বাংলাদেশের অবস্থান প্রসংশনীয় আউটসোর্সিংয়ে । ওডেস্কের সহ-সভাপতি ম্যাট কুপার

4
347

বাংলাদেশের অবস্থান প্রসংশনীয় আউটসোর্সিংয়ে । ওডেস্কের সহ-সভাপতি ম্যাট কুপার

বাংলাদেশ আইসিটি খাতে দারুণ এগিয়েছে। এ দেশের ৭০ ভাগ প্রজন্মই তারুণ্যনির্ভর। তাই জনসংখ্যা এদেশের জন্য সমস্যা নয়। বরং সম্পদ। তবে সুদক্ষ আর পেশাভিত্তিক দক্ষতা ছাড়া এ সমস্যা জাতীয় সম্পদ হিসেবে কাজে আসবে না। এ জন্য সরকারকে প্রণোদনা প্যাকেজের প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে। এদেশের উৎসাহী তরুণরা ওডেস্কের তালিকায় নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করেছে।
বাংলাদেশে দুদিনের সফরে এসেছিলেন বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় আউটসোর্সিং প্রতিষ্ঠান ওডেস্কের সহ-সভাপতি ম্যাট কুপার। তার মতে বাংলাদেশ আউটসোর্সিং এ দারুণ এগিয়েছে। এ খাতে বাংলাদেশের ৫০০ কোটি টাকার বাজার সম্ভাবনা আছে। এ সম্মাননা বাংলাদেশের তরুণদের আরও উৎসাহিত হবে। সমগ্র বিশ্বেই আউটসোর্সিং নির্ভরতা বাড়ছে। স্থির অফিসের তুলনায় ভার্চুয়াল অফিস পদ্ধতিই জনপ্রিয় হচ্ছে। আর বাংলাদেশে এ কাজের জন্য চমৎকার পরিবেশ আছে। বাংলাদেশ গত ৩ বছরে আউটসোর্সিংয়ে নিজেকে গুরুত্বপূর্ণ বাজার হিসেবে তুলে ধরেছে। বিশ্বের কোনো দেশই এখন আউটসোর্সিংয়ে বাংলাদেশকে খাটো করে দেখে না। বরং সর্বোচ্চ বিবেচনায় নিয়েছে।
আউটসোর্সিং চাকরিতে আরও সুদক্ষ জায়গায় বাংলাদেশের তরুণদের প্রবেশ করতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রের আউটসোর্সিং কন্ট্রাকটররা ঘণ্টায় ন্যূনতম ১৫ থেকে ২০ ডলার আয় করে। বাংলাদেশে কন্ট্রাকটররা ঘণ্টায় ন্যূনতম ৫ থেকে ১০ ডলার আয় করছে।
তবে অনলাইনে ডলার পেমেন্ট প্রসঙ্গে হাসিমুখেই ম্যাট কুপার বলেন, পেপল, পেপল অ্যান্ড পেপল। এটা সত্যিই একটি বড় বাধা। এ নিয়ে ওডেস্ক সরকারের সঙ্গে ‘ডায়লগ ওপেন’ করেছে। অচিরেই গ্লোবাল ব্যাংকের মাধ্যমে বাংলাদেশে ওডেস্ক তাদের পেমেন্ট পদ্ধতি চালু করার চেষ্টা করছে। এটি সম্ভব হলে বাংলাদেশে আউটসোর্সিংয়ে তাদের সবচেয়ে বড় বাধাটি অতিক্রম করবে। তখন আরও বেশি তরুণ এ খাতে আগ্রহী হয়ে উঠবে। আগামী ২০১৪ সালের মধ্যে বাংলাদেশ বর্তমান আউটসোর্সিং বাজারে দ্বিগুণ দখলে নেবে। এ বিশাল বাজার পেতে অনেক আউটসোর্সিং প্রতিষ্ঠানই বাংলাদেশকে গুরুত্ব দিয়েছে। ওডেস্কের শীর্ষ দু কর্মকর্তার এ সফরে এমন আভাস দিয়েছেন।
এ সম্ভাবনাকে শুধু কাগজে-কলমে আর সমীকরণে না নিয়ে বাস্তবায়ন করতে হলে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগ জরুরি। তথ্য প্রযুক্তিতে সেবা প্রদানকারী প্রাণন লি: ও এই প্রতিষ্ঠানের সিইও, নাহিদুল ইসলাম রুমেল জানান প্রাণন লি: শুধুমাত্র খুলনাতেই আগামীতে ২০১৪ সালের মধ্যে দুইশত আই টি ফার্ম প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে পরিকল্পনা গ্রহণ করছে এবং সে লক্ষ্যে কাজ অনেক দূরই এগিয়েছে। সম্ভাবনাময় এ বাজার থেকে বাংলাদেশ বিপুল বৈদেশিক মুদ্রা আয় করতে পারবে। এ জন্য সরকারিভাবে উৎসাহ আর উদ্যোগ একান্ত প্রয়োজন। বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে আউটসোর্সিং পেমেন্ট পদ্ধতি উন্মুক্ত আর সহজ হলে বাংলাদেশ দ্রুতই এ খাতে আরও চমক দেখাবে।

ভালো লাগলে আমার সাইট থেকে গুরে আসতে পারেন ভিজিট করুন

4 মন্তব্য

  1. বাংলাদেশের বেশির ভাগ ফ্রিলান্সাররাই ODesk এর কাজ করে………এবং ভাল আরন করে ……..আর এর জন্য বাংলাদেশ কিছু করলে বৈদেশিক মুদ্রা ভাল অর্জন হবে……..

একটি উত্তর ত্যাগ