টেকটিউন্স মডারেটর SwordFish কে চিনেন ?? না চিনলে চিনে নিন এবার !

44
620
টেকটিউন্স মডারেটর SwordFish কে চিনেন ?? না চিনলে চিনে নিন এবার !

প্লাবন

আমি রাজউক উত্তরা মডেল কলেজের একজন ছাত্র। নিজের কোম্পানি ই-হোস্ট ল্যাব এবং নেটে টুকটাক ঘুরে বেড়াই..........!?!
টেকটিউন্স মডারেটর SwordFish কে চিনেন ?? না চিনলে চিনে নিন এবার !

নিদারুণ কষ্টে হলেও, আজ আর না বলে পারলাম না। টেকটিউন্স আর কতবার ক্ষমতার অপব্যবহার করবে ?? এইযে দেখুন, তাদের স্পর্ধা !

টেকটিউন্স এ এক মডারেটর আছে জানেন কিনা জানিনা। নাম তার SwordFish আসল নামঃ মাহবুব। এই লোকটির কাম হল শুধু ব্যান করা। অর্থাৎ, আপনি যদি তাদের কোনো প্রকার ভুল ধরায়া দেন অথবা কপি-পেস্ট টিউন সম্পর্কে অবহিত করেন তবে আপনি ব্যান খেতে প্রস্তুত। তারা সেই টিউন কখনই ডিলেট করবে না।

ঘটনাক্রমে, আমি টিউনারপেজে একটা টিউন লিখি আইপি চেঞ্জ নিয়ে ১৩ জুন, ২০১২ তে। আমি সব সময় আমার নাম প্লাবন ব্যবহার করি জীবনে সর্বক্ষেত্রে। আমার এই টিউনটি সুন্দরভাবে কপি করে টেকটিউন্সে দেন টেকটিউন্সের একজন ব্লগার। আমি তাতেও কিছু বলতে চাইনি কারণ, এটা স্বাভাবিক। কিন্তু, আমি আর বসে থাকতে পারলাম না কিছু বিষয় দেখে।

আমি এই বিষয়টিও জানতাম না যে, আমার লেখা কপি হয়েছে। স্বয়ং, টেকটিউন্সের এক ব্লগার আমাকে ফেসবুকে মেসেজ দিয়ে জানায়। উনি আমাকে জানানোর আগে মাহবুবকে বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করেন, কিন্তু তাকে ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে এর ফলে গ্রুপ থেকে ব্যান খেতে হয়। তারপর আমি ছোট একটা কথা গ্রুপে পোস্ট করতে চাইলেও আমাকে সেই অনুমতি দেয়া হয় নাই। আমি যতবার চেষ্টা করেছি গ্রুপে পোস্ট দেবার জন্য ততবার সেটা পোস্ট হয় নি, জানিনা কেন হয়তোবা আমিও পোস্ট থেকে বঞ্চিত তাই !

সবচেয়ে বড় ভয়ংকর কথা হল, আমার পোস্টে আমি একটা ব্যানার লাগিয়েছিলাম ই-হোস্ট ল্যাবের। মনে হয়, কপিবাজ ব্লগার আমার পোস্টের পুরোটাই কপি করেছিলেন কিন্তু মাহবুব আমার সেই ব্যানারকে ট্রোজান আক্রান্ত বলেছেন।

প্রমাণসমূহঃ

আমি পোস্ট করতে যেসব ছবি ব্যবহার করেছি সেগুলোর লিঙ্ক ই-হোস্ট ল্যাবের সার্ভারের। কপিবাজ ব্লগারও ঐসব লিঙ্ক ব্যবহার করেছেন। সুতরাং, তিনি যে আমার লেখা হুবহু আজকে (১৪ তারিখ) কপি করেছেন তা বুঝতে আর কোনো অবকাশ নেই।

মূল লেখাঃ http://www.tunerpage.com/archives/112849

কপিবাজ লেখাঃ http://www.techtunes.com.bd/hacking/tune-id/129190

TunerPage এর একজন এডমিন হিসেবে বলছিঃ

এর আগেও দেখেছি, এই লোকটার আস্পর্ধা। হাজারে হাজারে মানুষ টেকটিউন্স ছেড়ে টিউনারপেজে এসেছেন তার কর্মকান্ড দেখে, ব্যান খেয়ে। আমরা কিন্তু তাদের ফেলে দিই নি, মনোবল বাড়িয়েছি। এমনও হয়েছে তারা আমাদের তীরে এসে কাঁদতে কাঁদতে টিউনারপেজকে ভাসিয়ে ফেলেছেন শুধু এতটুকু বলে, “জানেন ভাই, আমার দিন-রাত ২৪ ঘন্টায় একমাত্র কাজ ছিল টেকটিউন্স ভিজিট করা, সেই টেকটিউন্সের ঐ মডারেটর আমার সাথে কি কি করেছে বলে বোঝাতে পারব না !”

এখন, আপনারা বিচার করবেন, টেকটিউন্সে থাকবেন কিনা ! আমি বলব, আমি তো আর থাকব না, তবে সেদিন আবার তাদের মূল্যায়ন করব যেদিন তারা আমাদের মূল্যায়ন করতে শিখবে, অহংকারী মডারেটর হারিয়ে যাবে। আমরা মাহবুব আলমের মত মডারেটরকে ধিক্কার জানাই, উনি ক্ষমতার অপব্যবহার করতে সব সময় ২৪ ঘন্টা রেডি থাকেন। টেকটিউন্স এর পরিচালনা কমিটির যদি একটু হলেও টনক নড়ে তবে এ আহবান সার্থক হবে।

আরেকটি কথা বলতে চাই, টেকটিউন্সের সম্মানিত জ্ঞানী-গুনী ব্যক্তিরা যদি এই টিউনের মধ্যে গালিগালাজ/যুক্তি তর্ক করতে আসেন, বলে দিলাম, পুরো টিউনারপেজ পরিবার আপনার উপর ঝাপিয়ে পড়বে, কুল-কিনারা পাবেন না কিন্তু !

ফেসবুক গ্রুপে লিখতে পারলাম নাঃ

টেকটিউন্স মডারেটর SwordFish কে চিনেন ?? না চিনলে চিনে নিন এবার !

44 মন্তব্য

  1. আপনার টিউন ও সবার কমেন্ট আমি মনযোগ সহকারে পড়লাম
    আমি বুঝতে পারছিনা কোথায় শুরু করব কোথায় গিয়ে শেষ করব তার পরও আমি শুরু করতে চাই প্রথম থেকে প্রথম থেকেই শুরু করি কিন্তু জানি আমার কমেন্ত মুছে ফেলবেন ,আর আপনারা যদি সেরকম বুদ্ধি মান হন আমার বুজতে দিবেন । প্রথমেই বলতে চাই আপনি বললেন ব্যান করা নিয়ে একটা এখানে বুঝতে হবে যে টেকটিউন,
    সাম্যোয়ার ইন ব্লগে ও টিউনার পেজ এরা এমন সাইট যেখানে আপনি পোস্ট করতে সব সাইট এর ই এক বা একাধিক নিয়ম আছে আর কেও এটি লঙ্ঘন
    করলে তার উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া আর ব্যান সেরকম একটা সিস্টেম আর টেকটিউন যদি এই সিস্টেম না নিত তাহলে নিরপেক্ষ ভাবে ভাবুন কি হত টেকটিউন কি অবস্থা হত ।আর পোস্ট বিষয়ে বলি ,আপনি অন্যর কপি করা পোস্ট আপনি পোস্ট করলেন সেটা তো অপরাধ আর none টেক post লাইক
    প্রন,চটি,বা কারো ব্যক্তি গত বিষয়ে বলা আর ক্ষতিকর করলে ব্যান তো হবেনই আর কপি করার কিছু নিয়ম আছে যেমন সোর্স লিঙ্ক দিতে হয় আর আপনার যদি পোস্ট কোন অশুবিধা থাকে তা আপনি টেক টিউন ডেস্ক বলতে পারতেন এখন আপনি বলবেন আমার একাউন্ট রেমুভ করছে তাহলে নতুন একটা একাউন্ট করতেন আর মডারেটর এর আরস্পধা নিয়ে কথা আপনি কে !!!।ও ভুলেই গিয়ে ছিলাম আপনি তো নিয়ম লঙ্ঘন কারি একটি ব্যান খাওয়া টিউনার ।আর তাছাড়া ভাই আপনি দেখলাম চোর-ধোঁকাবাজ বললেন কিন্তু দেখেন ইসলাম কেন গালিকে কোন ধর্মই সমর্থন করে না কিন্তু আমি কিছু টা বিচলিত হলাম আপনার ধর্ম নিয়ে, জানতে পারি কি আপনার ধর্ম কি।আর দেখলাম আর গালি আর যুক্তি তর্ক করা আমি বলব টেক টিউন এর
    ফ্যামিলি কেউ আপনাদের মত নির্বোধ নয় যে গালি পারতে যাবে ,এবং যুক্তি তর্ক একমাত্র কমন সেন্স ওয়ালা লোকদের সাথে করা যায় পাগল দের সাথে নয়
    আর দেখি কিছু টিউনের জবাব দেওয়া যায় কিনা।

একটি উত্তর ত্যাগ