সাধারণ কিছু টিপস কিন্তু না দেখলে শিওর মিস-যত্নে রাখুন কম্পিউটার

16
550

আবারও ফিরে আসলাম আপনাদের মাঝে।কেমন আছেন আপনারা সবাই?আর কেমন যত্ন নিচ্ছেন আপনার কম্পিউটারের?অনেকসময় শুনি যে কম্পিউটার বুট আপ হইতে অনেক টাইম নিচ্ছে।অনেকেই বলেন উইনডোজে এই সমস্যা ঐ সমস্যা হচ্ছে,অমুক এ্যাপসে ঝামেলা তমুক সফটওয়্যারে ঝামেলা,অনেকেই অনেকরকম ঝামেলা নিয়ে  নিয়ে বিরক্ত হন।কিন্তু আমার মনেহয় আসল ঝামেলা অন্য জায়গায়,আমরা আসলে কম্পিউটারের যত্ন সঠিকভাবে নিতে পারিনা।কিছু টিপস শেয়ার করি আজ।টিপসগুলো নাড়াচাড়া করে দেখুন,ফলাফল ভাল পাবেন আশা রাখি।

কম্পিউটার সম্পূর্ণভাবে বুট আপ হওয়ার আগেই দেখা যায় আমরা কম্পিউটার মেন্যুতে প্রবেশ করে বসি বা অন্যকোন প্রোগ্রাম চালু করার জন্য কমান্ড দিয়ে বসে থাকি।আজ থেকে এই ধরণের কাজগুলো বন্ধ করে দিন।কম্পিউটার সম্পূর্ণভাবে বুট আপ হওয়ার আগে অন্য কোন প্রোগ্রাম চালু করা থেকে বিরত থাকুন।

সাধারণ কিছু টিপস কিন্তু না দেখলে শিওর মিস-যত্নে রাখুন কম্পিউটার

কোন এ্যাপ্লিকেশন বা কোন প্রোগ্রাম ক্লোজ করার পর ডেস্কটপ রিফ্রেশ করুন।এর ফলে রাম এ যদি ক্লোজ হয়ে যাওয়া প্রোগ্রাম বা এ্যাপ্লিকেশনের কোন অব্যবহৃত ফাইল থেকেও যায় তাহলে সেটা পরিষ্কার হয়ে যাবে।কম্পিউটার চালনায় রাম যে অপরিসীম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এইটা আপনারা সবাই জানেন।তাই কোন প্রোগ্রাম বা এ্যাপ্লিকেশন ক্লোজ করার পর ডেস্কটপ রিফ্রেশ করুন।

ডেস্কটপ যাতে সুন্দর দেখায় সেই জন্য অনেক সময়েই আমরা ডেস্কটপের ব্যাকগ্রাউন্ডে ওয়ালপেপার দিয়ে থাকি।এখন থেকে খেয়াল রাখবেন এই ওয়ালপেপারের সাইজ যেন খুব বেশী বড় নাহয়।যথাসাধ্য চেষ্টা করবেন ডেস্কটপ পরিষ্কার রাখার জন্য।

অনেক সময় দেখা যায় ইন্সটলড সফটওয়্যারের শর্টকাট আইকন দিয়ে আমরা সুন্দর করে ডেস্কটপ সাজিয়ে রাখি।এই কাজটা করা ছেড়ে দিন।ডেস্কটপে এখন থেকে কোন শর্টকাট রাখবেন না।কারণ ডেস্কটপে রাখা প্রতিটি শর্টকাট ৫০০ বাইট এর বেশী রাম এর জায়গা খরচ করে ফেলে।

প্রতিদিন রিসাইকেলবিন পরিষ্কার রাখুন।কারণ রিসাইকেলবিনে জমে থাকা ফাইলগুলো ডিলিট না করলে ড্রাইভে থেকে যায়।এই সাধারণ তথ্যটি সবার জানা আছে নিশ্চয়।

প্রতিমাসে অন্তত একবার করে হার্ড ড্রাইভ ডিফ্রাগমেন্ট করুন।ডিফ্রাগমেন্টের ফলে হার্ড ড্রাইভের ফাইলগুলো সুসজ্জিত হয়ে যায়,অনেক জায়গা অবমুক্ত হয়।এতে সফটওয়্যার বা এ্যাপ্লিকেশনের পারফরমেন্স ভাল থাকে।

হার্ড ড্রাইভে সবসময় দুইটি পার্টিশন রাখুন। ফটোশপ বা এই ধরণের বড় বড় সব সফটওয়্যারগুলো সেকেন্ড পার্টিশনে ইন্সটল করুন।সি ড্রাইভ যতদূর সম্ভব খালি রাখার চেষ্টা করুন।

সাধারণ কিছু টিপস কিন্তু না দেখলে শিওর মিস-যত্নে রাখুন কম্পিউটার

যে ধরনের এ্যাপ্লিকেশন বা সফটওয়্যারগুলো কম্পিউটার বুট আপ হওয়ার সাথে সাথে স্বক্রিয়ভাবে চালু হয়,সেই সফটওয়্যারগুলো ইন্সটল দেওয়ার সময় লক্ষ্য রাখুন যেন স্বক্রিয়ভাবে কখনও চালু নাহয়।তাহলে কম্পিউটার বুট আপ প্রসেস দীর্ঘায়িত হবেনা।

ধুলোবালি থেকে সাবধানে রাখুন আপনার কম্পিউটার।কারন ধুলোবালি যদি আপনার কম্পিউটারের সিপিইউ (সেন্ট্রাল প্রসেসিং ইঊনিট) তে প্রবেশ করে তাহলে বিভীন্ন সূক্ষ সূক্ষ সার্কিটে ঢুকে কার্যপ্রবাহে ঝামেলা সৃষ্টি করে।কুলিং ফ্যানের উপরেও চাপ সৃষ্টি হয়।কম্পিউটারের কাছ থেকে ভাল পারফরমেন্স আশা করবেন আর নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে কম্পিউটার ও অপারেটিং সিস্টেম উইনডোজের যত্ন নিবেন না তা কী হয় :D সাধারণ কিছু টিপস কিন্তু না দেখলে শিওর মিস-যত্নে রাখুন কম্পিউটার তাহলে টিপসগুলো নাড়াচাড়া করুন,আশা রাখি খুব দ্রুতই ফিরে আসব  আপনাদের মাঝে জিপিএস-৫ নিয়ে।

টিউনটি সর্বপ্রথম প্রকাশিত হয় www.elogbd.com

16 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ