ইলেকট্রিক্যাল এনার্জি ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন

4
444

GRAPH OF ENERGY 101 ইলেকট্রিক্যাল এনার্জি ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন | Techtunes ইলেকট্রিক্যাল এনার্জি ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন

চলুন জানি ইলেকট্রিক্যাল এনার্জি ট্রান্সমিশন ডিস্ট্রিবিউশন সম্পর্কে

ৎপাদন কেন্দ্র হতে আবাসিক ভবন পর্যন্ত বিদ্যু পৌছানোর নিমিত্তে পরিবাহী তারের এক বিশাল নেটওয়ার্ক ব্যবহূত হয়।ট্রান্সমিশন ডিস্টিবিউশন মূলত: এই বৈদ্যুতিক নেটওয়ার্কের প্রধান দুটি অংশ। ৎপাদন কেন্দ্র হতে লোড সেন্টারস্থ উপকেন্দ্র সমূহে বিদ্যু পরিবহনের জন্য ট্রান্সমিশন লাইন আর গ্রাহক প্রান্তে বিদ্যু বিতরনের জন্য ডিস্টিবিউশন লাইন।


ওভারহেড/আন্ডারগ্রাউন্ড ব্যবস্থায় এসি বা ডিসি যে কোন পদ্ধতিতে বৈদ্যুতিক পাওয়ার ট্রান্সমিশন ও ডিস্টিবিউশন হতে পারে।বর্তমানে এসি জেনারেশন ও ট্রান্সমিশনের জন্য ৩-Q,৩ তার এবং ডিস্ট্রিবিউশনের জন্য ৩-Q,৪ তার পদ্ধতি একটি সার্বজনীন সিস্টেম বা প্রথায় পরিণত হয়েছ।

ওভারহেড সিস্টেমের তুলনায় আন্ডারগ্রাউন্ড সিস্টেম অধিক ব্যয় বহূল।কাজেই নদী-মাতৃক বাংলাদেশের প্রায় সর্বত্র ওভারহেড ট্রান্সমিশন ও ডিস্টিবিউশন সিস্টেম প্রচলিত। যা হোক, ইৎপাদন কেন্দ্র থেকে গ্রাহক প্রান্ত পর্যন্ত সমগ্র বৈদ্যুতিক নেটওয়ার্ক অথাৎ ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেম পূনরায় প্রাইমারী ও সেকেন্ডারি এই উভয় অংশে বিভক্ত।

ট্রানাসমিশন লাইন:- উৎপাদন কেন্দ্রের প্রেরন প্রান্ত থেকে বিভিন্ন সাব স্টেশন পর্যন্ত উচ্চ পাওয়ার পরিবহনের জন্য যে বিশাল বৈদ্যুতিক নেটওয়ার্ক ব্যবহূত হয়,সেটি ট্রান্সমিশন লাইন।অধিক পাওয়ার পরিবহনের জন্য ট্রান্সমিশন লাইন সিঙ্গেল-সার্কিট বা ডাবল-সার্কিট হতে পারে। অপারেটিং ভোল্টেজের ভিত্তিতে ট্রান্সমিশন লাইন দু’ভাগে বিভক্ত :

ক. প্রাইমারি ট্রানাসমিশন :-২৩০ কেভি,১৩২ কেভি.
খ. সেকেন্ডারি ট্রানাসমিশন :৬৬ কেভি,৩৩ কেভি.

ডিস্ট্রিবিউশন লাইন:-সাব স্টেশন থেকে গ্রাহক প্রান্তে অথাৎ আবাসিক এলাকায় বিদ্যুৎ বিতরনের জন্য যে বৈদূতিক নেটওয়ার্ক ব্যবহূত হয়,সেটি হচ্ছে ডিস্ট্রিবিশন লাইন।অপারেটিং ভোল্টেজের ভিত্তিতে ডিস্ট্রিবিউশন দু’ধরনের হয়ঃক. প্রাইমারি ডিস্ট্রিবিউশন:১১ কেভি,৬.৬ কেভি,৩.৩ কেভি.
খ. সেকেন্ডারি ডিস্ট্রিবিউশন:৪৪০ ভোল্ট,২৩০ ভোল্ট.

এই পোস্টটি করার একমাএ উদ্দেশ্য হচ্ছে আপনাদের সকল কে ইলেকট্রিক্যাল এনার্জি ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন সম্পর্কে একটু ধারনা দেওয়া।আমি চেষ্টা করেছি সংক্ষিপ্ত আকারে সহজে বুঝাতে।যদি আপনাদের ভাল লেগে থাকে তবেই আমার লেখাটার উদ্দেশ্য সফল হবে।সবাই মন্তব্য করলে ভাল লাগবে।ধন্যবাদ………….

ছোট একটি খবর বাংলা অথবা কলকাতার নিত্য নতুন সব সিনেমার গান দিয়ে পরি পূর্ন ভাবে সাজানো হয়েছে music.a2zbd.info ।আপনারা চাইলে এই সাইট থেকে গান ডাউনলোড করতে পারেন।সাইটটির ঠিকানা: http://music.a2zbd.info

এ টু জেড বিডি এখন নতুন সাজে দেখুন………..

ফেইজবুক পোইজে যোগ দিন

4 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ