চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

43
988

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

১৯৮৩ সালে উইন্ডোজ ১.০ এর মাধ্যমে যাত্রা শুরু উইন্ডোজ নামক একটি অপারেটিং সিস্টেম এর। তারপর পেরিয়ে গেছে ২৯ বছর। সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে নিত্যনতুন ফিচার আর পারফমেন্স এর জাদুতে আজ পর্যন্ত সেরার স্থানটি মাইক্রোসফট এর দখলে। এ সময়ের সবচেয়ে আলোচিত অপারেটিং সিস্টেম হচ্ছে উইন্ডোজ ৮। মাইক্রোসফট এই পর্যন্ত এত বেশি পরিমান স্রম ও উন্নতিসাধন আর কোন অপারেটিং সিস্টেম এর জন্য করেনি। অনেক বোদ্ধারা ইতিমধ্যে একে সেরার মর্যাদা দিয়ে ফেলেছেন।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

মাইক্রোসফট পরিবারের নতুন সদস্য উইন্ডোজ ৮ এ প্রায় ছোট বড় ৩০০ নতুন ফিচার যোগ করা হয়েছে। এইবার ই প্রথমবারের মত এমআরএম ভিত্তিক প্রসেসর এ চলবে উইন্ডোজ ৮। আর এর ব্যাবহারকারিরা, মানে যারা এখন পর্যন্ত এর ডেভেলপার প্রিভিউ ব্যাবহার করেছেন, তাদের মতে এমন দ্রুতগতির, উন্নত গ্রাফিক্স সমৃদ্ধ উইন্ডোজ মাইক্রোসফট আজ পর্যন্ত দিতে পারেনি। এমনকি সেটা সিঙ্গেল কোর প্রসেসসর এর ক্ষেত্রেও। চলুন এর কিছু চমৎকার ফিচার এর সাথে পরিচিত হওয়া যাক।

মেট্রো ইন্টারফেস


অসাধারন শিল্পশৈলী ও চোখ ধাঁধানো গ্রাফিক্স এর সমন্বয়ে গড়া মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ৮ এর নতুন ইউজার ইন্টারফেস এর নাম দিয়েছে মেট্রো। কম্পিউটার অন করার সাথে সাথে মনিটর এ ইন্টারফেস এ ব্যাবহারকারির যাবতীয় প্রোগ্রাম একই জায়গায় হাতের মুঠোয় থাকবে। আগের মত এখানে স্টার্ট বাটন থাকছে না।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

 

বরং স্টার্ট স্ক্রিন থাকছে যা আগের থেকে বেশি সুন্দর এবং কার্যকর। এখানে আপনার বহুল ব্যাবহ্রিত প্রোগ্রাম টাইলস আকারে চমৎকার অ্যানিমেশন এর মাধ্যমে সাজানো থাকবে যা আপনাকে মুগ্ধ করবেই। তাছাড়া মনিটর লক করা যাবে এতে এবং লক করা অবস্থায় তারিখ, নোটিফিকেশন এবং ব্যাকগ্রাউন্ড দেখাবে। টাচস্ক্রিন ব্যাবহারকারিরা বেশি সুবিধা পাবেন এতে।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

 

নতুন লগ-অন পদ্ধতি


আগের সিস্টেম এর পাশাপাশি উইন্ডোজ ৮ এ লগ অন করার সময় পিন কোড ও পিকচার পাসওয়ার্ড নামে নতুন দুটি পদ্ধতি চালু করেছে মাইক্রোসফট। পিন নাম্বার মূলত ট্যাবলেট ব্যাবহারকারিদের জন্য।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

তবে সাধারন ডেক্সটপ ব্যাবহারকারীরাও ব্যাবহার করতে পারবেন। আর পিকচার সিস্টেম এ কোন ছবির একটি নির্দিষ্ট অংশকে পাসওয়ার্ড হিসেবে সেট করা যাবে। এই সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে নিচের ভিডিও তে দেখতে পারেন।


মাইক্রোসফট দাবি করেছে যে এই নতুন লগ অন পদ্ধতিতে আগের থেকে ৩ গুন দ্রুত লগ ইন করা যাবে।

স্টার্ট বোতাম চার্ম


উইন্ডোজ এর স্টার্ট বাটন ভক্তদের জন্য খারাপ খবর। চিরাচরিত স্টার্ট বাটনের বদলে উইন্ডোজ ৮ এ যোগ করা হয়েছে নতুন চার্ম বাটন।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

মাউস দিয়ে ডেক্সটপ এর নিচের বামদিকের কোনা থেকে এবং ট্যাবলেট এ নিচের ডানদিকের কোনা থেকে এই চার্ম বাটন ব্যাবহার করা যাবে।

 

উইন্ডোজ স্টোর


অনেকটা ঈর্ষার বশবর্তী হয়ে অ্যাপ মার্কেটে ভাগ বসাতে উইন্ডোজ গড়ে তুলেছে বিশাল একটি উইন্ডোজ অ্যাপ স্টোর। হাজার হাজার অ্যাপ্লিকেশান ইতিমধ্যে জমা হয়েছে এখানে। ডেভেলপাররা নতুন করে আবার উইন্ডোজ অ্যাপ ডেভেলপিং এ নেমে পরেছেন। অ্যাপলের অ্যাপ স্টোর এর মতই অনেকটা এর ব্যাবহারবিধি।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

এই সুবিধা শুধু উইন্ডোজ ৮ ব্যাবহারকারিরাই পাবেন, এখানে লগ ইন করতে একটি মাইক্রোসফট আইডি লাগবে। এখানে উইন্ডোজ ডেভেলপাররা তাদের সফটওয়্যার টাকার বিনিময়ে অথবা বিনামুল্লে সরবরাহ করতে পারবেন। তবে এখন পর্যন্ত সব বিনামুল্লেই পাওয়া যাচ্ছে। তাছাড়া এখানে মেট্রো স্টাইল এ সব সাজানো থাকবে এবং রেটিং এর ব্যাবস্থা থাকবে। ফলে ব্যাবহারকারি খুব কম সময়ে তাদের পছন্দের সফটওয়্যার খুজে নিতে পারবেন।

 

USB-3.0 সমর্থন করে


উইন্ডোজ ৭ এ যদিও USB-3.0 সমর্থন করে, তবে তা USB-2.0 এর মত না যেটা নিজেই ড্রাইভার ইন্সটল করে নেয়। ৭ এ একটি থার্ড পার্টি সফট ইন্সটল করা লাগে USB-3.0 সমর্থনের জন্য। কিন্তু মাইক্রোসফট জানিয়েছে যে উইন্ডোজ ৮ এ সেটার দরকার পরবে না। ৮ এ আগে থেকেই USB-3.0 এর ড্রাইভার দেয়া আছে।

 

নতুন কার্যকর ফাইল কপি সিস্টেম


অনেকেরই অভিযোগ ছিল দ্রুতগতির প্রসেসসর ও বেশি র‍্যাম ব্যাবহারের পর ও উইন্ডোজ এ ফাইল কপি ধীরগতির। তাই এই অভিযোগের যথার্থ জবাব দিতে আরও কার্যকর ও সম্পূর্ণ নতুন স্টাইল এর ফাইল কপির সিস্টেম নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

একাধিক ফাইল কপি করার জন্য একটি ডাইলগ বক্স খোলা থাকবে যেখানে একাধিক ফাইল কপি হলেও তা আলাদা আলাফা ভাবে দেখাবে সম্পূর্ণ ডিটেইলস সহ। সবচেয়ে দারুন ব্যাপার হচ্ছে সেখানে প্রতিটি ফাইল আলাদা আলাদা ভাবে পাউস ও রিসিউম করা যাবে কোন ঝামেলা ছাড়াই। সোজা কথা এই নতুন ফাইল কপি সিস্টেম কে অনেকেই টেরাকপির নতুন ও উন্নত ভার্সন বলে তুলনা করছেন।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

 

নতুন টাস্ক ম্যানেজার


উইন্ডোজ টাস্ক ম্যানেজার কে আমরা সকলেই চিনি।একে বলা হয় সকল কাজের কাজী। এই টাস্ক ম্যানেজারকে সম্পূর্ণ নতুনভাবে নিয়ে এসেছে উইন্ডোজ ৮।সাধারন ব্যাবহারকারিদের জন্য বেসিক ও অভিজ্ঞ ব্যাবহারকারিদের  ডিটেইলস সহ সম্পূর্ণ নতুন একটি টাস্ক ম্যানেজার উপহার দিচ্ছে উইন্ডোজ ৮।

 

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

 

এখানে আপনি আপনার সিস্টেম এর সম্পূর্ণ বিস্তারিত তথ্য পাবেন। ফলে আপনাকে কোন থার্ড পার্টি টুল এর সাহায্য নিতে হবে না।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

আর বুটিং এর সময় অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম কে এখান থেকেই থামিয়ে দিয়ে আপনার বুটিং কে আরও দ্রুতগতির করে তুলতে পারবেন।

 

নতুন প্রি ইন্সটলড সফটওয়্যার


উইন্ডোজ এ গান শোনা সহ সাধারন কাজকর্মের জন্য কিছু সফট প্রি ইন্সটলড থাকে। এইবার সেই জায়গায় আরও কিছু নতুন সফট যুক্ত করতে যাচ্ছে মাইক্রোসফট। আর আগের গুলোর নতুন ভার্সন তো থাকছেই।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

এবারের সফটওয়্যার এর তালিকায় থাকছে মেইল, ছবি, আবহাওয়া, ক্যালেন্ডার সহ আরও অনেক চমকপ্রদ সফট।

 

নতুন টাস্কবার


একটি মনিটর যারা ব্যাবহার করেন তাদের জন্য হয়তো এটি তেমন কিছু লাগবে না। কিন্তু পেশাদার গেমার বা গ্রাফিক্স ডিজাইনার অথবা শৌখিন যারা একাধিক মনিটর ব্যাবহার করেন তাদের জন্য অসাধারন কাজের এই নতুন টাস্কবারটি।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

দুইটি মনিটর এ দুই ধরনের অ্যাপ দিয়ে দুই রকম টাস্কবার সাজানো যাবে। তাছাড়া দুইটি পর্দার জন্য দুইটি ওয়ালপেপার নির্বাচন অথবা একটি ওয়ালপেপার দুই স্ক্রিন এ দেখাতে পারবেন।

 

ওল্ড ইজ গোল্ড


যারা মনে প্রানে এই কথাটি বিশ্বাস করেন, তাদের বিশ্বাস ভঙ্গ না করার জন্য হয়তো একটা ধন্যবাদ মাইক্রোসফট এর পাওনা আছে। আপনার যদি উইন্ডোজ ৮ এর নতুন ফিচার বা মেট্রো পছন্দ না হয়, তাহলে পুরনো ডেক্সটপ এ ফিরে যাবার ব্যাবস্থা রেখেছে মাইক্রোসফট। স্টার্ট স্ক্রিন এর একটি টাইল এ এই অপশন দেয়া আছে। তবে তারপরেও হাল্কা কিছু পরিবর্তন থাকবে। স্টার্ট বাটন থাকবে না এবং টাস্কবার কিছুটা পরিবর্তিত আকারে দেখাবে।

 

দ্রুততর বুটিং টাইম


মাইক্রোসফট দাবি করেছে তাদের এ অপারেটিং সিস্টেম আগের তুলনায় ৩ গুন দ্রুত বুট হবে। উইন্ডোজ শাটডাউন হবার সময় উইন্ডোজ কার্নেলের স্মৃতি হার্ডডিস্ক এ সংরক্ষন করে রাখবে। ফলে চালু করার সময় উইন্ডোজ দ্রুততার সাথে সেই স্মৃতি অ্যাক্সেস করতে পারবে। ফলে উইন্ডোজ দ্রুততার সাথে চালু হবে।

 

মাইক্রোসফট আইডি সংযোজন


উইন্ডোজ ৮ এর আরেকটি চমকপ্রদ ফিচার হচ্ছে উইন্ডোজ এর সাথে মাইক্রোসফট আইডি এর সংযোজন। ফলে কম্পিউটার ক্রাশ হলেও ভয় নাই। সহজেই আগের সেটিং এবং কিছু নির্দিষ্ট ফাইল পাবেন শুধু লগিন করেই।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

তবে এই ফিচারটি এখন ও সমৃদ্ধ না। দেখা যাক, ফাইনাল ভার্সন এ মাইক্রোসফট একে নিয়ে কি করে

 

পোর্টেবল উইন্ডোজ


কি, নাম শুনেই চরম একটা ফিচার মনে হচ্ছে কি? উইন্ডোজ ৮ এ ঠিক সেই রকম এ একটি সুবিধা আছে। ল্যাপটপ নেই তো কি, উইন্ডোজ আছে না। উইন্ডোজ ৮ এ “উইন্ডোজ টু গো” নামের নতুন এই ফিচারটি হচ্ছে উইন্ডোজ এর সবচেয়ে অসাধারন ফিচার।

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

আপনি এর মাধ্যমে উইন্ডোজ ৮ এর একটি বুটেবল পেনড্রাইভ তৈরি করতে পারবেন যেখানে আপনার নির্বাচিত ইন্সটল করা সফটওয়্যার, ফাইল, সেটিংস্‌ সব কিছু থাকবে। শুধু যে কোন পিসিতে বুট করলেই আপনি পারবেন আপনার কাস্টমাইজ করা উইন্ডোজ চালাতে। খুব এ দারুন একটা সুবিধা। আশা করা হচ্ছে ফাইনাল ভার্সনে এর কার্যকারিতার প্রমান পাওয়া যাবে।

 

 

উইন্ডোজ ৮ এর শত শত নতুন ফিচার দেখে অনেকেই বলছেন সত্যি সত্যি মাঠ কাপাতে আসছে উইন্ডোজ ৮। এখানে মাত্র কিছু ফিচার নিয়ে আলোচনা করা হল। আরও অনেক ফিচার আছে যা আপনি নিজে নিজেই ব্যাবহার করলে জানতে পারবেন। তবে এটা ঠিক যে উইন্ডোজ ৮ আগের থেকে অনেক বেশি দ্রুতগতির, ইউজার ফ্রেন্ডলি। এখন পর্যন্ত যারা এর ডেভেলপার ভার্সন ব্যাবহার করেছেন, তাদের ৭৯ভাগ এর পক্ষে ভোট দিয়েছেন। তবে এর কিছু সমস্যাও আছে। আশা করা যায় ফাইনাল ভার্সন এ এই সমস্যাগুলো থাকবে না। উইন্ডোজ ৮ চালাতে আপনার পিসির উরাধুরা কনফিগারেশন লাগবে না। মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ৭ এর থেকেও কম কনফিগারেশন লাগবে। সব মিলিয়ে দেখা যাক, সাধ ও সাধের কতটুকু সমন্বয় ঘটাতে পারে উইন্ডোজ ৮। তবে সেই পর্যন্ত অপেক্ষা করা ছাড়া গতি নেই।

 

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

চোখ ধাঁধানো ফিচার নিয়ে আসছে উইন্ডোজ ৮

 

43 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ