এসিডের দ্রবণ। এই ঘনত্বের ১০০ লিটার বোরাক্স-বোরিক এসিডের সংরণী দ্রবণ প্রস্তুতের জন্য লাগবে ঃ বোরাক্স (সোহাগা) = ৫ কেজি,  বোরিক এসিড = ৫ কেজি,  পানি = ৯০ কেজি। মোট = ১০০ কেজি।
বহিরাঙ্গনে ব্যবহৃত কাঠের খুঁটি, দরজা-জানালা ইত্যাদি সংরণের প্রয়োজন ১০ ভাগ ঘনত্বের সিসিবি দ্রবণ। এই ঘনত্বের ১০০ লিটার সিসিবি দ্রবণ প্রস্তুতের জন্য প্রয়োজন ঃ কপার সালফেট (তুঁতে) = ৪ কেজি,  সোডিয়াম ডাইক্রোমেট = ৪ কেজি,  বোরিক এসিড = ২ কেজি,  পানি = ৯০ কেজি। মোট = ১০০ কেজি।
এছাড়া সহজ ভাবে বা অল্প দ্রবণ তৈরীর ক্ষেত্রে ১০% বিবি বা সিসিবি দ্রবণের জন্য ১ কেজি ঔষধ এবং ৯ কেজি পানি লাগবে।

বাঁশের খুঁটি সংরণে পদ্ধতি
৮-১০ ফুট লম্বা খুঁটি সহজেই রস অপসারণ বা স্যাপ ডিসপ্লেসম্যান্ট পদ্ধতিতে সংরণ করা যায়। এ জন্য দরকার ২০ ভাগ ঘনত্বের সিসিবি দ্রবণ। ২০ ভাগ ঘনত্বের ১০০ লিটার সংরণী দ্রবণ প্রস্তুতের জন্য লাগবে ঃ কপর সালফেট (তুঁতে) = ৮ কেজি,  সোডিয়াম ডাইক্রোমেট = ৮ কেজি,  বোরিক এসিড = ৪ কেজি,  পানি ৮০ কেজি। মোট ১০০ কেজি।
খুঁটি সংরণের জন্য সদ্যকাটা বাঁশের কঞ্চিগুলি ছেটে ৭-১০ ফুট লম্বা টুকরা করুন। তারপর একটি ড্রামে সংরণী দ্রবণে খুঁটিগুলির এক প্রান্ত ডুবিয়ে দিন। ড্রামে সংরণীয় গভীরতা কমপে দুই ফুট থাকতে হবে। সংরণ প্রক্রিয়া চলাকালীন সময়ে দ্রবণের উচ্চতা ২ ফুট রাখার জন্য প্রয়োজনে নতুন নতুন ঢালতে হবে। এভাবে ৩-৪ দিন রাখুন। ৩-৪ দিন পর খুঁটিগুলোর অপর প্রান্ত একই দ্রবণে ডুবিয়ে আবার ৩-৪ দিন রাখুন। তারপর দ্রবণ থেকে উঠিয়ে ২-৩ দিন ছায়ায় শুকিয়ে নিন।

সংরণের সময়কাল
বিবি ও সিসিবি উভয় দ্রবণের ক্ষেত্রে ১ ইঞ্চি  পুরু তক্তা বা কাঠ কমপে ৬-৭ দিন দ্রবণে চুবিয়ে রাখতে হবে। আর ২ ইঞ্চি বা ৩ ইঞ্চি পুরু কাঠের বেলায় ৭-১০ দিন চুবিয়ে রাখতে হবে।
চেরাই বা ফাঁলি বাঁশের জন্য ১০% সিসিবি দ্রবণে ২ থেকে ৩ দিন চুবিয়ে নিতে হবে। আর বাঁশের খুঁটি, আড়া, তীর এর জন্য স্যাপ ডিসপ্লেসমেন্ট পদ্ধতিতে ২০% সিসিবি দ্রবণে ৭-১০ দিন খাঁড়া ভাবে রাখতে হবে।

মনে রাখবেন
সংরণী প্রয়োগের পূর্বে তৈরীকৃত দ্রব্য সামগ্রী অবশ্যই ভালভাবে পরিষ্কার, শুষ্কিকরণ এবং সংরণী দ্রবণ বিষাক্ত বিধায় গবাদি পশু ও শিশুদের লাগালের বাইরে রাখুন।
যাবতীয় কার্পেটিং কাজ করে নিতে হবে।
সংরণী প্রয়োগের পর সামগ্রীগুলি ছায়ায় ২-৩ দিন শুকিয়ে নিতে হবে
কাজের সময় যদি কাঠ বা বাঁশ কোন ক্রমে কাটতেই হয় তবে কাটাস্থানে পুণরায় সংরণী দ্রবণ লাগিয়ে দিতে হবে।

যে সব বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করবেন
সংরণী প্রয়োগের সময় হাতে রাবারের দাস্তানা ব্যবহার করুন।

আমার ব্লগ  All Famous media>>

 

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ