ওডেস্ক অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড হওয়ার ৯টি কারণ এবং সমাধান

4
380

ওডেস্ক অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড হওয়ার ৯টি কারণ এবং সমাধানঅতি সম্প্রতি ওডেস্কে বাংলাদেশসহ বেশ কিছু দেশের ফ্রিল্যান্সারদের অ্যাকাউন্ট ব্যান করা হয়েছে। যেসব অ্যাকাউন্ট ব্যান করা হয়েছে সেগুলি পর্যালোচনা করলে জানা যায় তাতে ব্যান হওয়ার মত যথেষ্ট কারণ ছিল। শুধুমাত্র ফ্রিল্যান্সারদের নয় বরং বায়ারদেরও অ্যাকাউন্ট ব্যান করা হচ্ছে এবং এগুলির পিছনে যথেষ্ট কারণ রয়েছে। তাই আপনাদের যাদের ওডেস্ক অ্যাকাউন্ট রয়েছে তাদের এখনই সময় সতর্ক হবার। কারণ, সাবধানের মার নাই। আমাদের সকলের একটা দোষ আছে সেটি হচ্ছে রোগ একবার হয়ে গেলে সেটি সারানোর জন্য ওষুধ তো ওষুধ পারলে ডাক্তার, বদ্যি, কবিরাজ ও বেটে খাই। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় কাজের কাজ আর হয় না। অথচ রোগটি হওয়ার পূর্বে আমাদের এ ব্যাপারে কোন সচেতনতা থাকে না। তাই আমাদের আগেভাগেই জানতে হবে কি কি কারণে রোগ হয় এবং রোগ যেন না হয় সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে । কারণ আমরা সকলেই জানি “Prevention is better than cure”.

তো চলুন আগে দেখে নেওয়া যাক কি কি কারণে ওডেস্কের আ্যাকাউন্ট ব্যান হতে পারে।

১. এক পিসি থেকে একাধিক অ্যাকাউন্ট খোলা

একই পিসি বা আইপি থেকে একাধিক ওডেস্ক অ্যাকাউন্ট তৈরী করা। এটি ওডেস্ক অ্যাকাউন্ট ব্যান হওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ।

৩. কাভার লেটার স্প্যামিং

ওডেস্ক অ্যাকাউন্ট ব্যান হওয়ার আরেকটি বড় কারণ কাভার লেটার স্প্যামিং, যেটির কারণ মূলত কপি পেস্ট। মনে রাখবেন কপি পেস্ট করা আপনার জন্য হারাম। অন্যের কাভার লেটার তো কপি করবেনই না, বরং নিজের কাভার লেটারও বারংবার কপি না করে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে লিখুন।

৪. কাভার লেটারে কন্টাক্ট ইনফরমেশন দেওয়া

এবার একটা সহজ বিষয় বলব। যেটা ”আমরা সকলেই জানি, তবে অনেকেই না মানি” এই টাইপের। সেটি হচ্ছে কাভার লেটারে কোন প্রকার কন্টাক্ট ইনফরমেশন দেওয়া। কন্টাক্ট ইনফরমেশন দিলে আপনার অ্যাকাউন্ট ব্যান হয়ে যাবে এ ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই।

৫. বায়ারদের জন্য সতর্কতা

আপনাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা ওডেস্কের বায়ার। তাদের জন্য একটা সতর্কবাণী। আপনারা আপনাদের নিজস্ব কোন টিম মেম্বারকে হায়ার করবেন না। এতে আপনার অ্যাকাউন্ট ব্যান হয়ে যেতে পারে। তাছাড়া আপনার অ্যাকাউন্টে যদি টাকা না থাকে তাহলে পরে পে করবেন। কাউকে কোন রকম এডভান্স পেমেন্ট করবেন না। এ কাজটি করলে আপনিও ক্ষমা পাবেন না। সুতরাং এসব ঝামেলা এড়িয়ে চলুন।

৬. বায়ারের সঙ্গে বাকবিতন্ডা করা

বায়ার যদি আপনার সাথে কোন রকম ৯/৬ করে তাহলে নিজে আ্যকশনে যাবার কোন দরকার নেই। বায়ারের সাথে কোন রকম বাকবিতন্ডা করবেন না। কারণ বায়ারের নেগেটিভ কমপ্লিমেন্ট আপনার ক্ষতির কারণ হতে পারে। তাই এক্ষেত্রে আপনি বায়ারের সকল উল্টা পাল্টা কর্মকান্ডের স্ক্রীনশট, তথ্য প্রমানাদি সংরক্ষন করুন এবং ঠান্ডা মাথায় ওডেস্ক কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দিন। তাহলে ওডেস্কই বায়ার বেটাকে বুঝিয়ে দেবে “কত গমে, কত আটা”।

৮. প্রোফাইল নকল করা

কখনই অন্যের প্রোফাইলের কার্বনকপি আপনার প্রোফাইলে বসাবেন না, সোজা বাংলায় নকল করবেন না। নকল করলেন তো মরলেন; মানে আপনার ওডেস্ক অ্যাকাউন্ট সোজা মায়ের ভোগে চলে যাবে। একটা কথা মনে রাখবেন, ভাল একজন ফ্রিল্যান্সারের প্রোফাইলের অনুকরণ নয়, অনুসরণই আপনাকে সঠিক গন্তব্যে পৌছাতে সাহায্য করতে পারে।

৯. অন্যের পোর্টফোলিও নিজের নামে চালানো

এখন যে কথাটি বলব সেটি আপনি ভালভাবেই জানেন। তারপরও একবার মনে করিয়ে দিই। আপনি কখনই অন্যের পোর্টফোলিও নিজের নামে চালাতে যাবেন না। যদি এ কাজটি করেন তাহলে ফলাফল নগদেই হাতে হাতে পেয়ে যাবেন্। ফলাফল যে কী সেটা আর বলার প্রয়োজন মনে করলাম না। ইতিমধ্যেই যারা আ্যাকাউন্ট ব্যানের শিকার হয়েছেন তাদেরকে বলব ভেঙ্গে পড়ার কিছু নাই। আবার নতুনভাবে সবকিছু শুরু করুন। অন্যদিকে যারা নতুনভাবে অল্প বিস্তর কাজ শিখে সবেমাত্র আ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন, তাদেরকে বলব আপনারা ভালভাবে কাজ শিখুন, তারপর সবকিছু শুরু করুন। এটি আপনার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারকে সাফল্যমন্ডিত করতে সাহায্য করবে।

আর যাদের ওডেস্ক আ্যাকাউন্ট এখনও সহী সালামতে আছে তারা উপরে উল্লেখিত ভুলগুলি করা থেকে নিজেদের শত হাত দুরে রাখবেন। তাহলে আশা করি আল্লাহর রহমতে আপনার আ্যকাউন্টের কোন সমস্যা হবে না। নতুনভাবে যারা আ্যাকাউন্ট খুলবেন তারা অবশ্যই প্রোফাইলটা সুন্দর করে সাজাবেন। জানেনতো কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে একটা ভাল প্রোফাইলের গুরুত্ব কতখানি। এছাড়াও আপনার আ্যকাউন্ট ভেরিফিকেশনের কাজটি আগেভাগেই সেরে নিন। এটি আপনার আ্যকাউন্টের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সহায়তা করবে।

ওডেস্ক অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড হওয়ার ৯টি কারণ এবং সমাধান

সবশেষে আরেকটি কথা, আপনি চাইলে কিছুদিনের জন্য আপনার আ্যকাউন্টটি প্রাইভেট করে দিতে পারেন যেন কেউ এটি দেখতে না পারে। জানেনতো, সময় খারাপ। যদি কেউ শত্রুতাবশত আপনার আ্যকাউন্টটি ফ্ল্যাগ করে দেয়, তাহলে সেটি আপনার জন্য বিপদ ডেকে আনবে। তাই বলি ভাই ”সাবধানের মার নাই”। তবে এটি আপনার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত, ভেবে দেখুন কি করবেন।

তো বন্ধুগণ আজকের মত এখানেই পোস্ট শেষ করছি। সামনে আবার হাজির হব নতুন কোন পোস্ট নিয়ে। ততদিন পর্যন্ত সবাই ভাল থাকবেন, সুস্থ্য থাকবেন।

হুমায়ুন আহম্মেদ, কনটেন্ট রাইটার

4 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ