আমাদের ফেসবুক ও ফেসবুকে আমরা :: একটি সচেতনমূলক আর্টিকেল

0
286
আমাদের ফেসবুক ও ফেসবুকে আমরা :: একটি সচেতনমূলক আর্টিকেল

প্রীতম চক্রবর্তী

জুবিটেক (ZubyTech) ব্লগিং কমিউনিটি গড়ে উঠছে টেকনোলজি এবং ব্লগিংকে ঘিরে। সবসময় টেক, অ্যান্ড্রয়েড, প্রোগ্রামিং, টিউটোরিয়াল, ওয়ার্ডপ্রেস সহ আরও অনেককিছু সম্পর্কে আপডেটেড থাকতে ভিজিট করুন http://www.zubytech.com । সবাইকে ধন্যবাদ এবং নিয়মিত ভিজিট করুন জুবিটেক ব্লগ।
আমাদের ফেসবুক ও ফেসবুকে আমরা :: একটি সচেতনমূলক আর্টিকেল

আমাদের ফেসবুক ও ফেসবুকে আমরা :: একটি সচেতনমূলক আর্টিকেল

প্রত্যেকটা জিনিসের ভালো ও খারাপ দুটো দিকই আছে। যেমনঃ ফেসবুক। ফেসবুকের মাধ্যমে আমরা একজনের মতামত অন্যজনের সাথে ভাগাভাগি করতে পারছি। বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতে পারছি, সবার খোঁজ খবর নিতে পারছি। একে অন্যকে যেকোনো বিষয়ে সহযোগিতা করতে পারছি। এছাড়াও, ফেসবুকের মাধ্যমে আরও নানারকম কাজ করা যায় যেসব আমাদের অনেক উপকারে আসে।

তেমনি আছে খারাপ দিকও। যেমনঃ পর্ণ পেইজ খোলা, পর্ণ গ্রুপ খোলা, পর্ণ ছবি দেওয়া ইত্যাদি। এসব কুকর্মের ফলে আমাদের চরম অসুবিধায় পরতে হয়। এসব বিষয় থেকে বাচতে আমাদেরই সচেতন হতে হবে। আমরা না জেনেশুনেই মাঝেমধ্যে অনেকের ফ্রেন্ড রেকোয়েস্ট একসেপ্ট করে ফেলি। আমাদের উচিৎ পরিচিত না হলে কারো ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট একসেপ্ট না করা।

এছাড়া, আজেবাজে গ্রুপ অথবা পেজ দেখলে সাথেসাথে ফেসবুকে রিপোর্ট করা। এতে করে আমরা নানা ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা থেকে বাচতে পারবো।

একটা ঘটনা বলি- আজকে সকালবেলা ফেসবুকে ঢুকে দেখি ৪৫ টা ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট! এর ভেতর থেকে একজনকেও আমি চিনি না। হঠাৎ একজনের প্রোফাইলে ঢুকে দেখি বাবার নাম লিখেছে ‘ক্রিস গেইল’। আর মায়ের নাম লিখেছে ‘দীপিকা পাড়ুকোন’। সে কাজ করে ‘হোয়াইট হাউসে’। পুরো প্রোফাইল আজেবাজে ছবি দিয়ে ভরা।
চিন্তা করুন, আমি যদি তার ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট একসেপ্ট করতাম তাহলে, আমাকে আজেবাজে ছবিতে ট্যাগ করে অথবা আমার টাইমলাইনে আজেবাজে ছবি পোস্ট করে আমাকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে দিত।

আসুন, সবাই সচেতন হই। না জেনেশুনে কারো ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট একসেপ্ট না করি, আর আজেবাজে পেজ বা গ্রুপ দেখলে ফেসবুকে রিপোর্ট করি।

লিখাটি পড়ার জন্য সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

একটি উত্তর ত্যাগ